১৮ আগস্ট ২০১৯

৭৫০ গ্রাম ওজনের শিশুর জন্ম

বাবা-মায়ের সাথে শিশু হাসান - ছবি : সংগৃহীত

মাত্র ৭৫০ গ্রাম ওজন নিয়ে জন্ম নিয়েছে একটি শিশু। নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছুদিন আগেই শিশুটি মায়ের গর্ভ থেকে চলে আসে পৃথিবীতে। তবে চিকিৎসকদের আন্তরিক প্রচেষ্টায় প্রায় তিন মাস হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার পর তাকে সুস্থ্ করে তোলা সম্ভব হয়েছে। তুরস্কের উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় একটি এলাকায় জন্ম নেয়া এই শিশুটি হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি গেছে মায়ের সাথে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য মতে, নবজাতকের স্বাভাবিক ওজন আড়াই থেকে সাড়ে চার কেজি হয়ে থাকে; কিন্তু এই শিশুটি অস্বাভাবিক কম ওজন নিয়ে জন্ম নেয়। জন্মের সময় তার ওজন ছিলো মাত্র ৭৫০ গ্রাম। চিকিৎসকরা জানান, সাধারণত গর্ভ ধারণের ৪১ সপ্তাহ পর শিশু প্রসব উপযোগী হলেও এই শিশুটি ২৫ সপ্তাহের মাথায় জন্ম নেয়। তুরস্কের কৃষ্ণসাগর উপকূলীয় এলাকার ত্রাবজন শহরের ঘটনা এটি।

শিশুটির মা সঙ্গুল সান্দিকচি জানান, এর আগেও তার দুইবার গর্ভের সন্তান নষ্ট হয়ে গেছে। তিনি বলেন, খুব কঠিন পরিস্থিতি ছিল আমার জন্য। দুইবার বাচ্চা নষ্ট হওয়ার পর এবার নির্দিষ্ট সময়ের আগেই বাচ্চা জন্ম নেয়ায় খুব ভয়ে ছিলাম। তবে ডাক্তার ও নার্সদের আন্তরিক প্রচেষ্টা ও মানসিক সমর্থনে আমি ভীষণ খুশি।

হাসান নামের এই শিশুটিকে টানা ৮০ দিন চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে রেখে সুস্থ করে তোলা হয়। চিকিৎসকরা জানান, প্রথম ১০ দিন তাকে কৃত্রিম উপায় শ্বাসপ্রশ্বাসের ব্যবস্থা করতে হয়েছে। তবে সে এখন আর দশটা স্বাভাবিক শিশুর মতোই।

এর আগে ২০০৪ সালে যুক্তরাষ্ট্রের একটি হাসপাতালে মাত্র ২৬০ গ্রাম ওজনের একটি শিশু জন্ম দিয়েছিলেন রুমাইসা ইসলাম নামের এক নারী। এটিই সবচেয়ে কম ওজনের শিশু জন্মের ঘটনা।


আরো সংবাদ




bedava internet