১৯ এপ্রিল ২০২১
`

গাছবন্ধু : জহির টিয়া

-

‘আপা, আপনার কি মনে দয়ামায়া নাই? আমাগো দিকে একটুও লক্ষ রাইখেন না ক্যান? বড় আপা বাড়িতে এলে আমাগো কত আদর-যতœ করেন। বড় আপা অনেক ভালা মানুষ। আর আপনে...।
পাশ দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিল নাজিবাহ। তাকে উদ্দেশ্য করে মাথা দুলিয়ে দুলিয়ে কথাগুলো বলল গাঁদাফুলের গাছটি। তার কথায় সমর্থন জানাল আঙিনার অন্যান্য ফুলের গাছও। কথাগুলো শুনে থমকে দাঁড়াল নাজিবাহ। সে রাগান্বিত কণ্ঠে বললÑ কী আমি? ভালো নই তাই তো! আচ্ছা, তোদের বড় আপা অনেক ভালা মানুষ তো, তাকেই বলিস যা। আমি একটুও দেখাশোনা করতে পারব না। বলেই হন হন করে ছোটে চলে গেলে বাড়ির বাইরে। তার খেলার সাথীদের সাথে খেলতে। নাজিবাহ এবার সপ্তম শ্রেণীতে পড়ে। তার বড় বোন নাবিলাহ এবার এইচএসসি পরীক্ষার্থী। সে রাজশাহী সরকারি মহিলা কলেজে পড়ে। গত মাসে সে কিছু গাঁদাফুলের চারা নিয়ে এসে লাগিয়েছে বাড়ির আঙিনায়। সেখানে আরো অন্যান্য ফুলের গাছ রয়েছে।
ঠিক সন্ধ্যার সময় যখন নাজিবাহ খেলা শেষে বাড়িতে প্রবেশ করল। তখন ফুলের গাছটি আবারো বললÑ ‘আপা, অনেক রাগ হইছো আমাগো ওপর? আসলে বড় আপা যাওয়ার পর কেউ এক ফোঁটা জল দেয়নি আমাগো গোড়ায়। আমাগোও তো জীবন আছে, তাই না? আপনে কি জানেন না? পানির অপর নাম জীবন। আবার সার, কীটনাশকও দিচ্ছে না। কোথা হতে উড়ে এসে পোকামাকড়ে আমাগো ফুলগুলো কেটে দিচ্ছে। উফ কী যন্ত্রণা!
এতগুলো কথা বলল তবুও নাজিবাহ কোনো উত্তর করল না। কয়েকদিন পর নাবিলাহ শহর থেকে গ্রামের বাড়িতে এলো। ফুলের গাছগুলো তাদের দুঃখ-দুর্দশার কথাগুলো বর্ণনা করল নাবিলার কাছে। নাবিলাহ, নাজিবাকে ডেকে বুঝাতে লাগলÑ দেখো নাজিবাহ, এই ফুলগাছেরও জীবন আছে। আমাদের জীবনে যেমন সুখ-দুঃখ, হাসি-কান্না আছে। তাদের জীবনেও তেমন আছে। কিন্তু আমরা তা বুঝতে পারি না। আর তুমি কি জানো না? গাছ আমাদের পরম বন্ধু। গাছ না থাকলে আমরা অর্থাৎ প্রাণীকুল এক মুহূর্তও বাঁচব না। কারণ, গাছ আমাদের অক্সিজেন দেয়। যা আমরা প্রতি সেকেন্ডে নিঃশ্বাসের সাহায্যে গ্রহণ করছি। আর আমরা যা ছাড়ছি তা কার্বন-ডাই-অক্সাইড, তারা তা গ্রহণ করছে। তারা আমাদের উত্তপ্ত কার্বন-ডাই-অক্সাইড গ্রহণ না করলে পৃথিবীটা উত্তপ্ত হয়ে যেত। তখন অসহ্য গরমে আমরা হাঁসফাঁস করতাম। সুস্থ সুন্দর জীবন পেতে গাছের ওপর আমরা সবাই নির্ভরশীল।
এবার নাজিবাহ তার ভুলগুলো বুঝতে পারল। আর তার বড় বোন নাবিলার কাছে ক্ষমা চাইল। গাছগুলোর কাছেও ক্ষমা চেয়ে বললÑ আসলে আমি তো এতগুলো জানি না। আজ থেকে তোমাদের আমি নিজ হাতে যতœ নেব। তোমাদের যখন যা দরকার তাই দেবো। আজ থেকে আমরা বন্ধু, গাছবন্ধু।হ

 



আরো সংবাদ