২০ অক্টোবর ২০১৮

ইরাক মিশনের ব্যাপারে তেহরানের সাথে কথা বলবে আঙ্কারা

ইরাক মিশনের ব্যাপারে তেহরানের সাথে কথা বলবে আঙ্কারা - সংগৃহীত

 উত্তর ইরাকে কুর্দি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সামরিক অভিযান চালানোর বিষয়ে ইরানের সঙ্গে আলোচনা চালাচ্ছে তুরস্ক। আঙ্কারা বরাবরই বলে আসছে, তুরস্কে নিষিদ্ধ ঘোষিত কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টির (পিকেকে) সশস্ত্র বিদ্রোহীরা উত্তর ইরাকের কান্দিল অঞ্চলে ঘাঁটি গেড়ে রয়েছে। অঞ্চলটি ইরান সীমান্তবর্তী হওয়ায় অভিযান শুরুর আগে এ বিষয়ে তেহরানের সঙ্গে কথা বলে নিতে চায় তুরস্ক।

তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু  জানিয়েছেন, পিকেকে ইরানের জন্যও হুমকি। কান্দিল ইরান সীমান্তের খুব কাছে। আমরা তেহরানের সঙ্গে সহযোগিতামূলক যোগাযোগ বাড়ানোর চেষ্টা করছি।

তুরস্কের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নুরেতিন চানিকলি বলেছেন, উত্তর ইরাক থেকে সন্ত্রাসীদের নির্মূল করার আগ পর্যন্ত সেখানে অবস্থান করবে তুরস্কের সশস্ত্র বাহিনী। মিশন পুরোপুরি সম্পন্ন হওয়ার আগ পর্যন্ত তুর্কি সেনারা সেখানে অবস্থান করবে।

কুর্দি বিদ্রোহীদের সংগঠন পিকেকে তুরস্কে নিষিদ্ধ। দলটি প্রায় তিন দশক ধরে স্বাধীনতার দাবিতে তুরস্কের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রাম করেছে। এতে বিপুল সংখ্যক মানুষের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে।

ইরাকে পুনঃনির্বাচন হবে না: প্রধানমন্ত্রী

ইরাকে পুনরায় পার্লামেন্ট নির্বাচনের বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী হায়দার আল আবাদি। এছাড়াও ব্যালট পেপার রাখার গুদামে আগুনের ঘটনায় জড়িতরা শাস্তি পাবে বলেও জানান তিনি।

সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। আবাদি জানান, দেশটিতে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে, পেছনে ফিরে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। গেল রোববার ইরাকের রাজধানী বাগদাদে ব্যালট বাক্স রাখার সবচেয়ে বড় গুদামে ভয়াবহ আগুন লাগে।

গত ১২ই মে দেশটিতে হয়ে যাওয়া জাতীয় নির্বাচনের ভোট গ্রহণের ব্যালট পেপার ওই গুদামে সংরক্ষিত ছিল। এ ঘটনায় বেশকয়েকজন এমপি আবারও দেশটিতে নির্বাচন দিতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আহ্বান জানান।

 

 


আরো সংবাদ