০৬ জুন ২০২০

চলন্ত ট্রেনের সামনে সেলফি নিতে গিয়ে মৃত্যু

ভরদুপুরে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডে রেললাইনে আপনমনে মোবাইল ফোনে সেলফি তুলছিল দুই বন্ধু ইমরান দেওয়ান (১৬) ও আল-রাফি (১৬)। কিন্তু সেলফির নেশায় পেছনে ছুটে আসা ট্রেনটির কথা ভুলেই যায় তারা। মুহূর্তের মধ্যে সে আনন্দ বিষাদে পরিণত হয় তাদের।

ছুটে আসা ট্রেনটির ধাক্কায় রেললাইনের পাশে ছিটকে পড়ে দুই বন্ধু। সংজ্ঞাহীন অবস্থায় উদ্ধার করে দু’জনকে নিয়ে যাওয়া হয় কুর্মিটোলা হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন ইমরানকে। আহত আল-রাফির অবস্থাও আশঙ্কাজনক। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তার।

পারিবারিক সূত্র জানায়, নিহত ইমরান ও আহত আল-রাফির বাড়ি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে। তারা স্থানীয় একটি স্কুলে দশম শ্রেণীর ছাত্র।

ঢাকা রেলওয়ে থানার (কমলাপুর) এএসআই মহিউদ্দিন জানান, কুড়িল বিশ্বরোড রেললাইনে একটি ট্রেনের ধাক্কায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে ইমরান নামের একজনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের লাশ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহত ইমরানের চাচা মো: আল-আমিন দেওয়ান ঢামেক হাসপাতালে জানান, রূপগঞ্জ উপজেলার ভুলতা গোলাকান্দাইল গ্রামে তাদের বাড়ি। ইমরানের বাবার নাম শাহ আলম দেওয়ান। ইমরান স্থানীয় গোলাকান্দাইল মজিবুর রহমান ভুঁইয়া উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। তার বন্ধু আল-রাফিও একই স্কুলের ছাত্র।

তিনি জানান, সকালে ইমরান বাসা থেকে স্কুলের কথা বলে বের হয়। তার বন্ধুদের কাছে শুনেছি, দুপুরে পাঁচ বন্ধু মিলে নারায়ণগঞ্জ থেকে কুড়িল বিশ্বরোড এলাকায় যায়। কুড়িল রেললাইনে বন্ধুরা মিলে সেলফি তোলার সময় একটি ট্রেনের সাথে ধাক্কায় ইমরান ও তার আরেক বন্ধু রাফি আহত হয়। পরে কুর্মিটোলা হাসপাতালে ইমরান মারা যায়।

ঢামেক হাসপাতাল সূত্র জানায়, ট্রেনের ধাক্কায় আহত রাফিকে সন্ধ্যার দিকে কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। একই ঘটনায় নিহত ইমরানের লাশও পোস্টমর্টেমের জন্য ঢামেক মর্গে নিয়ে আসা হয়েছে।


আরো সংবাদ

সকল





justin tv