০৯ আগস্ট ২০২০

করোনার চিকিৎসায় ‘পোস্টার বয়’ ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

জায়ের বলসোনারো
জায়ের বলসোনারো - ছবি : সংগৃহীত
24tkt

করোনাভাইরাসের চিকিৎসায় হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনই অব্যর্থ ওষুধ। ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়ের বলসোনারো নিজে ওই ওষুধের ফল পেয়েছেন। তাই একেবারে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের প্রচার শুরু করে দিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান প্রেসিডেন্ট। আর তার এই অতি উদ্যোগ নিয়ে অনেকেই মজা করেছেন।
বলসোনারোকে করোনা চিকিৎসার ‘পোস্টার বয়’ হিসেবে ব্যাখ্যা করা শুরু হয়েছে।

চলতি সপ্তাহেই বলসোনারো জানিয়েছিলেন, তিনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। এবং হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের মাধ্যমে চিকিৎসায় তিনি সুস্থ আছেন। তার সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে ওই ওষুধ নিয়ে বিস্তর পোস্ট। কখনো তিনি ওষুধ খাচ্ছেন সেই ছবি। আবার কোথাও লিখেছেন, এই আমি তিন নম্বর ডোজ খেলাম। তিনি স্পষ্ট বলেন, ‘হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনে আমার বিশ্বাস আছে। আর আপনাদের?’ কার্যত এইভাবেই তিনি করোনা আক্রান্ত রোগীদের ওই ওষুধ নেওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন।

বলসোনারোর এই উদ্যোগ নিয়েই বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে। ব্রিটেন এবং আমেরিকার বেশ কয়েকটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে প্রাথমিকভাবে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন চিকিৎসায় কাজ করলেও এর নানা ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে, যা প্রাণঘাতীও হতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)’ও হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার বিষয় উল্লেখ করে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, এটি কোনওভাবেই করোনার ওষুধ হতে পারে না। করোনা প্রতিরোধ করতে এই ওষুধ নিয়ে প্রথমদিকে সমীক্ষা শুরু হলেও পরবর্তীকালে সেগুলো বাতিল করে দেয়া হয়। কাজেই মানুষের স্বার্থে হু যেখানে হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন নিয়ে মানুষ সতর্ক করেছে, সেখানে বলসোনারোর ওই প্রচার নিতান্ত দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ বলে অনেকে মনে করছেন।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় আমেরিকায় ফের রেকর্ড সংক্রমণ বেড়েছে। বুধবার সে দেশে ৫৯ হাজার নয়া আক্রান্তের হদিশ মিলেছে। এই প্রথম বিশ্বের কোনও দেশে একদিনে এত সংখ্যায় সংক্রমণ ছড়াল। এই পরিস্থিতির মধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের এক গাফিলতির খবর ফের সামনে এল। ওকলাহোমার স্বাস্থ্যবিভাগের এক কর্মকর্তা দাবি করেছেন, গত ২০ জুন ট্রাম্পের প্রচারসভার কারণে এলাকায় এক ধাক্কায় সংক্রমণ অনেকটাই বেড়ে গিয়ে থাকতে পারে। তবে দেশে সংক্রমণ যতই রেকর্ড গড়ুক না কেন, ট্রাম্প কোনওভাবেই পিছু হটতে রাজি নন। এখনও যে স্কুলগুলো খুলছে না, তাদের সরকারি সাহায্য বন্ধ করে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন ট্রাম্প। এছাড়া সংক্রমণ রুখতে ফের বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা জারি করায় সরকারি স্বাস্থ্য আধিকারিকদেরও তিনি ভর্ৎসনা করেন।

বিশ্বের বেশিরভাগ দেশেই করোনা পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হয়নি। পাকিস্তানে বৃহস্পতিবার করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ২ লক্ষ ৪০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। অবশ্য ইউরোপের মধ্যে জার্মানিতে সংক্রমণ কিছুটা কমেছে বলে খবর।
সূত্র : বর্তমান


আরো সংবাদ