১৩ মে ২০২১
`

সড়ক দুর্ঘটনায় টাঙ্গাইলসহ বিভিন্ন স্থানে নিহত ৮

সড়ক দুর্ঘটনায় টাঙ্গাইলসহ বিভিন্ন স্থানে নিহত ৮ - ফাইল ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় টাঙ্গাইলে চারজনসহ বিভিন্ন স্থানে আটজন নিহত হয়েছেন। গুরুতর আহত হয়েছেন আরো একাধিক ব্যক্তি। টাঙ্গাইল ছাড়াও ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ ও ভোলায় নিহতদের মধ্যে শিক্ষার্থী, শ্রমিক ও মোটরসাইকেল আরোহী রয়েছেন।

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা জানান, টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাককে পেছন থেকে অপর একটি ট্রাকের ধাক্কায় চার শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরো একজন। শুক্রবার বিকেলে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের উপজেলার চরভাবলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লকডাউনের কারণে পরিবহন না পেয়ে বিকল্পভাবে ওই তিন শ্রমিক বাড়ি যাওয়ার জন্য ট্রাকে করে উত্তরবঙ্গে যাচ্ছিলেন। পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বঙ্গবন্ধু সেতুপূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শফিকুল ইসলাম বলেন, দু’টি ট্রাকই উত্তরবঙ্গের দিকে যাচ্ছিল। তিনি বলেন, হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। তবে তারা শ্রমিক ছিলেন। এ ঘটনায় একটি ট্রাক জব্দ করা হয়েছে। আরেকটি ট্রাকের খোঁজ মেলেনি।

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) সংবাদদাতা জানান, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে সড়ক দুর্ঘটনায় দুই কিশোর নিহত হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কের চরহোসেনপুর এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্র জানায়, উপজেলার সদর ইউনিয়নের চরহোসেনপুর এলাকায় ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ সড়কে দুই মোটরসাইকেল আরোহীকে অজ্ঞাত গাড়ি ধাক্কা দিলে তারা গুরুতর আহত হন। পরে তাদের উদ্ধার করে জাকিরুল (১৫) ও শাকিলকে (২৬) উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যালে পাঠান চিকিৎসকরা। ময়মনসিংহ মেডিক্যালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শাকিল মারা গেলে জাকিরুলের ও অবস্থার অবনতি হলে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারও মৃত্যু হয়। শাকিল বড়হিত ইউনিয়নের পোড়াহাতা গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। জাকিরুল জাটিয়া ইউনিয়নের ফানুর গ্রামের আবুর কাশেমের ছেলে।

ভোলা সংবাদদাতা জানান, ভোলায় কর্মস্থল থেকে ইফতার করার জন্য বাড়ি ফেরার পথে ট্রাক চাপায় নূর উদ্দিন (৩৮) নামে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। তিনি ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের তিন নম্বর ওয়ার্ডের চরকালি গ্রামের ইউনুস মিয়া ছেলে। শুক্রবার দুপুরে ভোলার পুলিশ লাইন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় পুলিশ ট্রাক ও ট্রাকের ড্রাইভার জাহাঙ্গীর হোসেনকে আটক করেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুপুরের দিকে তিনি ইফতার করার জন্য তার গ্রামের বাড়ির পথে মোটরসাইকেলে রওনা হন। ভোলার পুলিশ লাইন এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা বেপরোয়া গতীর ট্রাকটি তাকে চাপা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

অন্য দিকে বাবার মোটরসাইকেল চালাতে গেলে দুর্ঘটনায় তুহিন (১৪) নামের এক স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। নিহত তুহিন ভোলার লালেমাহন উপজেলার ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের ছয় নম্বর ওয়ার্ডের আসুলি গ্রামের কবির হোসেনের ছেলে। সে স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র। শুক্রবার সকালে সৈয়ল বাড়ির সামনের সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ফরাজগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ফরিদ হোসেন মুরাদ জানান, নিহত তুহিন সকালে তার বাবা কবির হোসেনের পকেট না জানিয়ে মোটরসাইকেলের চাবি নিয়ে মোটরসাইকেল চালাতে বের হয়। সৈয়ল বাড়ির সামনে সড়কে এলে দ্রুতগামী মোটরসাইকেলটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের মেহগনী গাছের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে তুহিন গুরুতর আহত হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাকসুদুর রহমান মুরাদ এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।



আরো সংবাদ