১৪ নভেম্বর ২০১৮

যুক্তরাষ্ট্র বিরোধী জোট গড়তে তুরস্কের আহ্বান

যুক্তরাষ্ট্র বিরোধী জোট গড়তে তুরস্কের আহ্বান - সংগৃহীত

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বিরুদ্ধে জোট গড়ে তুলতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। নানা ইস্যুতে যখন আমেরিকা ও তুরস্কের মধ্যে টানাপড়েন দেখা দিয়েছে এবং তুরস্কের বিরুদ্ধে অর্থনৈতিক শস্তিমূলক ববস্থা নিয়েছে মার্কিন প্রশাসন তখন জোট গঠনের এই আহ্বান জানালো আঙ্কারা। মধ্যপ্রাচ্যে দীর্ঘদিন ধরে তুরস্ক ছিল আমেরিকার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ মিত্র।

তুরস্কের অর্থমন্ত্রী বেরাত আলবায়রাক বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিষেধাজ্ঞা ও শূল্ক আরোপকে অন্য দেশের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত করার কাজে ব্যবহার করছেন। এ অবস্থায় নিজেদের স্বার্থে শক্তিশালী দেশগুলোর একতরফা অর্থনৈতিক সিদ্ধান্তকে প্রতিরোধ করার ক্ষেত্রে সহযোগিতা করা জরুরি। এজন্য সেরা উপায় হচ্ছে মার্কিন-বিরোধী জোট গঠন করা।

তুর্কি মন্ত্রী এ নিয়ে একটি প্রবন্ধ লিখেছেন এবং ফরেন পলিসি ম্যাগাজিন তা প্রকাশ করেছে। প্রবন্ধে তিনি বলেছেন, এখন তুরস্কের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে অন্য দেশগুলো একটা অভিন্ন কৌশল নিতে পারে যা ভবিষ্যত কৃত্রিম সংকট মোকাবেলায় কাজে লাগবে। বেরাত আলবায়রাক তার প্রবন্ধের শিরোনাম দিয়েছে-“বিশ্ব অর্থনীতি পরিচালনার জন্য আমেরিকাকে বিশ্বাস করা যায় না।

রাশিয়া, তুরস্ক ও ইরানের নয়া কৌশলে বেকায়দায় যুক্তরাষ্ট্র!

১৬ আগস্ট ২০১৮

রাশিয়া, তুরস্ক ও ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার অবৈধ নিষেধাজ্ঞার কারণে বিশ্বের দেশগুলোর কাছে ডলারের গ্রহণযোগ্যতা কমে যাচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে আন্তর্জাতিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ডলারের ব্যবহার বন্ধ হয়ে যাবে। এ মন্তব্য করেছেন রাশিয়া ও তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা।

মঙ্গলবার আঙ্কারায় তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লুর সাথে সাক্ষাতের পর এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বলেন, কয়েক বছর আগে থেকেই আমরা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নিজস্ব মুদ্রা ব্যবহারের কথা ভাবছি। ইরান ও তুরস্কের সাথে এরইমধ্যে এ ব্যাপারে সমঝোতা হয়েছে এবং চীনের সাথে সমঝোতার কাছাকাছি অবস্থায় রয়েছি।

ল্যাভরভ আরো বলেন, অন্য দেশগুলোর বিরুদ্ধে আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা সম্পূর্ণ অবৈধ; এমনকি মার্কিন আইনের সাথেই সাংঘর্ষিক।  অচিরেই আন্তর্জাতিক লেনদেনে ডলারের প্রভাব কমতে শুরু করবে এবং বিশ্বের বহু দেশ ডলারের ব্যবহার বন্ধ করে দেবে।

সংবাদ সম্মেলনে তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা আরোপের নীতির বিরোধী। ইউরোপীয় দেশগুলিও এ ব্যাপারে উদ্বিগ্ন। ইরান বিরোধী মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় অংশ নেবে না তুরস্ক। আমরা আমেরিকাকে জানিয়ে দিয়েছি, আগের মতোই ইরানের কাছ থেকে গ্যাস কেনা অব্যাহত রাখব।


আরো সংবাদ