১৬ জুলাই ২০১৯

সরকারি কর্মকর্তাদের আবারো পেটানোর হুমকি সেই এমপির

সরকারি কর্মকর্তাদের আবারো পেটানোর হুমকি সেই এমপির - ছবি : সংগৃহীত

ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে পৌর কর্মকর্তাকে পেটালেন ভারতের ক্ষমতাসীন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়র ছেলে তথা ইন্দোরের এমপি আকাশ বিজয়বর্গীয়। কয়েক ঘণ্টা টালবাহানার পর বুধবার বিকেলে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এদিন, মধ্যপ্রদেশ রাজ্যের গঞ্জি এলাকায় অবৈধ নির্মাণ ভাঙতে অভিযান চালায় ইন্দোর পৌরসভা। এর বিরুদ্ধেই বিক্ষোভ দেখাতে থাকে স্থানীয়রা। দলবল নিয়ে সেখানে হাজির হন কৈলাস-পুত্র আকাশও। অবিলম্বে অভিযান বন্ধ করার দাবি জানান তিনি। পুরকর্মীরা কথা না শোনায়, কর্মকর্তাদের সঙ্গে একদফা বচসা হয় তার। এরপরও কাজ বন্ধ না করায়, ব্যাট দিয়ে এক কর্মকর্তাকে মারতে শুরু করেন আকাশ। পাশাপাশি, সেখানে উপস্থিত বিজেপি কর্মীরাও ওই কর্মকর্তাকে শারীরিকভাবে হেনস্তা করে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার পর দলবল নিয়ে এমজি রোড থানায় হাজির হন আকাশ। সেখানে যোগ দেয় আরো বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। এদিকে, অনেকেই ঘটনাটি মোবাইলে রেকর্ড করেন। সেইসঙ্গে, টিভি চ্যানেলেও ঘটনাটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। কিছুক্ষণের মধ্যেই ভাইরাল হয়ে যায় কর্মকর্তা পেটানোর ভিডিও। তবে কৈলাস-পুত্র হওয়া সত্ত্বেও তার জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেছে। আকাশসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে এফআইআর করেছে পুলিশ।

এই নিয়ে তুমুল বিতর্ক তৈরি হলেও নিজের অবস্থান থেকে পিছু হটতে নারাজ কৈলাস-পুত্র। এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে পৌর কর্মকর্তাদের ‘দুর্নীতিগ্রস্ত’ বলে আকাশের স্পষ্ট বার্তা, প্রয়োজন আবারো তিনি এই কাজ করবেন। এব্যাপারে দলের সমর্থন আছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন স্থানীয় বিধায়ক।
তার কথায়, ‘এ তো সবে শুরু। দুর্নীতি ও গুণ্ডাগিরিকে আমরা এভাবেই শেষ করব। দল আমাদের এভাবেই কাজ করতে শেখায়। প্রথমে, আবেদন-নিবেদন, তাতে কাজ না হলে ধানা ধন (মারধর)।’
অন্যদিকে, পৌরসভার বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে তার সংযোজন, ‘বাড়িগুলো যথেষ্ট ভালো অবস্থায় আছে। এগুলি ভেঙে ফেলার দরকার নেই। কিন্তু পৌর কর্মকর্তারা বাড়ির মালিকের সঙ্গে চক্রান্ত করে এগুলো ভেঙে দিতে চাইছে।’ এই ব্যাপারে কংগ্রেসের বিরুদ্ধেও তোপ দেগেছেন আকাশ। তার অভিযোগ, ‘বাড়িগুলো ভেঙে ফেলে সেই জায়গা কংগ্রেস নেতাদের হাতে তুলে দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।’

ঘটনার সমালোচনা করেছে কংগ্রেস। দলের মুখপাত্র নীলাভ শুক্লা বলেন, ‘এক বিজেপি বিধায়ক আইন ভাঙছেন। ইন্দোর পৌরসভার মেয়রও বিজেপির টিকিটে জিতে আসা জনপ্রতিনিধি। বিজেপির দলীয় কোন্দল প্রকাশ্যে চলে এল।’
তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘এই ঘটনা থেকে বাংলার মানুষের জানা উচিত, কাদেরকে তারা এরাজ্যে ভোট দিয়েছে। সাম্প্রদায়িকতার বিষ বিজেপির দেহের ছত্রে ছত্রে। সেই বিষ এবার এই রাজ্যেও ছড়িয়ে দিচ্ছে তারা।’

সূত্র : পিটিআই


আরো সংবাদ

বেসরকারি টিটিসি শিক্ষকদের এমপিওভুক্তির দাবিতে স্মারকলিপি কলেজ শিক্ষার্থীদের শতাধিক মোবাইল জব্দ : পরে আগুন ধর্ষণসহ নির্যাতিতদের পাশে দাঁড়াতে বিএনপির কমিটি রাজধানীতে ট্রেন দুর্ঘটনায় নারীসহ দু’জন নিহত রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের রাষ্ট্রপতির ক্ষমাপ্রাপ্ত আজমত আলীকে মুক্তির নির্দেশ আপিল বিভাগের কাল এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ এরশাদের মৃত্যুতে ড. ইউনূসের শোক ক্ষমতার অপব্যবহার করবেন না : রাষ্ট্রপতি ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ১০ সদস্যের হজ প্রতিনিধিদল সৌদি আরব যাচ্ছেন

সকল




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi