১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হোটেলের ময়লা ফেলা হচ্ছে মসজিদ-মাদরাসার সীমানায়, দুর্ভোগ চরমে

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের বাদাঘাট বাজারের ৪টি হোটেলের সকল ময়লা-আবর্জনা ফেলা হচ্ছে মসজিদ ও মাদরাসা সীমানার ভিতরে। ফলে দুর্গন্ধে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন মসজিদের মুসল্লী, শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ। যেন দেখার কেউ নেই।

জানা যায়, উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের বৃহত্তর বাদাঘাট বাজারে অবস্থিত জামে মসজিদ, আর তার পাশেই রয়েছে বাদাঘাট রহমানীয়া দাখিল মাদরাসা। মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন শত শত মুসল্লী। পাশাপাশি ২ শতাধিক শিক্ষার্থী মাদরাসায় পড়াশুনা করছে। এর পাশে মসজিদ সংলগ্ন ডা. তাজুল ইসলাম (মুক্তিযোদ্ধা) মার্কেটে ব্যবসায়ী রয়েছে ৩০জন। এতসব মানুষকে দুর্ভোগে ফেলেছে বাদাঘাট বাজারের মেইন রোডের ৪টি হোটেল।

এই হোটেলগুলোর সকল ময়লা-আবর্জনাসহ পচাঁ খাবার ফেলা হচ্ছে হোটেলের পিছনে মসজিদ ও মাদরাসার সীমানার ভিতরে। ফলে সেখানে সৃষ্টি হওয়া ময়লার স্তুপটি এখন বৃহৎ আকার ধারণ করেছে। ময়লা-আবর্জনার দুর্গন্ধে মসজিদের মুসল্লী, মার্কেটের ব্যবসায়ী ও মাদরাসার শিক্ষার্থীদের দৈনন্দিন কাজ ও পড়াশুনায় ব্যাঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তির জন্য মুসল্লী, শিক্ষক, শিক্ষার্থী, ব্যবসায়ীসহ সর্বস্থরের লোকজন বারবার নিষেধ করার পরেও ময়লা ফেলা বন্ধ হয়নি।

মসজিদ সংলগ্ন ডা. তাজুল ইসলাম (মুক্তিযোদ্ধা) মার্কেটের ব্যবসায়ীরা বলেন, মসজিদ সংলগ্ন সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হলে দুর্গন্ধের কারণে নাক চেপে চলাফেরা করতে হয়। আমরা ব্যবসাও করতে পারছি না। দুর্গন্ধের কারণে মার্কেটে ক্রেতা কম আসে। তাই বাজার কমিটি ও মসজিদ কমিটিসহ সকল দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ সকলের কাছে হোটেলের ময়লা নির্দিষ্ট জায়গায় ফেলতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

মুক্তিযোদ্ধা মার্কেটের ব্যবসায়ী আবুল কালাম ক্ষোভের সাথে জানান, আমার মার্কেটর ৩০জন ব্যবসায়ী ব্যবসা করছে। তারা সারাক্ষণই এই দুর্গন্ধের মধ্যে থাকে। দুর্গন্ধের কারণে এসব দোকানে ক্রেতা কম আসছে। ব্যবসায়ীরা আমাকে বার বার এই বিষয়ে দ্রুত সমাধানের জন্য বলছে কিন্তু কিছুই করতে পারছি না আমি। এছাড়াও মসজিদে যেতে হলে দুর্গন্ধের কারণে নাক চেপে ধরে যেতে হয়। আর দুর্গন্ধের কারণে মসজিদে নামাজ পড়াও কঠিন।

মসজিদের মুসল্লী রফিকুল জানান, মসজিদে যেতে হলে নাক চেপে ধরে যাতায়াত করতে হয়। আর নামাজেও একই সমস্যা হয়। কারণ বাতাসে ময়লা-আবর্জনার পঁচা দুর্গন্ধ চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে। এর একটা সমাধান করা প্রয়োজন।

এ ব্যাপারে বাদাঘাট বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মাসুক মিয়া জানান, সবার দুর্ভোগের বিষয়টি বিবেচনা করে এই বিষয়ে বাজার কমিটি সবার সাথে বসে আলোচনার ম্যাধমে খুব দ্রুতই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে।


আরো সংবাদ