২৩ আগস্ট ২০১৯

গুপ্তচর কুলভূষণের রায় পুণর্বিবেচনা করতে বলছে আন্তর্জাতিক আদালত

-

পাকিস্তানের সামরিক আদালতে দেয়া ভারতীয় গুপ্তচর কুলভূষণ যাদবের মৃত্যুদণ্ডের রায় পূণর্বিবেচনা করা উচিত বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক আদলত। পাশাপাশি কুলভূষণকে কনস্যুলার অ্যাকসেস(দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সাথে দেখা করার অনুমতি) দেওয়ার নির্দেশ এ দিন দিয়েছে আন্তর্জাতিক আদালত। বুধবার আন্তর্জাতিক আদালতের ১০ সদস্যের বিচারপতির প্যানেল এই পর্যব্ক্ষেণ দিয়েছে।

কুলভূষণের বিচার হয়েছিল পাকিস্তানের সামরিক আদালতে। এ দিন আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে বলা হয় কুলভূষণের বিচার হওয়া উচিত ফৌজদারি আদালতে। পাশাপাশি ভারতের পক্ষ থেকে কুলভূষণকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবি প্রত্যাখান করেছে আন্তর্জাতিক আদালত।

ইরান থেকে পাকিস্তানে গিয়ে গ্রেফতার হন ভারতীয় নৌবাহিনীর অফিসার কুলভূষণ। ইরান-পাকিস্তান সীমান্ত এলাকায় গুপ্তচরবৃত্তির দায়ে তাকে গ্রেফতার করে পাকিস্তান। সেই মামলাতেই পাকিস্তানের সামরিক আদালত তার মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেয়। সেই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করেই আন্তর্জাতিক আদালতে যায় ভারত। কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড বাতিলের আবেদন করে ভারত। কিন্তু তাদের সেই আবেদন গৃহীত হয়নি।

২০১৬ সালের ৩ মার্চ বালুচিস্তান প্রদেশ থেকে কুলভূষণকে গ্রেফতার করে পাকিস্তানের নিরাপত্তা বাহিনী। তারপর ২০১৭ সালের এপ্রিলে কুলভূষণকে মৃত্যুদণ্ড দেয় পাক সামরিক আদালত। ভারতের দাবি, নৌবাহিনী থেকে অবসর নেওয়ার পর ইরানে ব্যবসায়িক কাজে গিয়েছিলেন কুলভূষণ। সেখান থেকে তাকে অপহরণ করা হয়।

আন্তর্জাতিক আদালতে ভারতের আরও অভিযোগ ছিল, ৪৯ বছর বয়সী অবসরপ্রাপ্ত নৌ বাহিনী অফিসার কুলভূষণের সঙ্গে পাকিস্তানে ভারতীয় হাইকমিশনের সদস্যদের দেখা করতে (কনস্যুলার অ্যাকসেস) দেওয়া হচ্ছে না।
কুলভূষণকে কনস্যুলার অ্যাকসেস না দিলেও পাকিস্তান ২০১৭ সালের ২৫ ডিসেম্বর ইসলামাবাদে তার স্ত্রী ও মায়ের সঙ্গে ওই নৌ বাহিনী অফিসারের সাক্ষাতের সুযোগ করে দেয়।


আরো সংবাদ




mp3 indir bedava internet