২৪ জুলাই ২০২১
`

স্ত্রী হাতির মৃতদেহ আগলে ছিল হাতির দল, অতঃপর...

স্ত্রী হাতির মৃতদেহ আগলে ছিল হাতির দল - ছবি সংগৃহীত

বিরল ঘটনার সাক্ষী থাকলো ভারতের বৈকণ্ঠপুর বনবিভাগের কর্মীরা। ১০ দিন পর হাতির একটি দলকে সরিয়ে দিয়ে তাদেরই একটি হাতির মৃতদেহ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের কাজ শুরু করেছে বন বিভাগ।

জলপাইগুড়ির বৈকণ্ঠপুর জঙ্গলের পাশে তিস্তা নদীর গৌরিকোন এলাকায় গত ২ তারিখ থেকে সেখানকার ভুট্টাক্ষেতে আক্রম করেছিল ৪০ থেকে ৪৫টি হাতির একটি দল।

গতকাল শুক্রবার পর্যন্ত সেখান থেকে নড়ছিল না হাতিগুলো। কিন্তু কোনো এক জায়গায় বিশেষ কারণ ছাড়া বেশিদিন ধরে হাতির দল দাঁড়ায় না। তবে গৌরিকোনে কেন হাতির দলটি একজায়গায় এতদিন ছিলো তা নিয়ে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের মাথায় প্রশ্নের জন্ম দেন। তার এর কারণ জানতে চেষ্টা চালায়।

হাতির দলকে ড্রাইভ করে সরিয়ে দিতেই বেরিয়ে আসে ১০ থেকে ১১ বছর বয়সী স্ত্রী হাতি শাবকের মৃতদেহ।

আনুমানিক তিন থেকে চার দিন আগে মৃত্যু হয়েছে হাতিটির। এক জঙ্গল থেকে আরেক জঙ্গলে যাবার পথে এই মৃত্যু মেনে নিতে না পেরে মৃত হাতিটির দেহ আগলে রেখেছিল পুরো দলটি। প্রাথমিক ভাবে এটাই মনে করছেন বন কর্মকর্তারা।

অপরদিকে হাতি মৃত্যুর খবর প্রকাশ হতেই শনিবার সকাল থেকে সেখানে ভিড় জমান এলাকাবাসী। ট্রাক্টর নিয়ে আসেন বন বিভাগের কর্মীরা।

শুক্রবার সকালের দিকে প্রচন্ড বৃষ্টি থাকায় ব্যাহত হয় হাতির মৃতদেহের ময়নাতদন্তের কাজ। বৃষ্টি কমলে হাতিটির মৃতদেহের দিকে নৌকায় চেপে এগিয়ে যান বন বিভাগের কর্মীরা।

স্থানীয় বাসিন্দা শিবু দাস ও তপন পালদের দাবি, খাবার থেকে বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে হাতিটির। তবে স্থানীয়দের এমন দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন বন বিভাগের কর্মকর্তা এ ডি এফ ও মঞ্জুলা তিরকে।

তিনি বলেন, একসাথে অনেকগুলো হাতি ছিলো তবে অন্যহাতিরা মারা গেলোনা কেনো? তিনি বলেন, গত কয়েক দিন প্রচণ্ড গরম ছিল। গরমেও মৃত্যু হতে পারে হাতিটির। তবে মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে ময়নাতদন্তের পর।

এ ঘটনায় বৈকণ্ঠপুর বন বিভাগের বন কর্মকর্তা হরি কৃষ্ণান টেলিফোনে জানান, তিস্তার চড়ে একটি হাতির মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। আজ ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। তবে এতদিন ধরে হাতিগুলো এক জায়গায় থেকে মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছিল হাতিগুলো।

বন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হাতিদের বিভিন্ন অনুভূতি নিয়ে অনেক ঘটনা ঘটে থাকে। যার সবটা মানুষের সামনে আসে না। মৃতদেহ আগলে রাখার ঘটনা আগেও ঘটেছে। দেখা গেছে মৃতদেহ থেকে খানিকটা দূরে হাতির দল অপেক্ষা করে। যখন মৃতদেহ সৎকার হয় তারা নিজে থেকেই ওই এলাকা ছেড়ে চলে যায়।

সূত্র : আজকাল



আরো সংবাদ