১৪ নভেম্বর ২০১৯

পাকিস্তানে সরকার ও বিরোধী দলের আলোচনায় অগ্রগতি

পাঞ্জাব বিধানসভার স্পিকার চৌধুরী পারভেজ এলাহি বলেছেন, আজাদি মার্চ নিয়ে সরকার ও বিরোধীদের মধ্যে আলোচনায় ‘ইতিবাচক অগ্রগতি’ হচ্ছে। গতকাল বুধবার জামিয়াত উলেমা-ই-ইসলাম-ফজল (জেইউআই-এফ) প্রধান মাওলানা ফজলুর রহমানের সাথে তার বাসভবনে সাক্ষাৎ শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

পারভেজ এলাহী বলেন, ‘একাধিক প্রক্রিয়া’ একই সাথে চলছে। তবে যেকোনো অগ্রগতির জন্য ‘ধৈর্য ও কঠোর পরিশ্রম’ দরকার। তিনি ফজলুর রহমানকে সরকারের সাথে আলোচনার আহ্বান জানান। এর আগে পাকিস্তানের ধর্মবিষয়ক মন্ত্রী নুরুল হক কাদেরি বলেন, মাওলানা ফজলুর রহমানের অতীতের কর্মপন্থায় দেখা যায়, তিনি সবসময় বিভিন্ন বিকল্প উন্মুক্ত রাখেন এবং ইতিবাচক থাকেন। তিনি সমঝোতার রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন। সুতরাং অচলাবস্থা নিরসনের কোনো না কোনো পথ অবশ্যই বেরিয়ে আসবে বলে তিনি নিশ্চিত। ধর্মমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের যে দাবি বিক্ষোভকারীরা তুলেছেন, তা পূরণ হওয়ার মতো নয়।

তিনি প্রশ্ন তোলেন, যে সরকারের পক্ষে লাখ লাখ ভোট পড়েছে, ১৫-২০ হাজার মানুষের জমায়েতে তার অবসান হবে কিসের ভিত্তিতে? তিনি বলেন, অন্যান্য দাবির মধ্যে নির্বাচন কমিশন শক্তিশালী করা নিয়ে উভয় পক্ষের বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। কাদেরি বলেন, বিরোধীদলীয় কমিটিকে বলা হয়েছে, আমরা যখন কমিশনকে শক্তিশালী, স্বাধীন ও ক্ষমতাবান করব, তখন তারা নিজেরাই সিদ্ধান্ত নিতে পারবে। তারা সেনাবাহিনীর আগমন চান কি না, তা পরিস্থিতি অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেবে।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগের দাবিতে ‘আজাদি মার্চ’-এর ব্যানারে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে বিরোধীরা। গত ২৭ অক্টোবর সিন্ধু প্রদেশ থেকে গাড়ি নিয়ে লংমার্চ শুরু হয়। ৩০ অক্টোবর সেই গাড়িবহর পাঞ্জাব ছেড়ে লাহোরে পৌঁছায়। আর ৩১ অক্টোবর গাড়িবহরটি ইসলামাবাদে পৌঁছে দাবির পক্ষে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ জানায়। সূত্র : ডন।


আরো সংবাদ