০৬ মে ২০২১
`

অতিরিক্ত দামে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রি রোধে অভিযান

-

কৃত্রিম সঙ্কট সৃষ্টি করে উচ্চমূল্যে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার (হাত ধোয়ার জীবাণুনাশক) বিক্রির দায়ে পুরান ঢাকার মিটফোর্ডের একটি ওষুধের মার্কেটে ৮ প্রতিষ্ঠানকে পৌনে ১৭ লাখ টাকা জরিমানা করেছে র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। পাশাপাশি এক ব্যবসায়ীকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। গত মঙ্গলবার দুপুর থেকে রাত পর্যন্ত সুরেশ্বরী মেডিসিন প্লাজায় এ অভিযান চালানো হয়। র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম ভ্রাম্যমাণ আদালতের নেতৃত্ব দেন।
র্যাব জানায়, মিটফোর্ডের আকমল খান রোডে সুরেশ্বরী মেডিসিন প্লাজায় গোয়েন্দা নজরদারি চালানোর পর ক্রেতা সেজে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার কিনতে চাওয়া হয়। শুরুর দিকে ব্যবসায়ীরা তা না থাকার তথ্য দেয়। পরে উচ্চমূল্যে তা কেনা হয়। এরপর দুপুর ১২টার দিকে ওই মার্কেটে অভিযান শুরু হয়।অভিযানে নেতৃত্ব দেয়া র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, অবৈধ মজুদ ও উচ্চ মূল্যে মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিক্রির অপরাধে তপু অ্যান্ড ব্রাদার্সকে দুই লাখ টাকা, দেওয়ান এন্টারপ্রাইজের মালিককে এক বছরের জেল ও ৬ লাখ টাকা জরিমানা এবং আল ওয়ারী সার্জিকেলকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। তিনি জানান, একই অভিযানে লোকনাথ ড্রাগ হাউজকে ৭৫ হাজার টাকা, মা মেডিসিন হাউজকে দেড় লাখ টাকা, ওয়েব মেডিসিনকে ৩ লাখ টাকা, আনোয়ারা সার্জিকেলকে ২ লাখ টাকা এবং সার্জি গ্লো হাউজকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।
সারওয়ার আলম বলেন, দেশের মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার খবরে এসব অসাধু ব্যবসায়ীরা মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের কৃত্রিম সঙ্কট তৈরি করেছিল। এরপর এসব পণ্য উচ্চ মূলে বিক্রি করে আসছিল। তাদের মতো আরো অনেকে রয়েছে। সব অসাধু ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযান চলমান থাকবে।
দারাজকে দুই লাখ টাকা জরিমানা
অতিরিক্ত দামে মাস্ক বিক্রি করায় অনলাইন শপিং সাইট দারাজ ডটকমকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। গত রোববার রাতে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে দারাজের ওয়্যার হাউজে অভিযান শেষে র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম তাদের জরিমানা করেন।
অভিযান শেষে র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, দারাজে বিভিন্ন বিক্রেতা বিভিন্ন ধরনের বিজ্ঞাপন দেয়, তারাই মাস্কের অতিরিক্ত দাম নেয়। কিন্তু দারাজ এগুলো নজরদারি করেনি। তাদের সতর্ক করা হয়েছে। দাম সহনীয় পর্যায়ে রাখতে ভবিষ্যতে তারা নজরদারি করবে।
এর আগে অভিযানে দেখা যায়, দারাজে ৫০ পিসের সার্জিক্যাল মাস্কের বক্স বিক্রি হচ্ছে ২২৫৫ টাকায়। অথচ পাইকারি বাজারে এই বক্সের দাম সর্বোচ্চ ৫০ টাকা।
অভিযানে ম্যাজিস্ট্রেট দেখতে পান, দারাজে অ্যান্টি পলিউশন সেফটি মাস্ক তিন পিস ৪৭০ টাকায়, অ্যান্টি ডাস্ট মাস্ক পাঁচ পিস ১২৫৫ টাকা, সাধারণ সার্জিক্যাল মাস্ক প্রতিটি ৪২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
অভিযানের বিষয়ে ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, করোনা মোকাবেলায় সরকার নানা ধরনের উদ্যোগ নিয়েছে। এর অন্যতম হচ্ছে সবার জন্য মাস্কের মূল্য নির্ধারণ। তবে দারাজের ওয়েবসাইটে সরকার নির্ধারিত দাম থেকে অতিরিক্ত দামে মাস্ক বিক্রির বিজ্ঞাপন দেয়া হয়েছে। তাই এই অভিযান চলছে।



আরো সংবাদ


দূরপাল্লার বাসের অনুমতি না দিলে সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে (১০১১৮)আসামে মাওলানা আজমলের চমক (৮৭৯৯)গৃহকর্মীকে টানা ১ বছর ধর্ষণ : অভিযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্র গ্রেফতার (৮৫২৪)বন্ধ হতে পারে বেসরকারি কলেজের অনার্স-মাস্টার্স (৮৪৫৩)বৃহস্পতিবার থেকে চলবে বাস, মানতে হবে যেসব নির্দেশনা (৬১৪৩)প্রথমবারের মতো হাজরে আসওয়াদ পাথরের ছবি উন্মোচন করল সৌদি (৫৮৫৪)করোনায় বিপর্যস্ত মোদীর আসন বারাণসী, ক্ষোভে ফুটছে মানুষ (৪৮৫৮)১৫ গুণ বেশি ভয়ঙ্কর! আতঙ্ক ছড়াচ্ছে অন্ধ্রের নয়া করোনা স্ট্রেন (৪৬৫৫)রামমন্দিরের শহরে পঞ্চায়েত ভোটে ধরাশায়ী বিজেপি, খারাপ ফল বারাণসীতেও (৪৬০৯)কেবল টুইটার নয়, এ বারে কাজের সুযোগ হারালেন কঙ্গনা (৪৫২২)