২৪ জুন ২০১৯

২০১৯ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি : পর্বসংখ্যা-৭৩

বাংলা গল্প : কাঞ্চনমালা আর কাঁকনমালা
-

সুপ্রিয় প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীর শিক্ষার্থী বন্ধুরা, শুভেচ্ছা নিয়ো। আজ তোমাদের বাংলা বিষয়ের ‘গল্প : কাঞ্চনমালা আর কাঁকনমালা’ থেকে ২টি প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।
প্রশ্ন : নিচের শব্দ দিয়ে বাক্য রচনা করো।
নিঝুম, সুখ, রাজপুত্র, প্রতিজ্ঞা, টনটন, ময়ূর, পদ্মলতা, চিনচিন, ঝলমল, বাঁশি, চাঁদের আলো, রাজ্য, বিলাপ, ব্যবহার, বাঁশি, রাখাল, গয়না, ঘোড়াশাল, পিঠা, ব্যথায় টনটন করা, খুশিতে ঝলমলিয়ে ওঠা, ঝকমকিয়ে ওঠা।
উত্তর : নিঝুম : নিঝুম দুপুরে রাখাল ছেলেটি গাছতলায় বসে বাঁশি বাজায়।
সুখ : রাজা তার হারানো রাজ্য ফিরে পেয়ে এখন বেশ সুখে আছে।
রাজপুত্র : রাজপুত্র রাজকন্যার রূপ দেখে মুগ্ধ হলো।
প্রতিজ্ঞা : প্রতিজ্ঞা ভঙ্গ করলে তার পরিণাম ভালো হয় না।
টনটন : ফোড়াটা ব্যথায় টনটন করছে।
ময়ূর : মেঘের ডাক শুনে ময়ূরটি পেখম মেলে নাচছে।
পদ্মলতা : মেয়েটির বিয়েতে ঘরের মেঝেয় পদ্মলতার আল্পনা আঁকা হয়েছে।
চিনচিন : বুকটা ব্যথায় চিনচিন করছে।
ঝলমল : রাতে লাল-সবুজ আলোতে বিয়েবাড়ির চার দিক ঝলমল করছে।
বাঁশি : বাঁশির সুর শুনতে বড় মধুর লাগে।
চাঁদের আলো : চাঁদের আলোতে নদীর পানি চিকচিক করছিল।
রাজ্য : রাজা অসুস্থ হওয়ায় তার রাজ্য অচল হয়ে যায়।
বিলাপ : সড়ক দুর্ঘটনায় ছেলেকে হারিয়ে মহিলাটি বিলাপ করছিল।
ব্যবহার : নতুন বউয়ের ব্যবহারে শ্বশুরবাড়ির সবাই খুশি হলো।
বাঁশি : বাঁশির সুর শুনলেই মনটা ব্যাকুল হয়ে ওঠে।
রাখাল : রাখাল একপাল গরু নিয়ে মাঠের দিকে যাচ্ছে।
গয়না : মেয়েরা গয়না পরতে পছন্দ করে।
ঘোড়াশাল : রাজার ঘোড়াশালে এখন আর কোনো ঘোড়া নেই।
পিঠা : মায়ের হাতের তৈরী পিঠার স্বাদই আলাদা।
ব্যথায় টনটন করা Ñ খুব ব্যথা করা। সুচবেঁধা রাজার শরীর ব্যথায় টনটন করত দিনরাত।
খুশিতে ঝলমলিয়ে ওঠা Ñ মন আনন্দে ভরে ওঠা। রাখালবন্ধুর বাঁশির সুর শুনে রাজপুত্রের মন খুশিতে ঝলমলিয়ে উঠত।
ঝকমকিয়ে ওঠা Ñ ঝলমল করা। শীতের সকালে সূর্য উঠলেই চার পাশ ঝকমকিয়ে ওঠে।
প্রশ্ন : রাজা কেন মনে করলেন প্রতিজ্ঞা ভঙ্গের কারণেই তার এই দশা?
উত্তর : রাখাল ও রাজপুত্র দু’জন পরস্পরের বন্ধু ছিল। রাজপুত্র তার রাখালবন্ধুর কাছে প্রতিজ্ঞা করে বড় হয়ে সে যখন রাজা হবে তখন রাখালবন্ধুকে তার মন্ত্রী বানাবে। কিন্তু রাজপুত্র রাজা হয়ে লোকলস্কর, সৈন্যসামন্ত, রানী কাঞ্চনমালাকে পেয়ে রাখালবন্ধুর কথা ভুলে যায়। একদিন ভোরবেলা রাজার ঘুম ভাঙলে সে দেখে তার চোখ-মুখসহ সারা শরীরে সুচ গেঁথে আছে। এমনকি মাথার চুলও সুচ হয়ে যায়। রাজা বুঝতে পারে প্রতিজ্ঞা ভঙ্গের কারণেই তার এই দশা হয়েছে।

 


আরো সংবাদ