২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

তুরস্কের অর্থায়নে লক্ষাধিক মানুষের চিকিৎসা

তুরস্কের অর্থায়নে লক্ষাধিক মানুষের চিকিৎসা - সংগৃহীত

মধ্য এশিয়ার মুসলিমপ্রধান দেশ কিরগিজিস্তানে তুর্কি অর্থায়নে নির্মিত হাসপাতালে লক্ষাধিক মানুষ চিকিৎসা পেয়েছেন। দেশটিতে গত ২৬ বছরে ৭৬০টির বেশি প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে তুরস্ক।

টার্কিশ কোঅপারেশন ও কোঅর্ডিনেশন সংস্থার (টিআইকেএ) কর্মসূচি সমন্বয়ক আলি মুসলি বলেন, কিরগিজিস্তানে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও সাংস্কৃতির ক্ষেত্রে ৭৬১টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। কিরগিজিস্তান ওই সংস্থাটির সাহায্য গ্রহণের দিক থেকে শীর্ষে রয়েছে বলে জানান তিনি।

আলি মুসলি বলেন, দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় অশ শহরে তুরস্কের অর্থায়নে নির্মিত হাসপাতালে ১ বছরে সোয়া লাখ লোককে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নের জন্য তুরস্কের সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। দেশটিতে আরো একটি কিরগিজ-টার্কিশ ফ্রেন্ডশিপ বিশকেক হাসপাতাল নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে। ২০১৭ সালে অশ অঞ্চলের আয়ু গ্রামে ভূমিধসে ২৪ জন নিহত হওয়ার পর টিআইএকে সেখানে একটি আবাসিক প্রকল্প শেষ করেছে। স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের কাছে এসব বাড়ি হস্তান্তর করা হয়েছে।

কিরগিজিস্তানের বিভিন্ন পুনর্নির্মাণ প্রকল্পেও সহায়তা করেছে তুর্কি সাহায্য সংস্থা। আলি মুসলি বলেন, একটি জাদুঘরের বাইরের দেয়ালের মার্বেল পরিবর্তনসহ বিভিন্ন সংস্কার কাজ করে দিয়েছি আমরা। সোভিয়েত আমলে নির্মিত জাদুঘরটি দ্রুতই নতুন করে উদ্বোধন করা হবে। 

১৯০০ শতকের শেষের দিকে কিরগিজিস্তান রুশ সাম্রাজ্যের অন্তর্গত হয়। ১৯২৪ সালে এটি সোভিয়েত ইউনিয়নের একটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পায়। ১৯৩৬ সালে এটিকে একটি সোভিয়েত প্রজাতন্ত্রের মর্যাদা দেয়া হয়। এটি তখন কিরগিজিয়া নামেও পরিচিত ছিল। ১৯৯১ সালে দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে। 

২৫০০ সিরিয়ানকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে তুরস্কের চিকিৎসকগণ
আনাদলু এজেন্সি ও আল জাজিরা, ০৯ এপ্রিল ২০১৮

তুরস্কের ডাক্তার সিরিয়ায় গেছেন; সিরিয়ান শরনার্থী শিবিরে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। ৭ হাজার জনকে সেবা ও সহায়তা দেয়া হচ্ছে। ২টি রিফিউজি ক্যাম্পে ৬ হাজার মেডিসিন বিতরণ করা হয়েছে। ২৫০০ জন সিরিয়ান ইতোমধ্যেই চিকিৎসা সেবা নিয়েছেন। নয়টি শাখায় বিভক্ত হয়ে চিকিৎসকরা স্বেচ্ছাসেবা প্রদান করছেন।

৬৭ জনের একটি দল সিরিয়ার আজাজ টাউনের মুকাভেমি ক্যাম্পে ৭-৮ এপ্রিল হাইরাত হিউম্যানিটেরিয়ান এইড এসোসিয়েশন এর হয়ে সেবা দিয়েছেন। চিকিৎসা সেবা ছাড়াও শিশুদের মাঝে কাপড়, জুতা, রঙিন বই, বেলুন, চকলেট ও ওয়াফল বিতরণ করা হয়েছে। ইগদি ক্যাম্পেও চিকিৎসকরা আছেন। ইতোমধ্যে শিশুরাও চিকিৎসা সেবা নিয়েছে।

ইতোপূর্বে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান বলেছিলেন, তুরস্ক এবং রাশিয়া যৌথভাবে সিরিয়ার তেল আবিয়াদে হাসপাতাল চালু করবে। সিরিয়ার পূর্ব ঘৌটা থেকে উদ্ধার করা বাসিন্দাদের চিকিৎসা দেয়া হবে সেখানে। তুরস্ক এবং রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনী মিলে মেডিক্যাল সেবা দেবে। 


আরো সংবাদ

সকল