২২ জুন ২০১৮

‘দুই স্বৈরাচারের’ বৈঠক বললেন ফক্স নিউজের উপস্থাপিকা

ফক্স নিউজের সেই অনুষ্ঠানে অতিথিদের সাথে অ্যাবি হান্টসম্যান। ইনসেটে(হান্টসম্যান) - ছবি : সংগ্রহ

ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে কিম জং উনের বৈঠকের দিকে দৃষ্টি সারা বিশ্বের। সংবাদ মাধ্যমগুলো সারাক্ষণ আপডেট দিচ্ছে এই ঘটনার। তবে এরই মধ্যে এককাণ্ড ঘটিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল ফক্স নিউজের এক উপস্থাপিকা। ভুল ক্রমে তিনি বলেছেন সিঙ্গাপুরে ‘দুই স্বৈরাচারের’ বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। অবশ্য কিছুক্ষণ পরেই ক্ষমা চেয়েছেন তিনি এ অনাকাঙ্ক্ষিত ভুলের জন্য।

তবে তাতেও সোশাল মিডিয়ায় আলোচনা থেমে নেই। ট্রাম্প-কিমের মঙ্গলবারের বৈঠকের দিকে চোখ সারাবিশ্বের, ফক্স নিউজের নানা আয়োজনেও ঘুরেফিরে আসছিল তা। এর মধ্যেই ফক্স অ্যান্ড ফ্রেন্ড অনুষ্ঠানের উপস্থাপিকা অ্যাবি হান্টসম্যান করে এই কাণ্ড। ডেইলি মেইল জানিয়েছে, ট্রাম্প যখন সিঙ্গাপুরে বিমান থেকে নামছিলেন, তখন তা বর্ণনা দিতে গিয়ে হান্টসম্যান বলে বসেন, দুই ‘স্বৈরাচারের’ বৈঠক হতে যাচ্ছে।

কমিউনিস্ট রাষ্ট্র উত্তর কোরিয়ার শাসক উনকে স্বৈরশাসক হিসেবেই দেখা হয় যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ মাধ্যমে। কিন্তু তার সঙ্গে দেশের প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকেও যে হান্টসম্যান ‘স্বৈরশাসক’ বলে ফেলেছেন, সেটা অনুষ্ঠানের অতিথি হোয়াইট হাউজের সাবেক পরিচালক অ্যান্টনি ষ্কারামুচ্চও ধরতে পারেননি বলে ডেইলি মেইল জানিয়েছেন।

তবে অ্যাবি হান্টসম্যান তার ভুলের বিষয়টি ধরতে পারেন কিছুক্ষণ পর, তখন তিনি দর্শকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন। অ্যাবির বাবা জন হান্টসম্যান বর্তমানে রাশিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূতের দায়িত্বে রয়েছেন।

ট্রাম্প-কিম বৈঠকে খরচ ২ কোটি ডলার: সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী
স্ট্রেইট টাইমস
সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লুং বলেছেন, ট্রাম্প-কিমের ঐতিহাসিক বৈঠকে প্রায় ২ কোটি মার্কিন ডলার ব্যয় হবে। একটি আন্তর্জাতিক উদ্যোগ সফল করতে সিঙ্গাপুর এই অর্থ ব্যয় করছে যা ‘আমাদের সুগভীর আগ্রহের’ জায়গা। তবে মোট অর্থের অর্ধেকটা ব্যয় হবে নিরাপত্তা খাতে। 

রোববার সিঙ্গাপুরের এফওয়ান পিট বিল্ডিংয়ে আন্তর্জাতিক মিডিয়া সেন্টার পরিদর্শনের সময় দেশটির গণমাধ্যমকে প্রধানমন্ত্রী লি বলেন, এই সম্মেলনের ব্যাপকতা অনেক, অন্যান্য বিষয় ছাড়াও এর পরিধি, সাংবাদিকের সংখ্যা, নিরাপত্তার মাত্রাই এর কারণ।

তিনি আরো বলেন, এই বৈঠকের গুরুত্ব ও এখানে যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হচ্ছে এর কারণেই যেকোনো বৈঠকের তুলনায় এটির নিরাপত্তা আরো বেশি দরকার।

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী বলেন, পুলিশের সদস্যরা শুধু বৈঠকের ভেন্যুই ঘিরে রাখবে না পাশাপাশি ‘আকাশ, জল, স্থলে যেকোনও ধরনের হামলা ঠেকাতে পুরোপুরি ও গভীর নিরাপত্তার ব্যবস্থা’ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এটা একটা খুব বিশাল প্রক্রিয়া কারণ এটা হাই-প্রোফাইল বৈঠক এবং এখানে কোনো কিছু ভুল হবার মতো সুযোগ নেই।

মঙ্গলবার সিঙ্গাপুরের সেন্টোসা দ্বীপের কাপেল্লা হোটেলে বহু প্রত্যাশিত এই বৈঠকে মিলিত হবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প ও কিম জং উন। বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণের বিষয়ে আলোচনা করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ঐতিহাসিক এই বৈঠকের সংবাদ সংগ্রহ করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রায় আড়াই হাজার সাংবাদিক ইতোমধ্যে সিঙ্গাপুরে পৌঁছেছেন। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী লি বলেন, চাপের মধ্যেও কর্মকর্তারা ভালো কাজ করেছেন। মাত্র দুই সপ্তাহ আগে নিশ্চিত করা হয়েছে যে, বৈঠক সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, এ ধরনের বৈঠক আয়োজনের জন্য উপযুক্ত জায়গা খুঁজে পাওয়া সহজ নয়। বৈঠকের স্থানের ব্যাপারে উভয় পক্ষকেই ঐকমত্যে পৌঁছাতে হয়। এছাড়া এতে উভয় পক্ষের কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক চাহিদার ব্যাপারও থাকে।

প্রধানমন্ত্রী লি বলেন, এমতাবস্থায় উভয় পক্ষ যখন আমাদেরকে বৈঠক অনুষ্ঠানের জন্য অনুরোধ জানায়, তখন আমরা না করতে পারিনি। আমাদের এটা করতে হবে...আমরা একটি ভালো কাজ করছি। এটি সিঙ্গাপুরের জন্য একটি ইতিবাচক দিক।এর মাধ্যমে আমাদের প্রচার হচ্ছে।


আরো সংবাদ