০৯ মার্চ ২০২১
`

এসেই বাজিমাত স্বপনের

স্বপন চৌধুরী - ছবি : সংগৃহীত

তার মূল পরিচয় ফুটবলার। নিজে একটি ক্লাব চালান। একইসাথে খেলেন গোলরক্ষক পজিশনে। কুমিল্লা জেলা দলের হয়ে অনূর্ধ্ব-১৭ ও অনূর্ধ্ব-১৯ দলে খেলেছেন। কিন্তু তার গতি নজরে পড়ে ম্যানেজার ইকবাল খন্দকার ও কোচ আবদুল বারীর। তারাই তাকে উৎসাহ দেন অ্যাথলেট হতে। এরপর ১৫ দিনের অনুশীলন। তাতেই বাজিমার স্বপন চৌধুরীর।

কুমিল্লার এই অ্যাথলেট শনিবার জাতীয় জুনিয়র মিটে অনূর্ধ্ব-১৭ বালক বিভাগে ১০০ মিটারে প্রথম হয়েছেন। এই সাফল্যে তিনি এখন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ফুটবল আর খেলবেন না, হয়ে যাবেন অ্যাথলেট। এই ডিসিপ্লিন থেকেই খেলতে জাতীয় দলে তথা আন্তর্জাতিক মিটে।

কুমিল্লার ভাদৌড়ের কৃষক বাবার ছেলে স্বপন। পড়ছেন দশম শ্রেণীতে। তার খেলার জীবন কেটেছে বিভিন্ন স্থানে ফুটবল খেলে। পরিবার থেকেও পেয়েছেন সমর্থন। এরপর কোচ আর ম্যানেজার মিলে তাকে বানান অ্যাথলেট। তাদের কথাই উল্লেখ করেন স্বপন।



আরো সংবাদ