১৫ অক্টোবর ২০১৯

বাবা-মা বাড়িতে না থাকার সুযোগে মেয়েকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার

সিলেটের ওসমানীনগরে ধর্ষণের অভিযোগে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত যুবকের নাম হারুন মিয়া (৩০)। তিনি উপজেলার দয়ামীর ইউপি’র খালপাড় গ্রামের মৃত ধনাই মিয়ার ছেলে।

জানা যায়, স্থানীয় উমরপুর এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা বর্তমানে দয়ামীর এলাকার একটি কলোনির ভাড়াটিয়া এক মেয়ের (১৭) মা-বাবা বিভিন্ন অনুষ্ঠানে হারুন মিয়ার সাথে রান্নার কাজ করতেন। সে সূত্রে হারুন মিয়া প্রায়ই তাদের বাসায় আসা যাওয়া করতেন। গত ২৯ আগস্ট রাত ৯টায় হারুন মিয়া মেয়ের বাসায় যান। এসময় মেয়ের মা-বাবা বাড়ির বাইরে ছিলেন। মেয়ের ছোট ভাই-বোন ঘুমিয়ে থাকার সুযোগে নির্জন বাসায় হারুন মিয়া মেয়েটিকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। হঠাৎ মেয়েটির মা বাসায় এসে তাদের আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পান। হারুন মিয়া দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে গেলে মেয়ের মা বিষয়টি কলোনির মালিকসহ স্থানীয় লোকজনকে জানান।

পরে স্থানীয় লোকজন বিষয়টি সালিশের মাধ্যমে নিস্পত্তির আশ্বাস দিলেও বিষয়টি সুরাহা হয়নি। গত শুক্রবার বিকেলে মেয়ের মা ধর্ষক হারুন মিয়াকে একমাত্র আসামী করে ওসমানীনগর থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন। পরে পুলিশ রাতে এজাহারটি মামলা (মামলা নং-২০) হিসেবে গ্রহণ করে অভিযান চালিয়ে ধর্ষক হারুন মিয়াকে গ্রেফতার করে।

পরে শনিবার সকালে তাকে সিলেট কোর্টে হাজির করা হলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। এদিকে ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে উদ্ধার করে ডাক্তারী পরিক্ষার জন্য সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করে পুলিশ।

ওসমানীনগর থানার ওসি এসএম আল মামুন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum