১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩ আশ্বিন ১৪২৮, ১০ সফর ১৪৪৩ হিজরি
`

আফগানিস্তানে এ বছর রেকর্ড সংখ্যক বেসামরিক মানুষ হতাহত হয়েছে : জাতিসঙ্ঘ

আফগানিস্তানে এ বছর রেকর্ড সংখ্যক বেসামরিক মানুষ হতাহত হয়েছে : জাতিসঙ্ঘ -

আফগানিস্তানে ক্রমবর্ধমান সহিংসতায় এ বছরের প্রথম ভাগে রেকর্ড সংখ্যক বেসামরিক মানুষ মারা গেছে বলে জানাচ্ছে জাতিসঙ্ঘ।

জাতিসংঙ্ঘের নতুন একটি রিপোর্টে বলা হচ্ছে, ২০২১ সালে এ পর্যন্ত ১ হাজার ৬০০ এর ওপর বেসামরিক মানুষ মারা গেছে। তাদের এই রিপোর্ট বলছে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এ বছর ৪৭ শতাংশ বেশি মানুষ মারা গেছে।

জাতিসঙ্ঘ হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে মৃত্যুর সংখ্যা আরো বাড়তে পারে।

আফগান সরকারি বাহিনীর সাথে এখন তালেবান বিদ্রোহীদের লড়াই চলছে। তালেবান এখন আফগানিস্তানের বেশির ভাগ অংশ নিয়ন্ত্রণ করছে।

দেশটিতে প্রায় বিশ বছর বিদেশী সৈন্যরা তাদের মিশন চালানোর পর এখন বেশিরভাগ সৈন্যই আফগানিস্তান ত্যাগ করেছে।

আফগানিস্তানে ২০০৯ সালে জাতিসঙ্ঘ হতাহতের সংখ্যা নথিভুক্ত করতে শুরু করার পর থেকে এই বছরের মে এবং জুন মাসে হতাহতের সংখ্যা সর্বোচ্চ বেড়েছে।

জাতিসঙ্ঘে রিপোর্ট বলছে, ৬৪% বেসামরিক মানুষের হতাহতের জন্য সরকার বিরোধী বাহিনী দায়ী। সরকারি বাহিনীর হাতে হতাহতের পরিসংখ্যান ২৫% এবং ক্রসফায়ারে মারা গেছে ১১% বেসামরিক জনগণ। সব হতাহতের মধ্যে ৩২% শিশু।

দুই পক্ষের মধ্যে শান্তি আলোচনা এগোচ্ছে খুবই ধীর গতিতে।

আফগানিস্তানের জন্য জাতিসঙ্ঘের বিশেষ দূত ডেব্রা লিওন্স দু পক্ষকেই এই সংঘাতের মর্মান্তিক পরিণাম ও উর্ধ্বমুখী প্রাণহানির বিষয়টি বিবেচনায় রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

এই প্রতিবেদন একটা স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়েছে যে, এ বছর আফগান বেসামরিক মানুষ নজিরবিহীন সংখ্যায় প্রাণ হারাবে এবং গুরুতর আহত হবে যদি ক্রমবর্ধমান এই সহিংসতায় রাশ টানা না হয়, জাতিসঙ্ঘের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মন্তব্য করেছেন ডেব্রা লিওন্স।

আফগানিস্তানে ২০০১ সালের মার্কিন নেতৃত্বাধীন অভিযান তালেবানকে ক্ষমতা থেকে হঠাতে পারেনি।

এ বছর আমেরিকান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ঘোষণা করেছেন আফগানিস্তান থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব আমেরিকান সৈন্য প্রত্যাহার করে নেয়া হবে।

শনিবার আমেরিকার শীর্ষ সেনা অধিনায়ক জেনারেল কেনেথ ম্যকেঞ্জি বলেছেন আফগান সৈন্যদের সহায়তা করতে আমেরিকান বাহিনী বিমান হামলা অব্যাহত রাখবে। তিনি বলেন তালেবানের বিজয় অবশ্যম্ভাবী নয়।

তবে আমেরিকা ৩১ অগাস্ট দেশটিতে তাদের সামরিক অভিযান গুটিয়ে নেবার পরেও তারা এই বিমান হামলা চালিয়ে যাবে কিনা জেনারেল ম্যাকেঞ্জি তা স্পষ্ট করে বলেননি।

তালেবান কান্দাহার শহরে তাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখলে গত সপ্তাহে আমেরিকান বাহিনী তালেবানের ওপর বিমান হামলা চালিয়েছে।

এদিকে তালেবানের শহর দখলের অভিযান প্রতিহত করার চেষ্টায় আফগান কর্মকর্তারা শনিবার দেশের প্রায় সর্বত্র এক মাসব্যাপী রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে।
সূত্র : বিবিসি



আরো সংবাদ


কাবুলে বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্রে রকেট হামলা (১৬০০২)তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অস্ত্র চাইলেন মাসুদ (১৫৭০৩)মালয়েশিয়ায় স্বদেশীকে অপহরণের দায়ে মৃত্যুদণ্ডের মুখোমুখি ৪ বাংলাদেশী (১২৮৭১)মার্কিন সফরে মোদির ঘুম কেড়ে নেয়ার হুঁশিয়ারি শিখ গ্রুপের (১১৩৬১)নতুন ঘোষণা আফগান সেনাপ্রধানের (৯৮৫২)বিমানে হিজাব পরিহিতা দেখেই চিৎকার ‘মুসলিম সন্ত্রাসী’ (৭৩২১)ভারত সীমান্ত থেকে চীনের সেনা সরিয়ে নিতে জয়শঙ্করের হুঁশিয়ারি (৬০৯৮)যাত্রীবেশে উঠে গলা কেটে মোটরসাইকেল ছিনতাই (৬০১৫)রিকসা চালকের তথ্যে নিখোঁজ তিন ছাত্রী উদ্ধার (৫৯১৯)ইসরাইলি ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনতে চায় সৌদি আরব (৫৬৯১)