২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিদেশি ত্রাণ প্রত্যাখ্যান করে সমালোচনার মুখে মোদী

শতাব্দীর ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত ভারতের কেরালা রাজ্য - ছবি: সংগৃহীত

কেরালার বন্যা দুর্গতদের জন্য কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের ত্রাণ সহায়তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে বিরোধীদের তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছে দিল্লির নরেন্দ্র মোদীর সরকার। ত্রাণ সহায়তা প্রত্যাখ্যানের এ সিদ্ধান্তকে ‘হতাশাজনক’ বলেও অ্যাখ্যা দিয়েছেন বিরোধীরা

তারা বলছেন, বিদেশিদের কাছ থেকে সাহায্য নেওয়ার ক্ষেত্রে নিয়মে কোনো ধরনের বাধা থাকলে তা সরিয়ে নেওয়া উচিত। বুধবার এক বিবৃতিতে ভারতের পররাষ্ট্র দফতর বিদেশি সরকারগুলোর কাছ থেকে ত্রাণ সহায়তা না নেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানায়। চলতি মাসের ৮ তারিখ থেকে শুরু হওয়া টানা বৃষ্টির প্রভাবে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্য কেরালা একশ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যার শিকার হয়।

প্রবল বৃষ্টিপাতে উপচেপড়া জলাধারের ফটক খুলে দেওয়ায় বন্যা পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার ধারণ করে। বন্যা ও ভূমিধসে প্রায় চারশ মানুষের মৃত্যু হয়। ক্ষতিগ্রস্ত হয় লাখ লাখ বাড়িঘর; অসংখ্য সড়ক ও সেতু নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি ভেসে যায় লাখ লাখ একর জমির ফসল। বৃষ্টির তোড় কমে এলে উদ্ধার কার্যক্রমের পাশাপাশি শুরু হয় ত্রাণ ও পুনর্বাসন প্রক্রিয়া।

পরিস্থিতির মোকাবেলায় কেরালার সরকার কেন্দ্রের কাছ থেকে অন্তত দুই হাজার কোটি রুপি জরুরি সাহায্য চাইলেও মেলে মাত্র ৬০০ কোটি রুপির প্রতিশ্রুতি।

উপসাগরীয় দেশগুলোতে কেরালার অনেকেই বসবাস ও কাজ করায় সংযুক্ত আরব আমিরাত ও কাতারের সরকার চলতি সপ্তাহে ভারতের দক্ষিণাঞ্চলীয় এ রাজ্যটিকে যথাক্রমে ১০০ ও ৫ মিলিয়ন ডলার সাহায্যের প্রস্তাব দিলেও দিল্লি তা প্রত্যাখ্যান করে।

মোদী অবশ্য বন্যার্তদের জন্য আরও ত্রাণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। ‘অভ্যন্তরীণ প্রচেষ্টার’ মাধ্যমে ত্রাণের এ চাহিদা মেটানো হবে বলে বুধবার জানায় তার সরকার। বিবৃতিতে ভারতের পররাষ্ট্র দফতর বলেছে, ‘কেরালায় ভয়াবহ বন্যার পর সেখানে ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রমে সহায়তা করতে বিদেশি সরকারসহ বেশ কিছু দেশের দেওয়া প্রস্তাবকে সাধুবাদ জানাচ্ছে ভারতের সরকার। বিদ্যমান নীতি অনুযায়ী ত্রাণ ও পুনর্বাসনের এ চাহিদা অভ্যন্তরীণ প্রচেষ্টার মাধ্যমে পূরণের ব্যাপারে সরকার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ,’ ।

গত একশ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত কেরালার বাসিন্দাদের কষ্ট নিবারণে কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানানো বিরোধীরা বিদেশি সাহায্য ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে দিল্লির এ সিদ্ধান্তের কঠোর সমালোচনা করেছে।

প্রয়োজনীয় সাহায্যের ব্যবস্থা করায় ব্যর্থতার পাশাপাশি বিদেশি সাহায্য নেওয়ার ক্ষেত্রে বাধা দিয়ে মোদী কেরালার পরিস্থিতিকে আরও জটিল করে তুলেছেন বলে অভিযোগ করেছে প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস। মোদীকে লেখা খোলা চিঠিতেকেরালার সাবেক মুখ্যমন্ত্রী কংগ্র্রেস নেতা ওম্মেন চান্ডি বলেছেন, ‘কেরালার জনগণের জন্য এ সিদ্ধান্ত খুবই হতাশাজনক। নিয়ম কানুন এমন হওয়া উচিত, যেন তা সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘব করে। বিদেশি সাহায্য গ্রহণের ক্ষেত্রে যদি কোনো ধরনের বাধা থাকে, দয়া করে জরুরি ভিত্তিতে সেদিকে দৃষ্টি দিন ও উপযুক্ত পরিবর্তন আনুন।’

বিদেশিদের সাহায্য প্রত্যাখ্যান করায় রাজ্যকে কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত বলে টুইটারে মন্তব্য করেছেন কেরালার অর্থমন্ত্রী থমাস আইজ্যাক।

বিদেশি সাহায্যের ব্যাপারে আপত্তি জানালেও মোদী সরকারের পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, বিভিন্ন ফাউন্ডেশন, প্রবাসী ভারতীয় ও ভারতীয় বংশোদ্ভূতরা যদি প্রধানমন্ত্রী ও কেরালার মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে অর্থ সাহায্য দিতে চান, তবে তাকে স্বাগত জানানো হবে।

 


আরো সংবাদ