১৯ নভেম্বর ২০১৮

বাসা থেকে পাকিস্তানি মডেলের লাশ উদ্ধার

পাকিস্তানি মডেল তানোলি - ছবি : সংগ্রহ

লাহোরের নিজ বাসা থেকে পাকিস্তানের এক উঠতি মডেলের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। অল্প দিনের ক্যারিয়ার হলেও বেশ জনপ্রিয়তা পাওয়া ওই মডেলের নাম আনাম তানোলির (২৬)।

পুলিশ বলছে, তিনি আত্মহত্যা করেছেন। শনিবার লাহোরের বাসভবন থেকে এই মডেলের লাশ ঝুলন্ত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার করে স্থানীয় জিন্নাহ হাসপাতালে পাঠায় পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, তারা আনামের বাসভবনে গিয়ে দেখতে পায় একটি সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছেন তিনি। সেখান থেকে নামিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এদিকে পরিবার জানিয়েছে, আনাম তানোলি মারাত্মক হতাশায় ভুগছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে, তাঁর মায়ের বক্তব্য রেকর্ড করা হয়েছে।আরো অনুসন্ধান চলছে।

মডেলিংয়ের পাশাপাশি একজন ফ্যাশন ডিজাইনার ছিলেন তানোলি। পাকিস্তানি ফ্যাশন ইন্ডাস্ট্রিতে তার ব্যাপক সুনাম ছড়িয়ে পড়েছে ইতোমধ্যেই। দুই মাস আগে তিনি ইতালি থেকে দেশে ফিরেছেন।

আরো পড়ুন : পাকিস্তানে অশ্লীল চলচ্চিত্রের বিলবোর্ড নিষিদ্ধ

পাকিস্তানের পাঞ্জাবে অশ্লীল চলচ্চিত্রের বিলবোর্ড নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন প্রদেশটির নতুন তথ্যমন্ত্রী ফয়জ-উল-হাসান চোহান।  লাহোরের পূর্বাঞ্চলীয় একটি শহরে এক জনসভায় চোহান বলেন, তিনদিন পর থেকে যদি পাঞ্জাবের কোনো হলে অশ্লীল বিলবোর্ড পাওয়া যায়, তবে ঘটনাস্থলেই কর্তৃপক্ষকে জরিমানা করা হবে। এই নির্দেশ অমান্য করলে হল বন্ধ করে দেয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, অর্ধনগ্ন নারীর ছবি ছাপা এবং তা বড় বিলবোর্ডে রাখার মধ্যে এমনকি মানবতা আছে? বামপন্থী রাজনীতিবিদ এবং মানবাধিকারকর্মী আম্মার রশিদ এক টুইট বার্তায় এ নিয়ে সমালোচনা করেছেন।


চোহানকে গত সপ্তাহে ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ নিয়োগ দেয়ার পর থেকে একের পর এক বিতর্ক সৃষ্টি করে চলেছেন তিনি। তিনি ২০১১ সালে পাঞ্জাবের গভর্নরের হত্যাকারীর কবর জিয়ারত করেন, যাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেয়া হয়। এছাড়া তিনি দেশটির জনপ্রিয় গায়িকা ও অভিনেত্রী নার্গিসকে নিয়ে সমালোচনামূলক মন্তব্য করেন।

গত জুলাই মাসে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ইমরানের জয়ে বড় ভূমিকা রাখে ইসলামপন্থী দলগুলো। জামায়াত-ই-ইসলামি পাকিস্তান পার্টি থেকে তেহরিক-ই-ইনসাফে যোগ দেন চোহান।

পাকিস্তানের প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি তাহিরা

সাইয়েদা তাহিরা সাফদার নামে একজন নারী বিচারপতিকে পাকিস্তানের বেলুচিস্তান হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এরইমধ্যে তিনি শপথ আনুষ্ঠানিকভাবে নিয়েছেন।

পাকিস্তানের ইতিহাসে এই প্রথম কোনো নারীকে প্রধান বিচারপতি নিয়োগ দেয়া হলো।  


বেলুচিস্তানের গভর্নর মুহাম্মাদ খান আচাকজাই প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটার গভর্নর ভবনে বিচারপতি তাহিরার শপথ পড়ান। শপথ অনুষ্ঠানে সিনিয়র  বিচারক ও আইনজীবীরা উপস্থিত ছিলেন।  

বিচারপতি সাফদার তাহিরা হচ্ছেন বেলুচিস্তান হাইকোর্টের ১৮তম প্রধান বিচারপতি। তিনি সাবেক প্রধান বিচারপতি মুহাম্মাদ নূর মুসকানজাইয়ের স্থলাভিষিক্ত হবেন।

এর আগে সাফদার তাাহিরাই ছিলেন বেলুচিস্তান প্রদেশের প্রথম সিভিল জজ এবং পরবর্তীতে তিনি সুনামের সঙ্গে বেলুচিস্তান হাইকোর্টের বিচারপতি নিযুক্ত হন।


আরো সংবাদ

সকল