১৯ নভেম্বর ২০১৮

গোলাপগঞ্জে পৌরসভা উপ-নির্বাচনে ৫ মেয়র প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল

-

সিলেটের গোলাপগঞ্জ পৌরসভা উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামীলীগ বিএনপিসহ ৫ সম্ভাব্য প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন। রোববার বিপুল উৎশাহ উদ্দিপনার মাধ্যমে সমর্থকদের নিয়ে প্রার্থীরা জেলা সিনিয়র নির্বাচন অফিসার ও পৌরসভা উপ-নির্বাচনের রিটানিং অফিসার খোরশেদ আলমের কাছে এ মনোনয়নপত্র দাখিল করা হয়।
বিকেল ৩টায় প্রথমে মনোনয়নপত্র দাখিল করেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও যুক্তরাজ্য যুবলীগের যুগ্ন সম্পাদক আমিনুল ইসলাম রাবেল। এর পর পর্যাক্রমে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নৌকা প্রতিকে জাকারিয়া আহমদ পাপলু মনোনয়নপত্র জমা দেন। এর পর মনোনয়নপত্র জমা দেন পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি, সমাজসেবী ও সতন্ত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া চৌধুরী শাহিন, বিকেল সাড়ে ৪টায় মনোনয়নপত্র জমা দেন জেলা বিএনপি নেতা ও সাবেক উপজেলা বিএনপির সেক্রেটারী মহিউস্সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস (সতন্ত্র), সর্বশেষে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী পৌর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক রাজু আহমদ চৌধুরী মনোনয়নপত্র জমা দেন। ধানের শীষের রাজু আহমদ চৌধুরীর মনোনয়ন জমা দিতে প্রার্থীরা নিজ নিজ কর্মী বহর নিয়ে আসেন উপজেলা চত্ত্বরে। এ সময় নিজ নিজ প্রার্থীদের পক্ষে শ্লোগান দেন কর্মী-সমর্থকরা। উচ্ছ্সা আর উল্লাসে ছড়িয়ে পড়ে উপজেলা চত্ত্বর। বিভিন্ন প্রার্থীদের সাথে কর্মী-সমর্থকরা আসার ফলে গোটা উপজেলা চত্ত্বর ছিল এক মিলন মেলা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রাখতে আইনশৃংখলা বাহিনী মোতায়েন ছিল উপজেলা চত্ত্বরে। পুলিশের পাশাপাশি গোয়েন্দা সংস্থার লোকজনও ছিল নিরাপত্তার দায়িত্বে। প্রথম থেকেই আওয়ামীলীগ প্রার্থী ঠিক থাকলেও বিএনপিতে ছিল হ-য-ব-র-ল অবস্থা। জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মহিউস্সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিসকে ধানের শীষ দেয়ার একদিন পর তিনি প্রতিক ফিরিয়ে দেন। ফলে বেকায়দায় পড়ে বিএনপি। প্রার্থী ঠিক করতে হিমশিম খাওয়ার পর অবশেষে কোন উপায়ন্ত না দেখে পৌর সেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি রাজু আহমদ চৌধুরীকে দলের মনোনয়ন দেয়া হয়। শনিবার রাতে দলের পক্ষ থেকে এ সিদ্ধান্ত নেয়ার পর সাংবাদিকদের জানান বিএনপির নেতৃবৃন্দ। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার সময় উপস্থিত ছিলে উপজেলা নির্বাচন অফিসার সাইদুর রহমান।
সাবেক মেয়র পৌর মেয়র সিরাজুল জব্বার চৌধুরী ৩১ মে মারা যাওয়ার পর ১ মাস ১১দিন পর ১১ জুলাই মেয়র পদটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয় এ পদটি শূন্য ঘোষণা করার পর ৩ সেপ্টেম্ভর সোমবার এ উপ-নির্বাচনের তফশীল ঘোষণা করা হয়। আজ সোমবার ৩ ঘটিকায় মনোনয়নপত্র বাছাই করা হবে। আগামী ৩ অক্টোবর এ নির্বাচন অনুষ্টিত হবে। সমগ্র পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা রয়েছে ২১ হাজার ৩৪৪। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার রয়েছে ১০হাজার ৮১৬জন এবং মহিলা ভোটার রয়েছে ১০ হাজার ৫২৮জন।


আরো সংবাদ