১৫ অক্টোবর ২০১৯

বিয়ের প্রস্তাবে সম্মতি না দেয়ায় ২ বোনকে পিটিয়ে আহত, হাসপাতালে ভর্তি

বিয়ের প্রস্তাবে পিতা সম্মতি না দেয়ায় ক্ষোভে এক যুবতী ও তার কিশোরী বোনকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ভুক্তভোগী দুই বোনের নাম শাম্মী আক্তার শোভা ও রেজি আক্তার রুবা। শুক্রবার (২০ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের বকরতপুর গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

আহত দুই বোন শোভা ও রুবা একই গ্রামের পল্লী চিকিৎসক মো: সুজন মিয়ার মেয়ে। শুক্রবার সুজন মিয়া বাড়িতে না থাকার সুযোগে তার দুই মেয়ে ওপর হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে। আহত দুই বোনকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের বকরতপুর গ্রামের পল্লী চিকিৎসক মো: সুজন মিয়ার কন্যা শাম্মী আক্তার শোভার সাথে একই গ্রামের সবুর মিয়ার পুত্র সামাদের বিয়ের ব্যাপারে পারিবারিকভাবে মো: সুজন মিয়ামে প্রস্তাব দেয়া হয়। তবে পল্লী চিকিৎসক সুজন মিয়া সামাদের কাছে তার কন্যা শাম্মী আক্তারকে বিয়ে দিবেন না বলে অপরাগতা প্রকাশ করেন। আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে সামাদের পরিবার।

বিয়ে না দেয়ার জের ধরে শুক্রবার সুজন মিয়া বাড়িতে না থাকার সুবাদে তার যুবতী কন্যা শাম্মী আক্তার শোভা (১৮) ও কিশোরী কন্যা রেজি আক্তার রুবার (১০) ওপর হামলা করে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটে। পরে স্থানীয়রা আহত অবস্থায় শোভা ও রুবাকে নবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহত শাম্মী আক্তার শোভা জানান, তাকে ও তার বোন রেজিকে একই গ্রামের মৃত আব্দুল মন্নাফ মিয়ার ছেলে মো: ভুজন মিয়ার নেতৃত্বে সেলিম মিয়া, সামাদ মিয়া, রুজি আক্তার, শাপলা বেগম, শাফিয়া বেগম মিলে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে।

এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করবেন বলে জানান আহত শোভা ও রুবার বাবা মো: সুজন মিয়া।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum