২৩ জুলাই ২০১৯

২০২৫ সালের পর পাকিস্তান ভারতের অংশ হয়ে যাবে!

ভারত
২০২৫ সালের পর পাকিস্তান ভারতের অংশ হয়ে যাবে বলে দাবি আরএসএস নেতা কুমারের - ছবি : ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

আগামী ২০২৫ সালের পর পাকিস্তান ভারতের অংশ হয়ে যাবে- এমনই মন্তব্য ভারতের হিন্দুত্ববাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) শীর্ষ নেতা ইন্দ্রেশ কুমারের।

শনিবার কাশ্মীর ইস্যুতে মুম্বাইয়ে এক সমাবেশে তিনি এ মন্তব্য করেন। খবর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের।

খবরে প্রকাশ, উগ্রবাদী সংগঠনটির এ নেতা বলেন, ১৯৪৭ সালের আগে পাকিস্তান ছিল না। ১৯৪৫ সালের আগে মানুষ পাকিস্তানকে হিন্দুস্তানের অংশ বলত। ২০২৫ সালের পর এটি আবারো হিন্দুস্তানের অংশ হয়ে যাবে।

আরএসএস নেতা আরো বলেন, ‘লিখে রাখুন, পাঁচ-সাত বছর পর করাচি, লাহোর, রাওয়ালাপিন্ডি ও শিয়ালকোটে ঘরবাড়ি কিনতে বা ব্যবসা করতে পারবেন আপনারা।’

‘অখণ্ড ভারতের’ স্বপ্ন দেখা এ নেতার দাবি- দিল্লি এটা নিশ্চিত করেছে যে, বাংলাদেশ সরকারও এ ব্যাপারে অনুকূলে রয়েছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের মতো সীমানা হবে অখণ্ড ভারতের।

তার বক্তৃতায় ছিল চীনের পাকিস্তানের সহায়তার প্রসঙ্গও। তিনি বলেন, ‘আমরা জেনেছি চীন পাকিস্তানকে আন্তর্জাতিকভাবে গ্রাস করতে চায়। চীন পাকিস্তানকে সহায়তা করতে চায়, কারণ আমরা তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ছাড়াই যুদ্ধে জয়ী হয়েছি। আমরা ডোকলাম থেকে চীনকে সরিয়ে দিয়েছি। যেখানে বিশ্ব জানে চীন পরাজিত হয় না, সেখানে আমরা তাদের পরাজিত করেছি। আর এ জন্যই তারা ক্ষুব্ধ।’

আরএসএস সমর্থিত সংগঠন মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ আয়োজিত এ সমাবেশে কুমার জম্মু-কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা নিয়ে প্রশ্ন তুলেন। বলেন, সংবিধান বলছে দেশ এক, নাগরিকত্ব এক আর পতাকাও এক। সব রাজ্যের জন্য এটা প্রযোজ্য হলে কাশ্মিরের জন্য কেন আলাদা সংবিধান, পতাকা ও নাগরিকত্ব থাকবে?- প্রশ্ন তার।

আরো পড়ুন :
পুরো পাকিস্তান জ্বালিয়ে দেয়া উচিত : বিজেপি নেতা
নয়া দিগন্ত অনলাইন, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
ভারতের হায়দরাবাদের এক বিজেপি বিধায়ক বলেছেন, ভারতীয় বিমানবাহিনীর উচিত ছিল পুরো পাকিস্তানকে জ্বালিয়ে দেয়া। বিজেপির এমএলএ রাজা সিংয়ের ভাষায়, সন্ত্রাসীদের লালন-পালন এবং ভারতে হামলায় উৎসাহ দেয়ার অভিযোগে এ ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

পুলওলামা হামলায় পাকিস্তানকে দায়ী করে গত মঙ্গলবার পাকিস্তানে হামলা চালানোর দাবি করে ভারত। পরে আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে তারা জানায়, পাকিস্তানের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে তারা বেশ কয়েকটি সশস্ত্র সংগঠনের ঘাঁটি বিধ্বস্ত করেছে। এতে সেখানে থাকা প্রচুর লোকজন নিহত হয়।

পাকিস্তান অবশ্য তাদের এ দাবি উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, তারা আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছিল। কিন্তু পাকিস্তানি বিমানবাহিনীর তাৎক্ষণিক প্রতিরোধের মুখে তারা পালিয়ে যায়। তবে আকাশসীমা লঙ্ঘনের এ ঘটনায় তারা যথাসময়ে সমুচিত জবাব দেবে।

এদিকে পাকিস্তানে হামলার এ খবর শুনে পুরো ভারত উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে। রাজা সিং এ সংবাদ শুনে বলেন, পুলওলামায় সিআরপিএফের গাড়িবহরে সাম্প্রতিক প্রতিশোধ নিতে ভারতের বিমানবাহিনীর নায়কদের উচিত ছিল পাকিস্তানকে আরো ভালোভাবে শিক্ষা দেয়। পুরো শত্রুদেশই জ্বালিয়ে দেয়া উচিত ছিল।

সামাজিক গণমাধ্যমে পাওয়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, রাজা সিং বলছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি সিআরপিএফের জওয়ানদের ওপর হামলার প্রেক্ষিতে যে প্রতিশোধ নেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তা রক্ষা করেছেন। ভারতের বিমানবাহিনী পাকিস্তানে যে হামলা চালিয়েছে তাতে দেশের জনগণ সন্তুষ্ট। ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী পাকিস্তানকে যথোপযুক্ত জবাব দিয়েছে।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi