১৮ আগস্ট ২০১৯

যুক্তরাষ্ট্রকে পাল্টা হুমকি তুরস্কের

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগলু - ছবি : সংগৃহীত

রাশিয়া থেকে এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার অজুহাতে যুক্তরাষ্ট্র যদি তুরস্কের কাছে তাদের প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র না বিক্রি করে তবে তারা রাশিয়া থেকে আরো বেশি করে এস-৪০০ কিনবে। যুক্তরাষ্ট্রকে উদ্দেশ্য করে এমন হুঙ্কার দিয়েছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসগলু।

বুধবার দেশটির একটি টিভি চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচনার জবাবে বলেন, অনেক ন্যাটো সদস্যভূক্ত দেশই ইতোমধ্যে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্রের পুরাতন সংস্করণ কিনেছে। সেক্ষেত্রে তাদের ন্যাটো সদস্য পদের জন্য সেটি বাধা হয়নি।তিনি বলেন, তাহলে তুরস্ক এস-৪০০ কিনলে যুক্তরাষ্ট্র কেন বাধা দিচ্ছে

কাভুসগলু বলেন, এর জের হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র যদি আমাদের কাছে প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রি করতে না চায়, আমরা আগামীকাল হয়তো আরো একটি এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কিনতে পারি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমান চুক্তি বাতিল করার হুমকির বিষয়ে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তেমনটি হলে আমরা অন্য উৎস থেকে যুদ্ধবিমান কিনবো। যতদিন না নিজেরা উন্নত প্রযুক্তির যুদ্ধবিমান উৎপাদন করতো পারবো, ততদিন বাইরে থেকেই তা সংগ্রহ করবো।

শুরু থেকেই রাশিয়া থেকে তুরস্কের এস-৪০০ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার বিরোধীতা করছে যুক্তরাষ্ট্র। সর্বাধুনিক এই ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা ভূমি থেকে মাটিতে উৎক্ষেপণ যোগ্য। এর জের ধরে ওয়াশিংটন গত সপ্তাহে এফ-৩৫ যুদ্ধবিমানের যন্ত্রাংশ ও সেবা বন্ধ করে দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্র চাইছে রাশিয়া থেকে এস-৪০০ না কিনে শুধু তাদের প্যাট্রিয়টিক ক্ষেপণাস্ত্র কিনুক তুরস্ক। ওয়াশিংটন বলছে, রাশিয়া থেকে অস্ত্র কিনলে ন্যাটো জোটের বিধান লঙ্ঘন হবে; কিন্তু রজব তাইয়েব এরদোগানের সরকার বলেছে, তারা যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া- উভয় দেশ থেকেই সর্বাধুনিক দুই অস্ত্র কিনতে।

তবে যুক্তরাষ্ট্র যদি প্রযুক্তিগত সহযোগিতা না দেয় সেক্ষেত্রে রাশিয়ার কাছ থেকে বিকল্প সহযোগিতার প্রস্তাব পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে তুর্কি সরকার। প্রয়োজনে যন্ত্রপাতি দিয়েও সহযোগিতা করবে রাশিয়া। সূত্র: আনাদোলু


আরো সংবাদ

সকল




bedava internet