০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬ অগ্রহায়ন ১৪২৮, ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩ হিজরি
`

নিউ ইয়র্কে স্বামীকে নিয়ে এক বেডরুমের অ্যাপার্টমেন্টে ওঠছেন জাপানি রাজকন্যা

রাজকন্যা ও তার স্বামী - ছবি : সংগৃহীত

জাপানের রাজকন্যা মাকো ও তার স্বামী নিউ ইয়র্ক সিটিতে ভাড়া করা এক বেডরুমের অ্যাপার্টমেন্টে ওঠার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। কলেজ জীবনের বন্ধুকে বিয়ে করার পর জাপানের এই রাজকন্যা তার রাজকীয় পদবী ত্যাগ করতে বাধ্য হয়েছেন।

ক্রাউন প্রিন্স ফুমিহিতো ও সম্রাট নারুহিতেরার ভাইয়ের মেয়ে ৩০ বছর বয়স্কা মাকো মঙ্গলবার সাদামাটা অনুষ্ঠানে কেই কোমুরোকে (৩০) বিয়ে করেন। কয়েক বছর ধরে বিতর্কের পর তাদের বিয়েটি সম্পন্ন হলো।

বিয়ের আনুষ্ঠানিকতার পর নবদম্পতি টোকিওর একটি কন্ডোমিনিয়ামে ওঠেন। তবে তারা এখন স্থায়ীভাবে নিউ ইয়র্ক সিটিতে পাড়ি দিতে চলেছেন বলে জাপানি একটি মিডিয়া জানিয়েছে। তবে এই দম্পতি ঠিক কোথায় বাড়ি ভাড়া করেছেন, তা জানা যায়নি।

গত জুলাই মাসে নিউ ইয়র্ক বার পরীক্ষা দেয়ার পর মাকোর স্বামী একটি আইন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করছেন।

জাপানি সূত্র জানায়, দম্পতি আনুষ্ঠানিক কোনো অনুষ্ঠান বা সংবর্ধনার আয়োজন করেনি, তারা আইনি নথিপত্রের জন্য আবেদন জমা দিয়ে বিয়ে করার কাজটি সম্পন্ন করেছেন।

তবে তারা একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। সেখানে মাকো বলেন, আমার জন্য কেই হলেন অমূল্য ব্যক্তি। আমাদের হৃদয়কে উষ্ণ রাখার জন্য আমাদের বিয়ে করাটা দরকারি ছিল।

আর তার স্বামী বলেন, ‘আমি মাকোকে ভালোবাসি। আমি একাকী বাস করি। আমি এখন যাকে ভালোবাসি, তার সাথে বাস করতে চাই।’

তিনি আরো বলেন, আমি আশা করি মাকোর সাথে আমার একটি উষ্ণ পরিবার হবে। আমি তাকে সমর্থন দিয়ে সবকিছু করব।

এই দম্পতির প্রথম সাক্ষাত হয় টোকিওর ইন্টারন্যাশনাল ক্রিস্টিয়ান ইউনিভার্সিটিতে। সেখানে ২০১৭ সালে তারা তাদের এনগেজমেন্টের কথা ঘোষণা করেন। তারা পরের বছরই বিয়ে করার পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু কোমুরোর মায়ের আর্থিক কিছু জটিলতার কারণে বিয়েটি বিলম্বিত হয়।

মাকোর শাশুড়ি তার সাবেক বাগদত্তার কাছ থেকে কিছু অর্থ পেয়েছিলেন। কিন্তু এই অর্থ উপহার ছিল না ঋণ ছিল, তা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।

প্রাসাদের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তার সম্পর্ক নিয়ে মিডিয়ায় নেতিবাচক খবর প্রকাশিত হওয়ায় তিনি মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছিলেন।

সূত্র : নিউ ইয়র্ক পোস্ট



আরো সংবাদ