১৫ নভেম্বর ২০১৯

সিরিয়ায় যুদ্ধবিরতির মার্কিন আহ্বান তুরস্কের প্রত্যাখ্যান

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে আশু যুদ্ধবিরতির জন্য যুক্তরাষ্ট্রের জানানো আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়েব এরদোগান। গত মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে এরদোগান বলেছেন, তারা বলছে ‘যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করো’। আমরা কখনোই যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করব না। ‘অভিযান বন্ধের জন্য আমাদের চাপ দিচ্ছে তারা। তারা নিষেধাজ্ঞার ঘোষণা দিয়েছে। আমাদের উদ্দেশ্য পরিষ্কার। কোনো নিষেধাজ্ঞায় আমরা উদ্বিগ্ন নই।’

যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওর তুরস্ক সফরের আগে এসব মন্তব্য করলেন এরদোগান। আজ বৃহস্পতিবার তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় পেন্স ও পম্পেওর সাথে এরদোগান সাক্ষাৎ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। তুরস্ক ‘আশু যুদ্ধবিরতি গ্রহণ না করলে ও না করা পর্যন্ত’ এবং সীমান্তে ইস্যুতে দীর্ঘস্থায়ী মীমাংসার আলোচনায় বসতে রাজি না হওয়া হলে দেশটির ওপর আরোপিত মার্কিন নিষেধাজ্ঞা আরো কঠোর হতে পারে বলে গত সোমবার সতর্ক করেছিলেন পেন্স।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় সীমান্তবর্তী স্থানগুলো থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের হটাতে সেখানে পরিকল্পিত এক অভিযান শুরু করেছে তুরস্ক। কুর্দিদের প্রধান মিত্র যুক্তরাষ্ট্রর ওই অঞ্চল থেকে নিজেদের বাহিনী সরিয়ে নেয়ার পরই অভিযানে নামে তুরস্কের সামরিক বাহিনী। তুরস্কের এই অভিযানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে মার্কিন কংগ্রেস। তার প্রশাসনের অনুগত বলে পরিচিত রিপাবলিকানরাও এতে সমর্থন জানিয়েছে। এ দিকে সিরিয়ায় সৃষ্ট পরিস্থিতি নিয়ে ফোনে এরদোগানের সাথে আলোচনা করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন। পুতিন এরদোগানকে রাশিয়া সফরের আমন্ত্রণও জানিয়েছেন বলে গতকাল বুধবার ক্রেমলিন জানিয়েছে। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদকে সমর্থনকারী রাশিয়া জানিয়েছে, তারা সিরিয়া ও তুরস্কের বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ ঠেকাবে।

কুর্দিদের সাথে একটি সমঝোতা চুক্তির পর তুরস্কের অভিযান রুখতে কুর্দি নিয়ন্ত্রিত উত্তরাঞ্চলে প্রবেশ করতে শুরু করেছে সিরিয়ার সরকারি বাহিনী। এতে তাদের সাথে তুরস্কের বাহিনীর সঙ্ঘাতের আশঙ্কা প্রবল হয়ে উঠেছে। ওই অঞ্চল নিয়ন্ত্রণকারী সিরীয় কুর্দিদের নেতৃত্বাধীন সিরিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ফোর্সেসকে (এসডিএফ) সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে বিবেচনা করে তুরস্ক এবং এই বাহিনীটিকে তাদের সীমান্তসংলগ্ন এলাকা থেকে হটিয়ে দেয়ার পরিকল্পনায় সামরিক অভিযানে নেমেছে তারা। সূত্র : বিবিসি।


আরো সংবাদ

আগুন নেভাতে সাহসী ভূমিকা রাখা ১৬ ব্যক্তিকে সংবর্ধনা দিলো হোটেল কস্তুরি ঘুষ সন্ত্রাস মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বাংলাদেশ-নেপাল যোগাযোগ ও বাণিজ্য বাড়ানোর পরামর্শ রাষ্ট্রপতির মেহেদির রঙ মুছতে না মুছতেই... সর্বদা আল্লাহর জিকিরে থাকতে হবে : আল্লামা শফী খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অত্যন্ত খারাপ, তাকে জামিনে মুক্তি দিন রোহিঙ্গা নিপীড়নের অভিযোগ তদন্তের আদেশ দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত ৩০ বছর পর সগিরা হত্যার রহস্য উদঘাটন : চার আসামি গ্রেফতার ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোনো ষড়যন্ত্র থাকলে সরকার খতিয়ে দেখবে : প্রধানমন্ত্রী অর্থমন্ত্রীর পরিবারের আয়কর ৭ কোটি ৬ লাখ ৭৮ হাজার টাকা না’গঞ্জে আদালত চত্বরে বাদি ও আসামিপক্ষের মারামারি

সকল