২৫ মে ২০২০

ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে লড়বেন বাংলাদেশী রাবিনা খান

ব্রিটিশ বাংলাদেশী রাবিনা খান - ছবি : সংগৃহীত

ব্রিটেন থেকে এবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) পার্লামেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন ব্রিটিশ বাংলাদেশী রাবিনা খান। ব্রিটেনে এই নির্বাচনের তারিখ নির্ধারিত হয়েছে আগামী ২৩ মে। ইউরোপীয় পার্লামেন্টের লন্ডন আসন থেকে লড়বেন তিনি। ইউরোপীয় ইউনিয়নভূক্ত দেশগুলোকে নিয়ে গঠিত ৭৫১ আসনের ইউরোপীয়ান পার্লামেন্টের এটি নবম নির্বাচন।

ব্রিটেনের মূলধারার রাজনৈতিক দল লিবারেল ডেমোক্র্যাটস (লিবডেম) পার্টির ব্রেক্সিট বিরোধী অবস্থান থেকে নির্বাচন করবেন তিনি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এই নির্বাচনে অংশ নিতে অনাগ্রহী ছিলেন। তবে ব্রেক্সিট এখনো কার্যকর না হওয়ায় দেশটিকে নির্বাচনে অংশ নিতেহচ্ছে।

ব্রিটিশ বাংলাদেশী রাবিনা খান রাজনীতি শুরু করেন লেবার পার্টির হয়ে বাংলাদেশী অধ্যুষিত টাওয়ার হ্যামলেটসে। তারপর টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাবেক মেয়র লুতফুর রহমানের স্বতন্ত্র পার্টিতে যোগ দেন। সেই দলের পক্ষে তিনি ২০১৪ সালে টাওয়ার হ্যামলেটস মেয়র নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। ২০১৮ সালের লুতফুর রহমানের টাওয়ার হ্যামলেটস ফার্স্ট থেকে বের হয়ে পিপলস অ্যালায়েন্স নামে নতুন দল গঠন করে সে বছর আবারও মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেন। ওই নির্বাচনের কিছুদিন পরে তিনি মূলধারার লিবারেল ডেমোক্রেটস দলে যোগ দেন।

ইউরোপীয় পার্লামেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা বিষয়ে রাবিনা খান জানিয়েছেন, ব্রিটেনের অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে বিচ্ছেদের বিপক্ষে অবস্থান তার দলের। ব্রেক্সিট গণভোটের সময় ‘রিমেইন’-এর (ইউরোপীয় ইউনিয়নে থেকে যাওয়া) পক্ষে প্রচারণা করছেন তিনি।

তিন সন্তানের জননী রাবিনা। ৪৬ বছর বয়সী এই নারী রাজনীতিকের গ্রামের বাড়ি সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলায়। বর্তমানে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের শেডওয়েল ওয়ার্ড থেকে নির্বাচিত কাউন্সিলর তিনি। রাবিনা খান বলেন, আমার দল লিবডেম রিমেইনের (ইইউতে ব্রিটেনের থেকে যাওয়া) পক্ষে ক্যাম্পেইন করছে। আমাদের অর্থনীতিকে শক্তিশালী রাখার লক্ষ্য নিয়ে আমি স্থানীয় ও জাতীয়ভাবে ক্যাম্পেইন করছি।’


আরো সংবাদ





maltepe evden eve nakliyat knight online indir hatay web tasarım ko cuce Friv gebze evden eve nakliyat buy Instagram likes www.catunited.com buy Instagram likes cheap Adiyaman tutunu