২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

থাইল্যান্ড যাচ্ছেন বিশ্বসুন্দরীরা

থাইল্যান্ড যাচ্ছেন বিশ্বসুন্দরীরা - সংগৃহীত

বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার ৬৯তম আসরটি এবার বসতে যাচ্ছে এশিয়ার নয়নজুড়ানো দেশ থাইল্যান্ডে।
গত বছরের নিজ নিজ মহাদেশের বিজয়ী সুন্দরীরা ও গত বছরের বিশ্বসুন্দরী মেক্সিকোর সুন্দরী ভেনেসে পন্সে দে লিওন আসছেন থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে। তাদের উপস্থিতিতে ঘোষণা করা হবে ২০১৯ সালের বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত আসরের বিস্তারিত।

শনিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে প্রতিযোগিতার আয়োজনকারী প্রতিষ্ঠান দ্য মিস ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন (এমডব্লিউও)।

১৮ ফেব্রুয়ারি থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককে আনুষ্ঠানিকভাবে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রতিযোগিতার বিস্তারিত তুলে ধরবেন এমডব্লিউওর চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী জুলিয়া মোর্লে।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত থাকবেন গত বছরের প্রতিযোগিতার বিজয়ী মেক্সিকোর সুন্দরী ভেনেসে পন্সে দে লিওন এবং বিভিন্ন মহাদেশের প্রতিনিধিত্ব করা সুন্দরীরা। লন্ডন থেকে পাঠানো প্রতিষ্ঠানটির এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনের এক দিন আগে ১৬ ফেব্রুয়ারি ব্যাংককে পৌঁছাবেন তারা।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জুলিয়া মোর্লে বলেছেন, ‘২০১৯ সালের বিশ্বসুন্দরী প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত আয়োজনটি থাইল্যান্ডে করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমি নিশ্চিত “ল্যান্ড অব স্মাইলে’ আমাদের এবারের আয়োজনটি হবে চমকপ্রদ এবং সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য। প্রতিযোগী দেশগুলোকে এ আয়োজনে স্বাগতম। এখানে এসে কিছুদিন থাকলেই সবাই বুঝতে পারবেন, থাইল্যান্ডকে কেন এই নামে ডাকা হয়। এখানকার লোকজন খুব বন্ধুবৎসল আর হাস্যোজ্জ্বল।’

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বটি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এশিয়ার দেশ থাইল্যান্ডে। গত বছর প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হয় চীনে।

মিস ওয়ার্ল্ড প্রতিযোগিতা সবচেয়ে পুরোনো ও জৌলুশপূর্ণ সুন্দরী প্রতিযোগিতা। ১৯৫১ সাল থেকে এই আয়োজন করছে দ্য মিস ওয়ার্ল্ড অর্গানাইজেশন। এ প্রতিযোগিতায় বিজয়ী সুন্দরীরা সারা পৃথিবীতে গড়ে তুলেছেন অনাথ ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের জন্য অগণিত দাতব্য সংস্থা। বাংলাদেশসহ বিশ্বের মোট ১৪০টি দেশে সংস্থাটির শাখা রয়েছে। সর্বশেষ গত বছর ৮ ডিসেম্বর চীনের সানইয়া শহরে বিশ্বসুন্দরীর মুকুট পরিয়ে দেওয়া হয় মেক্সিকোর সুন্দরী ভেনেসে পন্সে দে লিওনের মাথায়।


আরো সংবাদ

সকল