১৬ নভেম্বর ২০১৮

এবার নোটিশ ইমরানকে

পাকিস্তান
ইমরান খান - ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের যে ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো (ন্যাব)-এর তদন্তে জেলে যেতে হয়েছে সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে, তারাই এবার নোটিশ পাঠিয়েছে আগামী প্রধানমন্ত্রীর দৌড়ে এগিয়ে থাকা তেহরিক-ই-ইনসাফ প্রধান ইমরান খানকে। নির্বাচনের মাত্র ১০ দিন আগে তাকে এ নোটিশ দেয়া হলো। খবর এআরওয়াই নিউজের। 

ইমরান খানের বিরুদ্ধে অভিযোগ, খাইবার পাখতুনখোয়া প্রদেশে নিজের দলের সরকার থাকার সুযোগ নিয়ে বহু বার সরকারি হেলিকপ্টার ব্যবহার করেছেন তিনি। গত সাড়ে চার বছরে তাতে শুধু জ্বালানি খরচই লেগেছে ২ কোটি ১০ লাখ টাকা। সরকারের যুক্তি, প্রত্যেক বিমান ভ্রমণেই ইমরানের সাথে ছিলেন একাধিক মন্ত্রী।

পানামা নথির সূত্রে শরিফদের বিরুদ্ধে লন্ডনের পার্ক লেনে বেআইনিভাবে চারটি ফ্ল্যাট কেনার অভিযোগ ওঠে। সেই মামলায় দোষী সাব্যস্ত করে নওয়াজ়কে দশ এবং কন্যা মরিয়মকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে বিশেষ আদালত। মামলায় জড়িয়েছেন পিএমএল(এন) প্রধান শাহবাজ় শরিফ, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শাহিদ খকন আব্বাসি-সহ দলের অন্তত ১৫০০ নেতা-কর্মীও।

শুক্রবার পাঞ্জাব প্রদেশের বিভিন্ন প্রান্তে পুলিশ ও রেঞ্জার্স বাহিনীর সঙ্গে পিএমএল(এন) সমর্থকদের খণ্ডযুদ্ধ বাঁধে। ২০ জন পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হন। তার পরেই সন্ত্রাসদমন আইন, সরকারি সম্পত্তি নষ্টসহ বিভিন্ন ধারায় অভিযুক্ত করা হয় ওই ১৫০০ জনকে। শাহবাজ়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ ১৪৪ ধারা লঙ্ঘনের। শুক্রবার নওয়াজ়-মরিয়মকে স্বাগত জানাতে লাহোর বিমানবন্দরের দিকে এগোচ্ছিল শাহবাজ়ের মিছিল। বিমানবন্দরের কিলোমিটার পাঁচেক আগেই বাঁধে সংঘর্ষ।

পিএমএল(এন)-এর অভিযোগ, তাদের নেতাদের ভোটে লড়া বন্ধ করতে চাইছে প্রশাসন।

আরো পড়ুন :
নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে লাহোরে গ্রেফতার
পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে মরিয়ম শরিফকে শুক্রবার লাহোরের আল্লামা ইকবাল বিমানবন্দরে গ্রেফতার করা হয়েছে। লন্ডন থেকে লাহোরে পৌঁছানোর পরপরই ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবেল ব্যুরোর (এনএবি) কর্মকর্তারা তাদেরকে হেফাজতে নেয়। ইতিহাদ এয়ারওয়েজ যোগে নওয়াজ শরিফ ও তার মেয়ে দেশে ফেরেন। স্থানীয় সময় রাত ৮.৪৫ মিনিটে বিমানটি লাহোরে অবতরণ করে।

তাদের অবতরণের পর ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি তাদের পাসপোর্ট জব্দ করে। সূত্র জানায়, গ্রেফতারের সময় নওয়াজ ও তার মেয়ে কর্মকর্তাদের সাথে পূর্ণ সহযোগিতা করেন।

এর আগে এক ভিডিও বার্তঅয় নওয়াজ শরিফ আগামী প্রজন্মের জন্য সুন্দর পাকিস্তান গড়ার কাজে তাকে সহযোগিতা করতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

পাকিস্তানের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ দুর্নীতির অভিযোগে গত বছর ক্ষমতাচ্যুত হন। অবৈধ সম্পদ রাখার দায়ে গত ৬ জুলাই আদালত তাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেন। এ ছাড়া তার মেয়ে মরিয়মকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

মরিয়ম তার টুইটার অ্যাকাউন্টে লন্ডন ছেড়ে যাওয়ার আগের মুহূর্তের ছবি দিয়েছেন। একটি ছবিতে দেখা যায়, বাবা ও মেয়ে বিদায় নিচ্ছেন কুলসুম নওয়াজের কাছে। নওয়াজ শরিফের স্ত্রী কুলসুম দীর্ঘদিন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ২৫ জুলাইয়ের নির্বাচন সামনে রেখে তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হয়েছে।

গত বুধবার লন্ডনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) নেতা নওয়াজ শরিফ বলেন, ‘একসময় আমরা বলতাম রাষ্ট্রের ভেতর আরেক রাষ্ট্র, আর এখন দাঁড়িয়েছে রাষ্ট্রের ওপর আরেক রাষ্ট্র। আমার সামনে কারাগারের গারদ দেখছি, তা সত্ত্বেও আমি পাকিস্তানে যাব।’

দুর্নীতিবিরোধী আদালত বলেন, অবৈধভাবে নওয়াজ শরিফ লন্ডনে চারটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাটের মালিক হয়েছেন।

নওয়াজের ফেরা উপলক্ষে লাহোর বিমানবন্দরে দলের হাজারো নেতাকর্মী হাজির হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। অবশ্য তিনি এরই মধ্যে গণসমাবেশের আহ্বান জানিয়েছেন।

আগামী ২৫ জুলাই পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচন।

আদালত তিনবারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজকে আজীবনের জন্য রাজনীতিতে অযোগ্য ঘোষণা করায় তিনি নির্বাচনের অংশ নিতে পারবেন না।

কিন্তু বর্তমানে ক্ষমতায় থাকা তার দল পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজ (পিএমএল) এর সমর্থকদের উজ্জীবিত করতেই তিনি গ্রেফতার হবেন জেনেও দেশে ফেরার ঝুঁকি নিয়েছেন।

গত বুধবার লন্ডনে এক জনসভায় নওয়াজ বলেন, ‘এক সময় আমরা প্রায়ই বলতাম রাষ্ট্রের ভেতর রাষ্ট্র, এখন এটা রাষ্ট্রের উপর রাষ্ট্র। যদিও আমি চোখের সামনে কারাগার দেখতে পাচ্ছি, তারপরও আমি পাকিস্তান যাচ্ছি।’

তিনি জনগণকে রাস্তায় বেরিয়ে এসে প্রতিবাদ করার আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে, নওয়াজের আগমনের কারণে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে আশঙ্কায় গত কয়েক দিনে তার দলের শত শত কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিবিসি।


আরো সংবাদ