২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৪ আশ্বিন ১৪৩০, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫ হিজরি
`

আফগানিস্তানে গণহত্যা : যেভাবে ফেঁসে গেলেন অস্ট্রেলিয়ার কমান্ডার

আফগানিস্তানে গণহত্যা : যেভাবে ফেঁসে গেলেন অস্ট্রেলিয়ার কমান্ডার - ছবি : সংগৃহীত

আফগানিস্তানে গিয়ে হত্যালীলা চালানোর জন্য তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছিল তিনটি সংবাদমাধ্যম। পাল্টা সংবাদমাধ্যমগুলোর বিরুদ্ধে কোটি কোটি টাকার মানহানির মামলা করেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই মামলা হেরে মানসম্মান খোয়ালেন অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ সম্মানপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা বেন রবার্টস-স্মিথ।

বেনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, আফগানিস্তানে গিয়ে নিরস্ত্র বন্দিদের নির্বিচারে খুন করেছিলেন তিনি। এক প্রকার ‘হত্যালীলা’ চালিয়েছিলেন। এর পরই সংবাদমাধ্যমগুলোর বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করে আদালতের দ্বারস্থ হন বেন। কিন্তু বৃহস্পতিবার সেই মামলা তিনি হেরে গিয়েছেন।

সিডনির ফেডারেল আদালতের বিচারকের রায়, সংবাদমাধ্যমে যা দাবি করা হয়েছিল, তা অনেক ক্ষেত্রেই সত্য।

আদালতে অনেক দিন ধরে বেন এবং সংবাদমাধ্যমগুলোর মধ্যে এই মামলা চলছিল। সেই দীর্ঘ আইনি লড়াই শেষে বৃহস্পতিবার সংবাদমাধ্যমগুলোর পক্ষেই রায় দিল আদালত।

‘দ্য এজ’, ‘দ্য সিডনি মর্নিং হেরাল্ড’, এবং ‘ক্যানবেরা টাইমস’-এ ২০১৮ সালে প্রকাশিত নিবন্ধগুলোতে অস্ট্রেলিয়ার ‘অভিজাত’ সেনা কর্মকর্তা বেনকে ধর্ষক এবং খুনি হিসাবে চিহ্নিত করেছিল। এ-ও দাবি করা হয়েছিল, খ্যাতি রক্ষার স্বার্থে দিনের পর দিন মিথ্যা বলে গিয়েছেন বেন।

অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল কোর্টের বিচারক অ্যান্টনি বেসাঙ্কো বেনের মানহানির মামলাকে নস্যাৎ করার পাশাপাশি এ-ও জানিয়ে দিয়েছেন বেনকে কোনো রকম ক্ষতিপূরণ দিতে হবে না সংবাদমাধ্যমগুলোকে। আর বিচারকের সেই রায়ে পুরোপুরি ধাক্কা খেয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সেনাবাহিনী।

বিচারক বেসাঙ্কোর পর্যবেক্ষণ, ‘দ্য এজ’, ‘দ্য সিডনি মর্নিং হেরাল্ড’ এবং ‘দ্য ক্যানবেরা টাইমস’ বেনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এনেছিল, তার মধ্যে অনেকগুলো অভিযোগ সত্য।

তবে সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে উল্লেখ থাকা বেশ কয়েকটি অভিযোগ সঠিক নয় বলেও বিচারক বেসাঙ্কোর পর্যবেক্ষণ।

বিচারক বেসাঙ্কো জানিয়েছেন, সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই সত্য প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমগুলোতে দাবি করা হয়েছিল, অস্ট্রেলিয়ার বিশেষ বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা বেন আফগানিস্তানের একজন সাধারণ নাগরিককে বিনা কারণে পাহাড় থেকে লাথি মেরে ফেলে দিয়েছিলেন।

শুধু তাই নয়, ওই ব্যক্তি পাহাড় থেকে পড়ে যাওয়ার পর বেনের নির্দেশে ওই ব্যক্তিকে গুলি করে ঝাঁঝরা করে দেয়া হয়। বিচারক বেসাঙ্কো জানিয়েছেন, সব সাক্ষ্যপ্রমাণ খতিয়ে দেখা গেছে সংবাদপত্রের এই দাবি সত্য।

বেসাঙ্কো আরো জানিয়েছেন, সংবাদমাধ্যমগুলোর এই দাবিও সত্য যে, বেন আফগানিস্তানে একজন নিরপরাধ বিকলাঙ্গ ব্যক্তিকে গুলি করে হত্যা করেছিলেন।

ওই বিকলাঙ্গ ব্যক্তিকে খুনের পর বেন তার কৃত্রিম পা অস্ট্রেলিয়ায় নিয়ে যান এবং সেনা সদস্যদের মদ্যপান করার পাত্র হিসাবে ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ করা হয়েছিল। বিচারক বেসাঙ্কো জানিয়েছেন, এই অভিযোগও সত্য প্রমাণিত হয়েছে।

বেসাঙ্কোর রায়ের পর অস্ট্রেলিয়াজুড়ে হইচই পড়ে গিয়েছে। বেনের বীরত্বের জন্য তাকে অস্ট্রেলিয়ার সর্বোচ্চ পদক, ‘ভিক্টোরিয়া ক্রস’-এ ভূষিত করা হয়েছিল। সাহসিকতা এবং সেনাবাহিনীকে নেতৃত্ব দেয়ার জন্য আরো অনেক সম্মানে সম্মানিত করা হয়েছিল বেনকে।

