২০ নভেম্বর ২০১৯

ব্রেক্সিট আরো পেছানো নিয়ে আলোচনার পরিকল্পনা

ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান ব্রেক্সিট আলোচক মিশেল বার্নিয়ার গতকাল মঙ্গলবার বলেছেন, নির্দিষ্ট সময়সীমা ৩১ অক্টোবরের আগে ইইউ থেকে ব্রিটেনের বিদায় নিয়ে একটি চুক্তিতে উপনীত হওয়া আরো অনেক কঠিন হয়ে পড়েছে এবং ফিনল্যান্ডের ইইউ মন্ত্রী বলেছেন, নেতারা ব্রেক্সিট আরেকবার পেছানো নিয়ে আলোচনা করতে পারেন।

মিশেল বার্নিয়ার বলেছেন, ‘একটি চুক্তিতে পৌঁছানো আরো কঠিন হয়ে উঠলেও এই সপ্তাহে একটি ব্রেক্সিট চুক্তি হতে পারে।’ তিনি বলেছেন, ‘ভালো পরিকল্পনাগুলোকে আইনে পরিণত করার সময় এসেছে’। গতকাল লুক্সেমবার্গে ইইউ মন্ত্রীদের সাথে বার্নিয়ার বৈঠক করেছেন। বৈঠকে তিনি মন্ত্রীদের ব্রেক্সিট পরিস্থিতি তুলে ধরেন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইইউ শীর্ষ সম্মেলনে ব্রেক্সিট চুক্তির আশা ক্ষীণ, দিন শেষে দুইপক্ষকেই সমঝোতায় আসতে হবে’। বার্নিয়ার সম্ভাব্য তিনটি উপায় ইইউ মন্ত্রীদের সামনে তুলে ধরেন। প্রথমত ব্রিটেনের সাথে চুক্তি করা বা ব্রেক্সিট বিলম্ব করা অথবা আলোচনা ভেঙে দেয়া।

কিছু দিন আগেই তিনি বলেছিলেন, ব্রেক্সিট নিয়ে ব্রিটেন ও ইইউর মধ্যে ‘বড় ব্যবধান’ রয়েছে। সুতরাং আগামী ১৭ ও ১৮ অক্টোবর ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের আগে বোঝাপড়া সম্পর্কে আশাবাদের কোনো কারণ নেই। গতকাল লুক্সেমবার্গের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জিন অ্যাসেলোবর্ন বলেন, বার্নিয়ার চাইছিলেন মঙ্গলবারই (গতকাল) ব্রিটেনের সাথে ব্রেক্সিট নিয়ে একটি চুক্তি হয়ে যাক। বার্নিয়ার ইইউ মন্ত্রীদের সাথে ব্রেক্সিট নিয়ে আলোচনার পর অ্যাসেলোবর্ন সাংবাদিকদের বলেন, ‘কিছুটা আশাবাদ আছে, তিনি আজ (মঙ্গলবার) রাতে একটি চুক্তি সম্পাদনের জন্য চেষ্টা করেছেন। লুক্সেমবার্গের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আজ (মঙ্গলবার) যদি কোনো সমাধান না হয় তাহলে আমাদের সম্ভবত এই মাসের পর আরো একটি সম্মেলন ডাকার প্রয়োজন হবে।’

অন্য দিকে ফিনল্যান্ডের ইইউ মন্ত্রী বলেছেন, নেতারা ব্রেক্সিটকে আরো বিলম্ব করার বিষয়ে আলোচনা করবেন। তবে বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ সম্মেলনের আগে শেষ প্রস্তুতিমূলক বৈঠকের জন্য লুক্সেমবার্গে জড়ো হওয়া ইইউ মন্ত্রীরা ব্রিটেনের সাথে একটি চুক্তি হওয়ার বিষয়ে আরো সংশয় প্রকাশ করেছেন। যদিও বার্নিয়ার বলেছেন, এই সপ্তাহে একটি চুক্তি এখনো সম্ভব।

এ দিকে সোমবার রানীর ভাষণের মাধ্যমে ব্রিটিশ সরকার অবশ্য ৩১ অক্টোবর ইইউ ত্যাগের অঙ্গীকার করেছে। ফলে আসন্ন ইইউ শীর্ষ সম্মেলনের আগে ব্রিটেন ও ইইউর মধ্যে সমঝোতার সম্ভাবনা দেখছেন না একাধিক ইইউ নেতা। বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার ইউরোপীয় ইউনিয়নের শীর্ষ সম্মেলন সব বিষয়কে ছাপিয়ে ব্রেক্সিটই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পেতে পারে; কিন্তু তার আগে দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতার আশা কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়েছে। সব কিছু ভালোভাবে এগোলেও আগামী সপ্তাহের আগে কোনো চুক্তির রূপরেখার আশা দেখছেন না কূটনীতিকেরা। বিশেষ করে আয়ারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড ও স্পেন খোলাখুলি এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছে।

অথচ ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন এই শীর্ষ সম্মেলনেই ব্রেক্সিট চুক্তি চূড়ান্ত করে ৩১ অক্টোবর ব্রিটেনকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের করে নিয়ে যেতে বদ্ধপরিকর। এ ক্ষেত্রে কোনো বিলম্ব বা জটিলতা চাইছেন না তিনি। প্রয়োজনে চুক্তি ছাড়াই ব্রেক্সিট কার্যকর করার অবস্থানে অটল রয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। আগামী শনিবার ব্রিটিশ সংসদের এক জরুরি অধিবেশনে এ ক্ষেত্রে সব বাধা দূর করতে চান জনসন। সোমবার রানীর ভাষণের মাধ্যমে তিনি ব্রেক্সিটের প্রশ্নে তার সরকারের শক্ত অবস্থান তুলে ধরেন।

গত সপ্তাহে আয়ারল্যান্ড ও ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর মধ্যে আলোচনার পর ব্রেক্সিট-সংক্রান্ত বোঝাপড়ার আশা কিছুটা বেড়েছিল। জনসনের সাথে আলোচনার পর আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী লিও ভারাদকর আশা প্রকাশ করেনÑ চুক্তির মাধ্যমে ব্রেক্সিট কার্যকর সম্ভব। তার মতে, ব্রিটেন ও আয়ারল্যান্ড ৩১ অক্টোবরের মধ্যে বোঝাপড়া চূড়ান্ত করতে বদ্ধপরিকর। ইউরোপীয় ইউনিয়নের কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনায় তিনি বিষয়গুলো তুলে ধরবেন বলে জানিয়েছেন। সূত্র : রয়টার্স, বিবিসি ও ডয়চে ভেলে।


আরো সংবাদ