২২ জুন ২০১৮

ওসমনীনগরে বিদ্যুতের দাবীতে মহাসড়ক অবরোধ

-

সিলেটের ওসমনীনগরে বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিংয়ে ক্ষুদ্ধ মানুষ মহাসড়ক অবরোধ করেছে। শনিবার উপজেলার গোয়ালাবাজার ও দয়ামীরে মহাসড়ক অবরোধ করলে শত শত যান আটকা পড়ে।
খবর পেয়ে ওসমানীনগর থানার ওসি মোহাম্মদ সহিদ উল্যা গোয়ালাবাজারে গিয়ে অবরোধকারীদের সাথে আলোচনা করে অবরোধ তুলে দেন।
এদিকে শুক্রবার রাতে উপজেলার দয়ামীরবাজারে বিদ্যুতের দাবীতে মহা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষুদ্ধ জনতা। তখন মহাসড়কে শত শত যা আটকা পড়লে স্থানীয় গন্য মান্য ব্যক্তিবর্গের মাধ্যমে অবরোধ তুলে নেয় অবরোধকারীরা।
প্রসঙ্গত ওসমানীনগর উপজেলার ৮ ইউনিয়ন ও বালাগঞ্জ উপজেলার ৬ ইউনিয়নে তীব্র লোড শেডিং চলছে। পবিত্র রমজান মাসে সেহরী ইফতার ও তারাবীহ’র সময়ে প্রায়ই বিদ্যুত থাকেনা। তাছাড়া দিনের বেলায় বেশির ভাগ সময় এলাকায় বিদ্যুত থাকেনা। তীব্র লোডশেডিং এ জনজীবন প্রায় নাকাল হয়ে পড়েছে।
দুই উপজেলার ১৪ ইউনিয়নে বিদ্যুতের গ্রাহক রয়েছেন প্রায় ৭০ হাজার। বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে ১৫ মেগাওয়াট। কিন্তু লোড দেয়া হয়ে থাকে মাত্র ১০ মেগাওয়াট বিদ্যুত। সিলেটের কুমারগাঁওস্থ ১৫০ মেগাওয়াট প্লান্ট অকেজো থাকায় চাহিদার আলোকে বিদ্যুত লোড পাওয়া যাচ্ছেনা। তাছাড়া তীব্র তাপদাহ থাকলে মেশিন গরম হয়ে যায় বলে পুরো লোডও নেওয়া যায়না বলে বিদ্যুত অফিস সূত্র জানিয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে এলাকার লোকজন বিদ্যুতের লোডশেডিংএ বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছেন।
এ ব্যপারে উপজেলার কাশিকাপন পল্লীবিদ্যুত অফিসের এজিএম কম আবু হানিফ বলেন,নতুন একটি গৃড চালু করার জন্য গেল দু’দিন এলাকায় লোড শেডিং ছিল। শহরের কুমারগাঁও এ ১৫০ মেগাওয়াট প্লান্টে কাজ চলছে তাই লোড শেডিং হচ্ছে। নতুন গৃড চালু ও কুমারগাঁও এর প্লান্ট মেরামত হলে লোড শেডিং কমবে। এবং তীব্র তাপদাহ হলে মেশিন হিট হয়ে যায়, এতে লোড কম নিতে হয়। তাই অনেক সময় তীব্র গরমে লোড শেডিং থাকে।


আরো সংবাদ