১৪ ডিসেম্বর ২০১৯

বিদ্যুৎবিহীন ৮ ঘণ্টায় মরলো ১০ হাজার মুরগী

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে টানা আট ঘণ্টা বিদ্যুৎ না থাকায় সিরাজনগর গ্রামের বিসমিল্লাহ পোলট্রি ফার্মের বার শতাধিক মুরগী মারা যায় - নয়া দিগন্ত

টানা ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ না থাকায় তীব্র তাপদাহের ফলে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার শতাধিক ক্ষুদ্র পোলট্রি খামারের ১০ সহস্রাধিক মুরগি মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। খামারিরা বলেছেন এতে তাদের প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ সংকটে পুরো উপজেলা জুড়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হন জনসাধারণ।

শ্রীমঙ্গল আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার (১৮জুন) দুপুরে শহরের তাপমাত্রা ছিল ৩৫ডিগ্রি সেলসিয়াস। এসময়ে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ঘোষণা অনুযায়ী চলছিল টানা ৮ ঘণ্টার লম্বা লোডশেডিং। এতে দুর্বিষহ গরমে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন সাধারণ মানুষ।

একে তো বিদ্যুৎবিহীন অবস্থা, তার উপর অসহনীয় গরমের কারণে উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নির্ধারিত সময়ের অনেক আগেই ছুটি দেয়া হয়। দীর্ঘসময় বিদ্যুৎ না থাকায় মিল, শিল্প কারখানার স্বাভাবিক কাজকর্ম বন্ধ থাকে। মার্কেট ও বিপণী বিতানগুলোতে স্বাভাবিক বেচাকেনায় ছেদ পড়ে। প্রখর রোদে নিম্নআয়ের মানুষ বিশেষ করে রিক্সাচালক ও দিনমজুরদের হাঁপিয়ে উঠতে দেখা যায়।

এর আগে গত সোমবার (১৭জুন) সন্ধ্যায় মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সদর দপ্তর কর্তৃক শুধু শহরে মাইকিং করে মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বেলা ৩টা পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকার ঘোষণা দেয়া হয়। তবে মঙ্গলবার সকাল ৮টার কিছুটা পরে বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ হলেও বেলা ৩টা ৪৮ মিনিটে উপজেলায় বিদ্যুৎ সরবরাহ চালু করা হয়। এতে করে মানুষ হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেও উপজেলার কয়েক লাখ গ্রাহক গরমে অসহনীয় ৮ ঘণ্টা কাটিয়েছেন।

এদিকে, দীর্ঘ ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকায় বেশ কিছু পোলট্রি খামারে প্রচন্ড গরমে মুরগী মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। উপজেলার আশিদ্রোন ইউনিয়নের তাজুল মিয়ার আসিফ পোলট্রি খামারের ২ লক্ষাধিক টাকা মূল্যের ৮শ, একই ইউনিয়নের খোসবাশ এলাকার ওয়াহিদ পোলট্রির ১ কেজি ৮শ’ গ্রাম ওজনের ২শতাধিক, মোহাজিরাবাদ গ্রামের ৩ কেজি ওজনের ২০টি, শিববাড়ী গ্রামের মালিক মোঃ লিটন মিয়ার পোলট্রি খামারের ১ লাখ ৩৫ হাজার টাকা মূল্যের ৪শ, ভূনবীর ইউনিয়নের সুশীল ঘোষের মালকানাধীন রাজপাড়া পোলট্রি ফার্মের ৫০ হাজার টাকা মূল্যের ৪শ, কামার পাড়ার নিপেন্দ্র সরকারের ৩৫ হাজার টাকা মূল্যের ১৬০, একই গ্রামের নূর মিয়ার ১১০, আলিশারকুল গ্রামের আব্দুল্লাহ মিয়ার ৯০, কামারপাড়া গ্রামের শান্ত সরকারের ৩ কেজি ওজনের ৭৫টি, কালাপুর ইউনিয়নের সিরাজনগর গ্রামের বিসমিল্লাহ পোলট্রি ফার্মের মালিক হাবিবুর রহমানের দুটি ফার্মের ১২শ, একই গ্রামের সুফিয়ান মিয়ার খামারের ১শ, নূরজাহান চা বাগানের মুনসুর মিয়ার খামারের ৮০টি, এম আর খান চা বাগানের মোহাজিরাবাদ গ্রামের ইব্রাহিম মিয়ার খামারের ১৬০টি, মির্জাপুর ইউনিয়নের বৌলাশী গ্রামের রোমান মিয়ার খামারের ১৫০টি, খিলগাঁও গ্রামের শাহজাহান মিয়ার খামারের ২শ’ যাত্রাপাশা গ্রামের কৃষন দে’র খামারের ১৫০টিসহ প্রায় ১০ হাজারের অধিক মুরগী মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এতে এসব ক্ষুদ্র পোলট্রি খামারিরা প্রায় সাড়ে ২০ লক্ষাধিক টাকার আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন বলে জানিয়েছেন শ্রীমঙ্গল পোলট্রি বিজনেস এসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ। তারা জানান, টানা ৮ ঘণ্টা বিদ্যুৎ না থাকায় সারা উপজেলায় ছোট বড় ৫ শতাধিক ক্ষুদ্র খামারের মধ্যে একশ’র বেশী খামারী ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। যা ১ থেকে ৩ কেজি ওজনের ১০ সহস্রাধিক মুরগী হবে। যার বাজার মূল্য প্রায় ২০ লক্ষ টাকা।

খবর পেয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর উপজেলার সিরাজনগর গ্রামের বিসমিল্লাহ পোল্ট্রি ফার্ম পরিদর্শন করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম। এসময় তিনি বলেন,‘পোল্ট্রি খামারিদের এ বিপুল ক্ষতিতে কোন সহযোগিতা করা যায় কিনা আমি ব্যক্তিগত ভাবে চেষ্টা করব।’ এসময় তিনি পোল্ট্রি ফার্ম এসোসিয়েশনের সভাপতি হাবিবুর রহমান ও সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেনকে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রনালয়ে এব্যাপারে আবেদনের পরামর্শ দেন।

জানতে চাইলে মৌলভীবাজার পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির শ্রীমঙ্গলস্থ সদর দপ্তরের জেনারেল ম্যানেজার শিবু লাল বলেন, বেশ কিছু দিন পূর্বে সাব স্টেশনের সঞ্চালন লাইনের একটি খুঁটি বিপজ্জনকভাবে ভেঙ্গে পড়ে। গেল রমজান মাসে এর ক্রটি মেরামত করার প্রয়োজন থাকলেও রমজান মাসের কথা বিবেচনায় রেখে তা করা সম্ভব হয়নি।

এতো গরম আবহাওয়ার মধ্যে কেন সঞ্চালন লাইন মেরামতের সময় বেছে নেয়া হলো- জানতে চাইলে তিনি বলেন, গরমে গ্রাহকরা কষ্ট করছেন এজন্য আমরা দুঃখিত; কিন্তু এর কোনো বিকল্প ছিলো না। ভবিষ্যত জটিলতা এড়াতে মেইন্টেন্যান্স কাজ করতে হচ্ছে।


আরো সংবাদ

সকল




hacklink Paykwik Paykasa
Paykwik