০৪ জুলাই ২০২২, ২০ আষাঢ় ১৪২৯, ৪ জিলহজ ১৪৪৩
`

কোয়াড বৈঠক চলাকালীন জাপানের আকাশসীমায় রাশিয়া-চীনের যুদ্ধবিমান


কোয়াড বৈটক চলাকালীন সময়ে জাপানের আকাশসীমায় যুদ্ধবিমান ওড়াল রাশিয়া ও চীন।

মঙ্গলবার বৈঠকে বসেছেন চার দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা। ওই বৈঠক চলাকালীন চীন ও রাশিয়া যৌথভাবে বোমারু বিমান ওড়াল জাপান সাগর ও পূর্ব চীন সাগরের উপর দিয়ে। এই কথা জানিয়ে জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নোবুও কিশি অভিযোগ করেন, বেইজিং এবং মস্কোর পক্ষ থেকে উস্কানিমূলক কার্যকলাপ চালানো হচ্ছে।

প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের দাপট কম রাখতেই তৈরি হয়েছে আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, জাপান ও ভারত-এই চারটি দেশের জোট- কোয়াড। প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চীনের দাপট কমাতেই মূলত এই জোট গঠন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে চার দেশের রাষ্ট্রপ্রধানদের বৈঠক চলাকালীন বিমান ওড়ার ঘটনাটি ঘটেছে।

কিশি জানান, এই ঘটনায় গভীরভাবে চিন্তিত জাপান।

সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, দু’টি চীনা বিমানের সাথে দু’টি রুশ বিমান জাপান সাগর থেকে পূর্ব চীন সাগরের দিকে চালানো হয়েছে। তবে এখানেই শেষ নয়। বেশ খানিকটা জায়গায় বোমারু বিমান চালানো হয়েছে বলে জানান কিশি।

পূর্ব চীন সাগরের দিকে যাওয়ার পরে সম্ভবত বদলে ফেলা হয় চীনা বিমান দু’টি। রুশ বিমানের সাথে দু’টি নতুন চীনা বিমানের মহড়া শুরু করে। এবার পূর্ব চীন সাগর থেকে প্রশান্ত মহাসাগরের দিকে যায় চারটি বিমান, এমনটাই জানিয়েছেন জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী।

এছাড়াও কিশি জানিয়েছেন, রাশিয়ার গোয়েন্দা সংস্থার তথ্য সংগ্রহকারী শাখার একটি বিমানকেও জাপানের দিকে উড়ে যেতে দেখা যায়।

চারটি দেশের শীর্ষ পর্যায়ের বৈঠক চলাকালীন এই ধরনের সামরিক মহড়ার তীব্র নিন্দা করেছে টোকিও। এই পদক্ষেপগুলো উস্কানিমূলক বলে অভিহিত করা হয়েছে জাপানের পক্ষ থেকে।

কিশি বলেন, জাপানের সুরক্ষা এবং নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে বেশ কয়েকবার কূটনৈতিক মহলের সাথে আলোচনা করেছি আমরা।

তিনি আরো বলেন, ইউক্রেনে হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। বিশ্বজুড়ে তীব্র নিন্দার মধ্যেও রাশিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছে চীন। এহেন আগ্রাসী মানসিকতা যথেষ্ট উদ্বেগজনক। জাপান এই ধরনের কার্যকলাপের দিকে নজর রাখছে।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


আরো সংবাদ


premium cement