৩০ মার্চ ২০২০

নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সি-বোট চলছে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে

-

করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে মঙ্গলবার দুপুর থেকে সরকারিভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে শিমুলীয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে চলাচলকারী সব নৌযান। অসাধু সি-বোট মালিক ও চালকরা চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের নৌযানগুলো। এতে নদী পারাপারে সি-বোট ঘাটে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ করা গেছে। করোনা অজুহাতে সি-বোট ভাড়াও নিচ্ছে দ্বিগুণ। এ যেন দেখার কেউ নেই।
স্থানীয়রা জানান, করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারিভাবে এই নৌরুটের সব নৌযান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু ঘাট ইজারাদার আওয়ামী লীগ নেতা আশ্ররাফ হোসেন তা মানছেন না। তিনি তার ক্ষমতার জোরে সব সি-বোট চলাচলা সচল রেখেছেন ভাড়াও নিচ্ছে দ্বিগুণ এ যেন মগের মুল্লুক।
এক সি-বোট যাত্রী কাশেম বলেন, করোনা মোকাবেলায় সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা মানছেন না ঘাট ইজারাদার। যাত্রীদের চাপ বেশি দেখে অসাধু এই ইজারাদার জনপ্রতি সি-বোট ভাড়া নিচ্ছে আড়াই শ’ থেকে তিন শ’ টাকা; যার ভাড়া হওয়ার কথা ১৫০ থেকে ১৮০ টাকা।
এ ব্যাপারে ঘাট ইজারাদার আশ্ররাফ হোসেন বলেন, সরকারি নির্দেশনা মেনে বিকেল থেকে সি-বোট চলাচল বন্ধ রেখেছি। এর পরও যদি কেউ চালায় তার বিরুদ্ধে সরকার আইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে না কেন?
সীমিত আকারে ফেরি চালু রাখার কথা জানিয়ে লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাবিরুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার দুপুর থেকে লঞ্চ, সি-বোট ও ট্রলার বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে কেউ যদি যাত্রী পারাপারে সি-বোট বা লঞ্চ চালায় তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 


আরো সংবাদ