২৩ জানুয়ারি ২০২১
`

মুম্বাই সন্ত্রাসী হামলার দ্বাদশ বার্ষিকী : বিচার দাবিতে ভারতের সাথে যোগ দিলো বাংলাদেশ

মুম্বাই সন্ত্রাসী হামলার দ্বাদশ বার্ষিকী : বিচার দাবিতে ভারতের সাথে যোগ দিলো বাংলাদেশ - ছবি : সংগৃহীত

২৬/১১ মুম্বাই সন্ত্রাসী হামলার দ্বাদশ বার্ষিকীতে সারা বাংলাদেশের বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক গ্রুপ, ছাত্র সংগঠন ও সন্ত্রাসবিরোধী ফোরাম কর্মসূচি পালন করে ওই হামলার শিকারদের প্রতি সংহতি প্রকাশ করেছে। তারা এই হামলার পরিকল্পনাকারীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের ২৬ নভেম্বর ১০ জনের একটি সন্ত্রাসী গ্রুপ ওই হামলা চালায়। এতে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জর্ডান, মালয়েশিয়া, মরিশাস, ইসরাইলের নাগরিকসহ ১৬৬ জন নিরীহ ব্যক্তি নিহত হন।

প্রতিবাদকারীরা জানান, মুম্বাইয়ের এই নৃশংস হামলার পরিকল্পনায় ছিলেন প্রধানত লস্কর-ই-তৈয়বার হাফিজ সাঈদ ও তার সহযোগী জাকিউর রহমান লাখভি। হামলার এত বছর পরও তারা এখনো শাস্তির মুখোমুখি হয়নি।

মুম্বাইয়ের ওই হামলার স্মরণে মানববন্ধন, আলোচনাসভা, সাইকেল র‌্যালি হয়। ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ, সিলেট, রাজশাহী, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চট্টগ্রামের সুপরিচিত স্থানগুলোতে স্থানীয়রা এতে উপস্থিত ছিরেন। তারা ভিক্টিমদের প্রতি তাদের সমর্থন জ্ঞাপন করেন, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ থাকার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

ঢাকায় ভারত-বাংলাদেশ সম্প্রীতি সংসদ ঢাকায় বাইসাইকেল র‌্যালির আয়োজন করে। এতে নেতৃত্ব দেন সংগঠনটির সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান দুলাল, সাধারণ সম্পাদক তৌফিক আহমদ তাফসির ও সাংগঠনিক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদাউস।

গুলশান মার্কেট এলাকায় বাংলাদেশ কনসাস সিটিজেন কমিটি মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভার আয়োজন করে। সভায় ওই হামলার নেপথ্যে থাকা ব্যক্তিদের বিচার দাবি করা হয়।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ সোস্যাল অ্যাক্টিভিস্ট ফোরাম মানববন্ধন-কাম-মিছিলের আয়োজন করে। এতে কয়েকজন মাওলানাসহ ১০০ স্বেচ্ছাসেবক এই সন্ত্রাসের নিন্দা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু মেমোরিয়াল স্কালচারে চিত্র প্রদর্শনীর আয়েঅজন করে মুক্তিযোদ্ধা মঞ্চ।

নারায়ণগঞ্জে প্রায় ৩০০ লোক ফোরাম অ্যাগেইনস্ট টেরিরিজম অ্যান্ড ইনসাজেন্সির ব্যানারে সর্বস্তরের জনসাধারণ সমবেত হয়।

সিলেটেও একই ধরনের কর্মসূচি পালন করে সন্ত্রাসবাদ প্রতিরোধ আন্দোলন। সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ৫০০ লোক।

কুমিল্লার জিরো পয়েন্টে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাস বিরোধী ঐক্য ফোরাম মুক্ত আলোচনার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি মো. বোরহান উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক মো. মিজানুর রহমান এতে নেতৃত্ব দেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয় ফ্রিডম গ্রাউন্ডে।

চট্টগ্রামের কাপ্তাই সড়কে সন্ত্রাসবাদের প্রতিবাদে জনসচেতনা ও মোটরবাইক র‌্যালির আয়োজন করে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কপিল কৃষ্ণ মণ্ডল এতে প্রধান বক্তা ছিলেন।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি



আরো সংবাদ