১৩ জুন ২০২১
`

মালয়েশিয়া কঠোর লকডাউনে বাংলাদেশীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

মালয়েশিয়া কঠোর লকডাউনে বাংলাদেশীদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা - ছবি : নয়া দিগন্ত

বিশ্বব্যাপী চলছে মহামারী করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ। এ ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশে দেশে চলছে লকডাউন। এর ব্যতিক্রম নয় এশিয়ার দেশ মালয়েশিয়াও। করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ায় দুই সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করেছে দেশটিতে।

রোববার মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে ১ থেকে ১৪ জুন পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন কার্যকর থাকার কথা জানানো হয়।

দেশটির জাতীয় সুরক্ষা কাউন্সিলের বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এবারের লকডাউনে একেবারেই প্রয়োজনীয় কিছু প্রতিষ্ঠান সবকিছুই বন্ধ থাকবে। এ ছাড়া বাংলাদেশসহ ২৫ দেশের নাগরিকদের দেশটিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি কর হয়েছে।

এ দিকে লকডাউনের মধ্যেই দেশটিতে বসবাসরত অবৈধ বিদেশী অভিবাসীদের আটকে সরকার কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হামজা জয়নুদিন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, জেআইএম জাতীয় নিবন্ধকরণ বিভাগ (এনআরডি) এবং পুলিশের সাথে এই কার্যক্রম পরিচালনা করবে। অভিযানে গ্রেফতারকৃতদের জন্য অতিরিক্ত আটক কেন্দ্র বরাদ্দ রাখতে ডিটেনশন সেন্টার প্রস্তুত রয়েছে।

এ দিকে দুই সপ্তাহের কড়া লকডাউনে ৭০ হাজার আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তা মোতায়েন থাকবে এবং দেশজুড়ে আট শ’-এর অধিক সড়ক অবরোধ স্থাপন করা হবে, যা ইতোমধ্যে ছয় শ’ স্থাপন রয়েছে। এ পরিস্থিতিতে প্রবাসীদের সতর্কতার সহিত চলাফেরা করার অনুরোধ জানিয়েছেন সচেতন বাংলাদেশ কমিউনিটি।

চলমান মহামারী সংক্রমণ রোধে বিভিন্ন এসওপি এবং চলাচল নিয়ন্ত্রণ আদেশে (এমসিও) পর্যায়ক্রমে এরই এক বছর হয়ে গেলেও কমছে না মৃত্যু ও সংক্রমণের সংখ্যা।

এ দিকে মালয়েশিয়ায় শনিবার করোনায় প্রাণহানি ঘটেছে ৯৮ জনের। এ পর্যন্ত দেশটিতে মৃত্যুবরণ করেছেন ২ হাজার ৬৫০ জন। এক দিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৯ হাজার ২০ জন। এ নিয়ে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৮ হাজার ৫৩৪ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪ লাখ ৭৯ হাজার ৬৬৬ জন।

এ দিকে করোনার টিকাদান কর্মসূচির আওতায় গত ২৫ মে পর্যন্ত মোট ৯ লাখ ৩৫ হাজার ৮৬৫ জন দুটি টিকা গ্রহণ সম্পন্ন করেছেন বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী দাতুক সেরি ডা: অধম বাবা।



আরো সংবাদ