১৬ অক্টোবর ২০১৯

পরমাণু যুদ্ধের হুমকি পাকিস্তানের

ইমরান খান ও নরেন্দ্র মোদি - ছবি : সংগৃহীত

ভারত-পাক পরমাণু যুদ্ধের সমুহ আশঙ্কা রয়েছে। আল জাজিরা চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাতকারে স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। শনিবার ইমরান খান বলেছেন, ‘আমি নিশ্চিত দুটি পরমাণু শক্তিধর দেশের মধ্যে যদি যুদ্ধ হয়, তাহলে তা পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহারের দিকেই যায়। আমি যদি পাকিস্তানের কথা বলি, আল্লাহ না করুন, আমরা যদি যুদ্ধে হারের পর্যায়ে পৌঁছে যাই, তখন আমাদের কাছে দুটি রাস্তা খোলা থাকবে। হয় আত্মসমর্পণ করা, নইলে নিজেদের মৃত্যু পর্যন্ত স্বাধীনতার জন্য লড়াই করা’

এরপরই কাপ্তানের সংযোজন, ‘এরকম পরিস্থিতি হলে পাকিস্তান নিজেদের মৃত্যু পর্যন্ত স্বাধীনতার জন্য লড়াই করবে। আর যখন পমাণু শক্তিধর দুই দেশ স্বাধীনতার জন্য লড়াই করে, তার তীব্রতা অনেক ভয়ঙ্কর হয়।’
এর মাধ্যমে ইমরান খান কার্যত পরমাণু যুদ্ধের দিকেই ইঙ্গিত দিনে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এর আগে ইমরান বলেছিলেন, ‘আমি যুদ্ধের পক্ষে নই। মনে করি না যুদ্ধ কোনো সমস্যার সমাধান করতে পারে। ‘ তার সঙ্গে যুক্ত করে সাক্ষাতে তিনি জানান, ‘এই লড়াই যাতে না হয়, সে জন্যই একাধিকবার জাতিসঙ্ঘের কাছে পাকিস্তান আবেদন করেছে, সব আন্তর্জাতিক কমিটির কাছে আবেদন করা হয়েছে। কারণ যদি এই যুদ্ধ হয়, তার প্রভাব কিন্তু শুধুমাত্র দু’দেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে না। তা গোটা পৃথিবী তার প্রভাব পড়বে।’ কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে আলোচনায় না বসারও অভিযোগ করেছেন ইমরান।

জম্মু-কাশ্মীরের স্পেশ্যাল মর্যাদা রদ করেছে মোদি সরকার। জারি করা হয়েছে কঠোর বিধি নিষেধ। নয়াদিল্লির এই পদক্ষেপের পরই প্রতিবাদ জানায় ইসলামাবাদ। জাতিসঙ্ঘ, আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কাউন্সিল, আন্তর্জাতিক আদালতে একাধিকবার আবেদন করেছে ইমরান সরকার।

 


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum