১৪ জুলাই ২০২০

চীন-ভারত যুদ্ধে সামরিক শক্তিতে কে কত এগিয়ে

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং সেনাবাহিনীকে বলেছেন যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিবেশী ভারতও প্রস্তুত। যুদ্ধ কখনো কাম্য নয়৷ তবু দেখে নেয়া যাক সামরিক শক্তিতে চীন আর ভারতের বর্তমান অবস্থা।

পিডাব্লিউআর ব়্যাঙ্কিং
সামরিক শক্তির এই ব়্যাঙ্কিংয়ে ভারতের চেয়ে এক ধাপ এগিয়ে আছে চীন। যুক্তরাষ্ট্র আর রাশিয়ার ঠিক পরে, অর্থাৎ তিন নাম্বারে আছে চীন আর ভারত আছে চার নাম্বারে।

সক্রিয় সেনাসদস্য
১৩৮টি দেশের মধ্যে পিআরডাব্লিউ ইনডেক্সে তৃতীয় স্থানে থাকা চীনের মোট ২১ লাখ ২৩ হাজার সেনাসদস্য রয়েছে, ভারতের রয়েছে ১৪ লাখ ৪৪ হাজার সেনাসদস্য। তবে রিজার্ভ সৈন্যর সংখ্যায় ভারত এগিয়ে। চীনের পাঁচ লাখ ১০ হাজারের বিপরীতে তাদের রয়েছে ২১ লাখ রিজার্ভ সৈন্য।

প্রতিরক্ষা বাজেট
প্রতিরক্ষা খাতে চীনের বাজেট ২ হাজার ৩৭০ কোটি ডলারের এবং ভারতের ৬১০ কোটি ডলারের।

এয়ারক্রাফট
এখানেও চীন এগিয়ে। চীনের ৩ হাজার ২১০টির বিপরীতে ভারতের রয়েছে ২ হাজার ১২৩টি এয়ারক্রাফট৷

যুদ্ধজাহাজ
চীনের ৭৭৭টি আর ভারতের রয়েছে ২৮৫টি যুদ্ধজাহাজ।

যুদ্ধবিমান
চীনের যুদ্ধবিমান ভারতের দ্বিগুণেরও বেশি। চীনের এক হাজার ২৩২টি আর ভারতের ৫৩৮টি।

হেলিকপ্টার
চীনের আছে ৯১১টি হেলিকপ্টার আর ভারতের ৭২২টি।

ট্যাঙ্ক
ভারতের ট্যাঙ্ক চীনের চেয়ে অনেক বেশি। চীনের আছে ৩ হাজার ৫০০টি ট্যাঙ্ক আর ভারতের ৪ হাজার ২৯২টি।

সাঁজোয়া যান
চীনের সাঁজোয়া যানবাহনের সংখ্যা ৩৩ হাজার, ভারতের আট হাজার ৬৮৬।

স্বয়ংক্রিয় আর্টিলারি
এখানে দু দেশের তুলনাই হয় না। চীনের আছে ৩ হাজার ৮০০, ভারতের মাত্র ২৩৫।

ফিল্ড আর্টিলারি
এখানে ভারত কিছুটা এগিয়ে। চীনের ৩ হাজার ৮০০-র বিপরীতে তাদের রয়েছে ৪ হাজার ৬০টি ফিল্ড আর্টিলারি।

রকেট প্রজেক্টর
চীনের ২ হাজার ৬৫০, ভারতের ২৬৬। সুতরাং এখানে চীন প্রায় দশগুণ এগিয়ে।

সাবমেরিন
সাবমেরিনের সংখ্যার দিক থেকেও ভারত অনেক পিছিয়ে। চীনের ৭৪টির বিপরীতে ভারতের আছে ১৬টি সাবমেরিন।

বিমানবাহী জাহাজ
চীনের ২টি, ভারতের ১টি।

ডেস্ট্রয়ার
চীনের ৩৬টি, অন্যদিকে ভারতের ১০টি।

ফ্রিগেট
চীনের ৫২, ভারতের তার ঠিক চার ভাগের এক ভাগ, অর্থাৎ ১৩টি।

রণতরি
রণতরি চীনের ৫০টি, ভারতের ১৯টি।

উপকূলীয় টহল
চীনের ২২০, ভারতের ১৩৯।

বিমানবন্দর
চীনের আছে মোট ৫০৭টি বিমানবন্দর আর ভারতের ৩৪৭টি।

নৌবন্দর এবং টার্মিনাল
বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশ চীন প্রায় সব জায়গার মতো এখানেও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জনসংখ্যার দেশের চেয়ে এগিয়ে। চীনের ২২টির বিপরীতে তাদের রয়েছে মোট ১৩টি বন্দর ও টার্মিনাল। ডয়চে ভেলে


আরো সংবাদ