০৬ এপ্রিল ২০২০

তাদেরকে বিশ্বাসঘাতক বললেন আনোয়ার ইব্রাহিম

মাহাথির মোহাম্মদ, আজিজা আনোয়ার ও আনোয়ার ইব্রাহিম -  ফাইল ছবি

প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করার জন্য মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের দল এবং তার নিজ দল পিপলস জাস্টিজ পার্টির (পিকেআর) দলত্যাগকারীদের 'বিশ্বাসঘাতক' হিসেবে অভিহিত করেছেন আনোয়ার ইব্রাহিম। নতুন সরকার গঠনের লক্ষ্যে আনোয়ারের দল থেকে বেশ কয়েকজন সদস্য পদত্যাগ করেছে। তারা ইউনাইটেড ন্যাশনাল অর্গ্যানাইজেশনের (আমনো) সাথে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। আমনোর নেতৃত্বাধীন বারিসান ন্যাশনাল কোয়ালিশন ৬০ বছরেরও বেশি সময় মালয়েশিয়া শাসন করেছে, ২০১৮ সালে তাদের হারিয়ে মাহাথির-আনোয়ারনেতৃত্বাধীন জোট ক্ষমতায় আসে।

রয়টার্স জানিয়েছে, মাহাথিরের পিপিবিএম (মালয়েশিয়ান ইউনাইটেড ইনডিজেনাস পার্টি), আনোয়ারের পিকেআরের কিছু কর্মকর্তা আমনো ও ইসলামি দল পাসের সাথে রোববার বৈঠক করে নতুন সরকার গঠনের জন্য।
নতুন সরকার গঠন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে বৈঠকে উপস্থিত পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহ আলজাজিরাকে বলেন, এ নিয়ে আলোচনা করার দায়িত্ব তাকে দেয়া হয়নি।
মাহাথিরের দল পিপিবিএমও ক্ষমতাসীন জোট পাকাতান হারাপান ত্যাগ করছে।

উল্লেখ্য, মাহাথির ও আনোয়ারের মধ্যে দ্বন্দ্ব দীর্ঘ দিনের। তারা ২০১৮ সালের নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধ হয়ে বিএন জোটকে হারিয়েছিলেন। ওই সময় তার সাবেক প্রতিদ্বন্দ্বির কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করার কথা কয়েকবার বলেছিলেন।
কিন্তু আনোয়ারের কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের কোনো সময়সূচি এখন পর্যন্ত ঘোষণা না করায় পাকাতান হারাপান জোটে উত্তেজনা দেখা দেয়।

দলে দ্বন্দ্বের প্রেক্ষাপটে জোটটি সাম্প্রতিক ৫টি উপনির্বাচনে পরাজিত হয়।
আনোয়ারকে ছেড়ে চলে গেছেন অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আজমিন আলীও। সোমবার আনোয়ারের দল তাকে বহিষ্কারের কথা ঘোষণা করে। আর আজমিনও বলেন, তিনি ওই দলে আর নেই।

মাহাথির মোহাম্মদের প্রথম আমলে (১৯৮১ থেকে ২০০৩ পর্যন্ত) আনোয়ার ইব্রাহিম প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু আর্থিক সঙ্কটের মুখে ১৯৯৮ সালে আনোয়ারকে বহিষ্কার করেন মাহাথির।
এর পরপরই আনোয়ারের বিরুদ্ধে পায়ুকামের অভিযোগ আনেন মাহাথির।

এই অভিযোগে কারাগারেও ছিলেন আনোয়ার ইব্রাহিম। আর মাহাথির সরে যাওয়ার পর দেশটি নানা সমস্যার মুখে পড়েছিল। বিশেষ করে নাজিব সরকারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির ব্যাপক অভিযোগ ছিল। এই প্রেক্ষাপটে জোট গড়েছিলেন মাহাথির মোহাম্মদ ও আনোয়ার ইব্রাহিম। নির্বাচনে জয়ী হয়ে আবার ক্ষমতায় আসেন মাহাথির মোহাম্মদ। আনোর ইব্রাহিমের স্ত্রী ড. ওয়ান আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল উপপ্রধানমন্ত্রী হন। কথা ছিল, দুই বছর পর আনোয়ারের কাছে ক্ষমতা দিয়ে অবসরে চলে যাবেন মাহাথির।

রাজার সাথে সাক্ষাত করছেন আনোয়ার ও আজিজা
মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে এখন ঝড়ো হাওয়া বইছে। প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ নতুন সরকার গঠনের যে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন, তা সফল হবে কিনা সে প্রশ্নও দেখা দিয়েছে।

দৃশ্যত আনোয়ার ইব্রাহিমকে আবার ক্ষমতার কক্ষপথ থেকে সরিয়ে দেয়ার জন্যই মাহাথির মোহাম্মদ জোট ভেঙে পদত্যাগ করেছেন বলে রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছেন। তবে আনোয়ার ইব্রাহিমও ছেড়ে দেবেন না বলে মনে করা হচ্ছে।

এক সপ্তাহ ধরে মালয়েশিয়ার রাজনীতিতে যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছিল, রোববার তা তীব্রতা পেয়েছে। আজ সোমবার একের পর এক ঘটনা সেটিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে।

উপপ্রধানমন্ত্রী ও আনোয়ার ইব্রাহিমের স্ত্রী ড. ওয়ান আজিজাহ ওয়ান ইসমাইল ও তার স্বামী পিকেআর সভাপতি আনোয়ার ইব্রাহিম রাজা আবদুল্লাহ রিয়াতুদ্দিন আল মোস্তফা বিল্লাহর সাথে সাক্ষাত করতে যাচ্ছেন।
তাছাড়া নতুন জোট গড়ার তৎপরতাও লক্ষ্য করা যাচ্ছে। মাহাথির মোহাম্মদ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের মতো সদস্য যোগাড় করতে পারবেন কিনা সে প্রশ্নও উত্থাপিত হচ্ছে।


মাহাথিরের পদত্যাগ
মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ সোমবার তার পদত্যাগের কথা ঘোষণা করেছেন। নতুন সরকার গঠনের পথ পরিষ্কার করার জন্য তিনি এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।
রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, মাহাথিরের দল প্রবুমি বেরসাতু ক্ষমতাসীন সরকারি জোট পাকাতান হারাপান ত্যাগ করেছে।
এক সপ্তাহ ধরে আনোয়ার ইব্রাহিমের সাথে মাহাথিরের দ্বন্দ্বের জের ধরে মাহাথির পদত্যাগ করলেন। রোববার রাতে বলা হয় যে, মাহাথিরের দল নতুন সরকার গঠন করছে। এতে তার সম্ভাব্য উত্তরসূরী আনোয়ার ইব্রাহিমকে বাদ দেয়া হবে।

মাহাথির (৯৪) ও আনোয়ারে (৭২) মধ্যে দীর্ঘ দিন একটি সমঝোতার মাধ্যমে নির্বাচনে জয়ী হয়েছিলেন। কথা ছিল মাহাথির অবসর গ্রহণর পর আনোয়ার ইব্রাহিম তার উত্তরসূরি হবেন। কিন্তু এখন ওই চুক্তি থেকে বের হয়ে এসেছেন মাহাথির।
সূত্র : আল জাজিরা ও রয়টার্স ও অন্যান্য সূত্র


আরো সংবাদ