কিন্তু আফগানিস্তানে থাকাকালীন বেন এবং তার বাহিনী যুদ্ধাপরাধ করেছেন বলে অভিযোগ উঠে আসার পর তার পাহাড়প্রমাণ খ্যাতি কমতে শুরু করে।

বৃহস্পতিবার আদালতের রায়ের পর, ‘দ্য এজ’ এবং ‘দ্য সিডনি মর্নিং হেরাল্ড’-এর মূল সংস্থা নাইন-এর ম্যানেজিং ডিরেক্টর জেমস চেসেল মন্তব্য করেন, আদালতের এই রায় ওই সাংবাদিকতার জয়, যে সাংবাদিকতা মানুষের কথা বলে।

উল্লেখযোগ্য যে আদালতে রায় ঘোষণার সময় বেন অনুপস্থিত ছিলেন। রায়ের আগের দিন, ইন্দোনেশিয়ার বালিতে তাকে দেখা গিয়েছিল বলে সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর।

বেন নিজে অনুপস্থিত থাকলেও তার আইনজীবীরা সিডনির ফেডারেল কোর্টে রায় শোনার জন্য জড়ো হয়েছিলেন। এই মামলার রায় অস্ট্রেলিয়ার সরকারি টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়েছে।

নিক ম্যাকেঞ্জি এবং ক্রিস মাস্টার্স— এই দুই প্রবীণ সাংবাদিকই বেনের বিরুদ্ধে প্রথম চুপি চুপি তদন্ত শুরু করেন। আফগানিস্তানের অনেক পরিবারের সাথে কথাও বলেছিলেন তারা।

আদালতে বেনের বিরুদ্ধে সাক্ষী দিতে এগিয়ে আসা মানুষদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ম্যাকেঞ্জি বলেন, ‘আজকের দিনটি বেনের হাতে খুন হওয়া নিরপরাধ আফগানদের বিচারের দিন।’

অস্ট্রেলিয়ার সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, আদালতের রায়ে যে শুধু বেনের ‘কীর্তি’ ফাঁস হয়েছে তা নয়, আফগানিস্তানে মোতায়েন থাকা অস্ট্রেলিয়ার সেনাবাহিনী কিভাবে নিরপরাধ মানুষদের উপর অত্যাচার চালিয়েছিল, তা-ও প্রকাশ্যে এসেছে।

বেনের বিরুদ্ধে যারা সাক্ষী দিয়েছিলেন তাদের মধ্যে অনেকেই সেনাবাহিনীরই সদস্য। কেউ কেউ তাদের পরিচয় গোপন করেও সাক্ষী দিয়েছেন বলে সংবাদমাধ্যমে উল্লেখ করা হয়েছে।

বেন এই মামলা হেরে গেলেও সেনাবাহিনীতে থাকার সময় তার অর্জিত পদকগুলোর কী হবে, তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে মনে করা হচ্ছে, বেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধপরাধের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ার কারণে তার সব পদক কেড়ে নেয়া হতে পারে।
সূত্র : আনন্দবাবাজার পত্রিকা

 

সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী
মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন তিন দিনের সফরে আগামী মঙ্গলবার সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন। মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এ ঘোষণা দিয়েছে।

মুখপাত্র ম্যাথু মিলার শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেন, সফরকালে আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক ইস্যুতে দুই দেশের মধ্যকার কৌশলগত ইস্যু, অর্থনৈতিক ও নিরাপত্তাসহ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সৌদি কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করবেন ব্লিনকেন।

এছাড়া উপসাগরীয় সহযোগিতা পরিষদের (জিসিসি) মন্ত্রী পর্যায়ের এক সভাতেও উপস্থিত থাকবেন ক্লিনকেন। এতে মধ্যপ্রাচ্যে নিরাপত্তা, স্থিতিশীলতা, উত্তেজনা হ্রাস, আঞ্চলিক একীভূতকরণ, অর্থনৈতিক সুযোগ নিয়ে আলোচনা হবে বলে বিবৃতিতে বলা হয়।

সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর


আরো সংবাদ



premium cement
শ্রীলঙ্কাকে ২৬৩ রানেই আটকে দিয়েছে বাংলাদেশ খালেদা জিয়াকে আবারো সিসিইউতে স্থানান্তর সরকার গণতন্ত্র ও গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ধ্বংস করে দিয়েছে : এ টি এম মা’ছুম পাকিস্তানে আরেক স্থানে হামলা : নিহত ৪, ভেঙ্গে পড়েছে মসজিদ বগুড়ায় নিখোঁজের ১৩ দিন পর যুবকের লাশ উদ্ধার নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে মন্ত্রী-এমপিদের জমানত বাজেয়াপ্ত হবে : ডা. ইরান মিঠুপুকুরে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপে ব্যাপক সংঘর্ষ, আহত ২ শতাধিক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে গণঅধিকার পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশ ভারতে মন্দির থেকে একটি কলা নেয়ার অভিযোগে মুসলিম যুবককে পিটিয়ে হত্যা বুড়িচংয়ে পুকুর থেকে অটোচালকের লাশ উদ্ধার বিশ্বকাপ শিরোপা জয়ে অস্ট্রেলিয়ার মূল ভরসা ওয়ার্নার

সকল