২১ নভেম্বর ২০১৮

ঈদ বাজারে নারী বিক্রয়কর্মী

-

ঈদ বাজারে ছোট-বড় শপিংমলগুলোতে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে নারী বিক্রয়কর্মীরা। বিভিন্ন শপিংমলে গেলে চোখে পড়ে পরিপাটি ইউনিফর্ম পরা তরুণী। ঈদকে সামনে রেখে খণ্ডকালীন এ পেশায় সম্পৃক্ত হচ্ছে মেয়েরা। যারা রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। এবারের ঈদের বাজারে ঢাকার সব শপিংমলে কাজ করছেন শত শত তরুণী। বেচাবিক্রিতেও তাদের নৈপুণ্য প্রদর্শন করছেন। তাদের নিয়োগপ্রক্রিয়া একেক প্রতিষ্ঠানে একেক নামে এসব বিক্রয় প্রতিনিধি নিয়োগ দেয়া হয়। বিজনেস প্রোমোটার, প্রোডাক্ট প্রোমোটর, সেলস অফিসার, সেলস গালর্সসহ এ রকম নানা নামে পরিচিত তারা। কোনো কোনো কোম্পানি সরাসরি চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে দোকান বা শপিংমলগুলোতে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে তাদের আহ্বান করা হয়। যাচাই-বাছাই শেষে নিয়োগপ্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলো বেশ কয়েকটি বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে নিয়োগ দিয়ে থাকে। আত্মবিশ্বাসী মেয়েরাই এ ক্ষেত্রে প্রাধান্য পায়। আকর্ষণীয় চেহারা ও সুন্দর বাচনভঙ্গির দিকটাও বিবেচনা করা হয়ে থাকে। আর শিক্ষাগত যোগ্যতা কমপক্ষে এইচএসসি পাস হতে হয়। নিয়োগের পর পণ্যের গুণাগুণ তুলে ধরতে তাদের দেয়া হয় প্রশিক্ষণ। ঈদের বাজারে মেয়েদের কাজ করতে হয় সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত।
বেচাকেনার পারদর্শিতা প্রদর্শন করতে পারলে রয়েছে ভবিষ্যতে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে স্থায়ী চাকরির সুযোগ। ব্র্যাক ভার্সিটিতে বিবিএ পড়াশোনা করছে অদ্রিতা গুলশান এভিনিউতে একটি বুটিক শপে চাকরি নিয়েছেন। তিনি জানান, জীবনে প্রথমবারের মতো এ ধরনের কাজে এসেছি। খুব ভালো অভিজ্ঞতা হয়েছে। এখানে কাজ করে কোনো অসুবিধা হয় না। সবাই সবাইকে সাহায্য-সহযোগিতা করেন। ধানমন্ডিতে আড়ংয়ে কাজ করেন শান্তা। তিনি পড়াশোনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে। ‘এখানে কাজে কোনো সমস্যা হয় না। সবাই আমাদের প্রতি বেশ আন্তরিক।’ অনেক ক্ষেত্রে ছেলেদের চেয়ে বিক্রয়কর্মী হিসেবে ভালো করছেন মেয়েরা। আফরিন ইডেন কলেজের শিক্ষার্থী কাজ করছেন বসুন্ধরা শপিংমলের একটি দোকানে। খণ্ডকালীন বিক্রয়কর্মী হিসেবে আছেন তিনি। কথা হয় তার সাথে। তিনি বলেন, রমজান মাসটা অবসর থাকে। কলেজ হোস্টেলে থাকি। বাড়ি যাবো ঈদের কয়েক দিন আগে। তাই বন্ধুরা মিলে বিভিন্ন দোকানে রমজানে বিক্রয়কর্মী হিসেবে কাজ করার জন্য আবেদন করেছি, হয়েও গেছে, তাই কাজ করছি।
সব মিলিয়ে কিছু বাড়তি টাকা পাচ্ছি, এতে মন্দ কী। ধারণাই ছিল না এত সহজেই বিক্রয়ের কাজ করা সম্ভব।

 


আরো সংবাদ