০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ১৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪ হিজরি
`
ভাসছেন প্রশংসায়

বিয়ের সাজেই পরীক্ষা দিলেন তরুণী


অনেকেই ধারনা করেন বিয়ে মানেই মেয়েদের পড়াশোনা শেষ। এর পক্ষে হয়তো অনেক যুক্তিও দেখাতে পারা যাবে।

কিন্তু ইচ্ছা থাকলে নিজের চাহিদাপূরণে বিয়ে যে কোনো বাধা হতে পারে না, সেটিই যেন প্রমাণ করলেন গুজরাটের এক তরুণী। তাকে নিয়েই এখন চর্চায় মশগুল পুরো নেটদুনিয়া।

কিন্তু কী এমন করেছেন সেই তরুণী? এমন প্রশ্ন এখন সবার কাছে।

সামাজিক যোগযোগমাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে দেখা যায়, কনের সাজে এক তরুণী পরীক্ষার হলে বসা। পরনে তার লাল লেহেঙ্গা। খুব মন দিয়ে লিখে চলেছেন তিনি। আশপাশে আরো অনেকেই পরীক্ষা দিচ্ছেন।

জানা যায়, ভাইরাল ওই তরুণীর নাম শিবাঙ্গী বাগথারিয়া। বাড়ি গুজরাটে। সম্প্রতি রাজকোটের পরীক্ষাকেন্দ্রে পরীক্ষা দিতে গিয়েছিলেন তিনি। সেখানে পঞ্চম সেমিস্টারের পরীক্ষা ছিল তার।

কিন্তু কনের পোশাকে পরীক্ষার হলে কেন?

শিবাঙ্গী জানান, এবারের দিওয়ালির মৌসুমে তার বিয়ের দিনক্ষণ ঠিক হয়। কিন্তু পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার পর কার্যত মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে তরুণীর। কারণ, বিয়ের দিনই পড়েছে তার বিশ্ববিদ্যালয়ের পঞ্চম সেমিস্টারের পরীক্ষা। তাহলে উপায়?

জীবনের একটি বিশেষ দিনে পরীক্ষা থাকলেও তা বাদ দিতে পারেননি তরুণী। তাই কনের পোশাকেই পরীক্ষাকেন্দ্রে চলে যান। সাথে ছিলেন তার হবু স্বামী। পরীক্ষা শেষে হতেই রওয়ানা দেন বিয়ের অনুষ্ঠানস্থলে। এরপর বিশেষ মানুষের সাথে গাঁটছড়া বাঁধেন তিনি।

বিয়ের পোশাকে পরীক্ষা দেয়ার ওই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট হওয়া মাত্রই ভাইরাল হয়ে যায়। পোস্টে লাইক-কমেন্টের ঝড় বইতে থাকে। বিয়ের দিন বলে তিনি যে পরীক্ষায় যাওয়ার সিদ্ধান্ত বাতিল করেননি, তাতে ওই তরুণীকে সাধুবাদ জানিয়েছেন প্রায় সবাই। এখনো অনেক মেয়ে বিয়ের পর নিজের পছন্দ-অপছন্দকে গুরুত্ব দিতে ভুলে যান। শিবাঙ্গী তাদের কাছে উদাহরণ হয়ে থাকবে। এমনটাই চান অনেকে।

সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন


আরো সংবাদ


premium cement