২১ মে ২০১৯

মায়া হরিণটি ধরে ফেলল জনতা

মায়া হরিণটি ধরে ফেলল জনতা - ছবি : সংগ্রহ

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার মেঘালয় পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত সীমান্তবর্তী বারেক টিলা এলাকায় একটি মায়া হরিণ আটক করেছে স্থানীয় জনতা। শনিবার দুপুরে ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের ঘোমাঘাট নামক এলাকা হতে খাদ্য আহরণের জন্য হরিণটি সীমান্ত এলাকা অতিক্রম করে বাংলাদেশে প্রবেশ করলে স্থানীয় লোকজন হরিণটিকে আটক করে।

এ ব্যাপারে লাউড়েরগড় গ্রামের জামাল উদ্দিন বলেন, আজকে হরিণটি সীমান্তে কাটাতারের বেড়া অতিক্রম করে বাংলাদেশের সীমান্তে প্রবেশ করে। এসময় এলাকাবাসী কৌশলে হরিণটিকে আটক করে। পরে লাউড়েরগড় বিওপির সদস্যরা হরিণটি উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

এ ব্যাপারে লাউড়েরগড় বিওপির হাবিলদার হান্নান হরিণটি উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তারা হরিণটিকে সুনামগঞ্জ ব্যাটালিয়নে হস্তান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ ২৮ বিজিবির পরিচালক মোঃ মাকসুদুল আলম বলেন, হরিণ উদ্ধারের বিষয়টি আমরা হেড কোয়ার্টারে জানিয়েছি, অনুমতি পেলে চিড়িয়াখানা বা সাফারি পার্কে হস্তান্তর করব।

সুনামগঞ্জের সাবেক সংসদ সদস্য মজিদ মাস্টারের ইন্তেকাল

সিলেট ব্যুরো
সুনামগঞ্জের প্রবীন রাজনীতিবিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ মাস্টার গতকাল শনিবার সকাল পৌনে নয়টায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টজনিত কারণে আইএলডি রোগে ভুগছিলেন।

অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ মাস্টার '৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯১ সালে সুনামগঞ্জ-৫ (ছাতক-দোয়ারাবাজার) আসন থেকে জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। দোয়ারাবাজার উপজেলার বাসিন্দা হিসেবে তিনি ওই আসনে প্রথমবারের মতো সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

এর আগে ১৯৮০ সালে শিক্ষকতার পেশায় মনোনিবেশ করে টানা ১০ বছর দোয়ারাবাজার মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান শিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৯ সালে তিনি শিক্ষকতার পাশাপাশি আইন পেশায় জড়িত হন। ২০০৯ সাল থেকে ৫ বছর তিনি সুনামগঞ্জ জজকোর্টের কৌঁসুলির (পিপি) দায়িত্ব পালন করেন।

২০০৯ সালে সুনামগঞ্জ-৪ (সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনের জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য বেগম মমতাজ ইকবালের মৃত্যুর পর তিনি জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি নির্বাচিত হন। এ ছাড়া তিনি জেলা পরিষদ প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে প্রথমবারের মতো জেলা পরিষদ সদস্য মনোনীত হয়েছিলেন। মৃত্যুর আগ মুহূর্ত পর্যন্ত তিনি দোয়ারাবাজার মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন।


আরো সংবাদ




agario agario - agario