২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

নকল ও ভেজাল প্রসাধন সামগ্রী জব্দ

-

পুরান ঢাকার চকবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্রায় দুই কোটি টাকার নকল ও ভেজাল প্রসাধন সামগ্রী জব্দ করেছেন র্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। বুধবার রাতে এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় জড়িত এক ব্যক্তিকে দুই বছরের কারাদণ্ড ও পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি নকল-ভেজাল প্রসাধনীর ১০ টি গুদাম সিলগালা করে দেয় র্যাব।
র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, অসাধু ব্যবসায়ীরা দীর্ঘ দিন ধরে দেশী-বিদেশী ব্র্যান্ডের মোড়ক ব্যবহার করে নকল ও ভেজাল প্রসাধন সামগ্রী বাজারজাত করে আসছিল। গোয়েন্দা তথ্যে বিষয়টি জানতে পেরে অনুসন্ধান চালানো হয়। এরপর বুধবার রাত পৌনে ৮টার দিকে শুরু হয় অভিযান। রাত ২টা পর্যন্ত চলা অভিযানে বিপুল পরিমাণ নকল পণ্য জব্দ করা হয়েছে।
র্যাব সূত্র জানায়, র্যাব-১০ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান ও জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার রেজাউল করিমের নেতৃত্বে চকবাজারের দেবী দাস ঘাট গলির কয়েকটি গুদামে অভিযান চালানো হয়। এ সময় অনুমোদনহীন, নকল, ক্ষতিকর ও নিম্নমানের প্রসাধন সামগ্রী তৈরি, মজুদ ও বাজারজাত করায় হারুন নামে এক ব্যক্তিকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন র্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট। তাকে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয়। এছাড়া আদালতের নির্দেশে জব্দ প্রায় দুই কোটি টাকার নকল ও ভেজাল প্রসাধনী ধ্বংস করা হয়। পরে দণ্ডিত ব্যক্তিকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। র্যাব কর্মকর্তারা জানান, অভিযানে দেখা যায়, নানা রকম রাসায়নিক উপাদান মিশিয়ে তৈরি করা হচ্ছে নকল-ভেজাল প্রসাধন। এর মধ্যে বহুল ব্যবহৃত হেয়ার রিমুভাল ‘ভিট’ ও ‘গোরি’ ক্রিমও রয়েছে। এসব পণ্য কিনে মানুষ আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও প্রতারিত হচ্ছেন। পাশাপাশি এসব ব্যবহারের ফলে ত্বকের নানা রকম রোগ দেখা দেয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

 


আরো সংবাদ