১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

এবার দ্বন্দ্বে ইমরান খানের দুই সাবেক স্ত্রী

জেমিমা গোল্ডস্মিথ ও রেহাম খান - ছবি : সংগ্রহ

লড়াই ভালোই জমে উঠেছে পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ও রাজনীতিক ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী রেহাম খানের লেখা বই নিয়ে। বইটি প্রকাশের আগেই এর বিরুদ্ধে উঠেছে আপত্তি। অনেকেই অভিযোগ করেছেন বইটিতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বেশ কিছু খ্যাতিমান ব্যক্তির চরিত্রহরণ বা মানহানি করা হয়েছে। আর ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ (পিটিআই) তো বলেছে, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে উদ্দেশ্যমূলকভাবে তাদের দলকে বিতর্কীত করতে বইটি লেখা হয়েছে।

ইমরান খানের সাথে বিচ্ছেদ হয়ে যাওয়ার কয়েক মাস পর তার দ্বিতীয় স্ত্রী রেহাম খান আত্মজীবনীমূলক বই লিখেছেন। বইটি এখনো প্রকাশিত হয়নি, তার আগেই ঝড় তুলেছে পাকিস্তানের রাজনীতিতে। অনলাইনে একজন হ্যাকার বইয়ের পাণ্ডুলিপির কিছু অংশ ফাঁস করে দেয়ার পরই শুরু হয়েছে তোলপাড়। এবার সেই ধারায় যোগ দিয়েছেন ইমরান খানের আরেক সাবেক স্ত্রী(প্রথম) জেমিমা গোল্ডস্মিথ।

ইমরান-জেমিমার এক সন্তানকে নিয়ে রেহাম খানের বইতে মানহানিকর তথ্য রয়েছে উল্লেখ করে বইটির বিরুদ্ধে হুশিয়ারি দিয়েছেন জেমিমা। জেমিমা বলেছেন, আমার সন্তানকে নিয়ে অপমানজনক তথ্য রয়েছে বইটিতে। আমি কোন কিছু করতে ভয় পাবো না। টুইটারে তিনি বলেছেন, আমার সন্তানকে নিয়ে কেউ অপমান সূচক মন্তব্য করলে তা সহ্য করবো না।
টুইটারে বইটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দিয়েছেন জেমিমা। বলেছেন, মানহানি ও গোপনীয়তা লঙ্ঘনের জন্য আমার ১৬ বছরের সন্তানের পক্ষে মামলা করবো। তিনি রেহামের এই কর্মকাণ্ডকে ইহুদীবাদীদের ষড়যন্ত্র তত্ত্ব হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। প্রসঙ্গত বর্তমানে সুলাইমান খানের বয়স ১৯, তবে বইটিতে তার প্রসঙ্গে যে সময়ের কথা বলা হয়েছে, তখন তার বয়স ছিলো ১৬ বছর।

জেমিমা আরো বলেন, রেহাম খানের বইটি ব্রিটেনে প্রকাশি হলে এর বিরুদ্ধে তার সন্তান সুলাইমান ইসা খান যদি মামলা করে সেই মামলা পরিচালনার খরচ যোগাবেন তিনি।
১৯৯৫ সালে ইমরান খানের সাথে বিয়ে হয় ব্রিটিশ সাংবাদিক জেমিমা গোল্ডস্মিথের। নয় বছর টিকে ছিলো তার সংসার। পাকিস্তানের রাজনৈতিক উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে দেশটিতে বসবাস করার সম্ভব নয় উল্লেখ করে জেমিমা লন্ডনে ফিরে যান। তাদের সংসারে রয়েছে দুটি পুত্র সন্তান। আর জেমিমা খানের সাথে ইমরান খানের বিয়ে হয় ২০১৫ সালে, এক বছর পূর্তির আগেই ভেঙে যায় সেই সংসার।

পূর্বেকার খবর : প্রকাশের আগেই ঝড় তুলল রেহাম খানের বই
প্রকাশের আগেই রীতিমতো তোলপাড় শুরু হয়েছে পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ইমরান খানের সাবেক স্ত্রী রেহাম খানের আত্মজীবনীমূলক বই নিয়ে। বইটির পাণ্ডুলিপি অনলাইনে ফাঁস হওয়ার পরই শুরু হয়েছে হৈচৈ। দাবি উঠেছে বইটির প্রকাশনা বন্ধ করার।

পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার, বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ও বর্তমানে পাকিস্তান তেহরিক-ই ইনসাফ(পিটিআই) দলের নেতা ইমরানের সাবেক স্ত্রী রেহাম খান আত্মজীবনী লিখেছেন। শীঘ্রই বইটি প্রকাশিত হওয়ার কথা রয়েছে। তবে বইটিতে নিজেদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর তথ্য রয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছেন পাকিস্তানের চার হেভিওয়েট ব্যক্তি। শুধু তাই নয় তারা আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন রেহাম খানকে। বলেছেন, তথ্যগুলো বাদ দিতে। নতুবা হুমকি দিয়েছন আইনি ব্যবস্থা নেয়ার।

যে চার ব্যক্তি দাবি করেছেন বইতে তাদের বিরুদ্ধে মানহানিকর তথ্য রয়েছে তারা হলেন, পাকিস্তানের সাবেক ক্রিকেটার ওয়াসিম আকরাম, রেহাম খানের সাবেক স্বামী ইজাজ রেহমান, ব্রিটিশ-পাকিস্তানি ব্যবসায়ী জুলফি বুখারি ও ব্রিটিশ পাকিস্তানি নারী অধিকার কর্মী আনিলা খাজা।

গত সোমবার এই চার ব্যক্তির পক্ষ থেকে একটি আইনি নোটিশ পাঠানো হয়েছে রেহাম খানের কাছে। নোটিশে বলা হয়েছে, রেহাম তার আত্মজীবনীতে ওই চার ব্যক্তির সম্পর্কে মানহানিকর ও দূষিত তথ্য সংযুক্ত করেছেন।

ওয়েস্ট লন্ডনের একটি আইনি প্রতিষ্ঠান থেকে পাঠানো আইনি নোটিশে বলা হয়েছে, ‘রেহাম খান’ নামের ওই আত্মজীবনীমূলক পাণ্ডুলিপিতে প্রতিষ্ঠানটির চার মক্কেলের বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা, ভুল, বিভ্রান্তিকর, নির্মম, চরিত্রহানিকর তথ্য যুক্ত করা হয়েছে।

একটি সূত্র জানিয়েছে, তেহরিক ও ইনসাফ নেতা ইমরান খানের ঘনিষ্ঠজন জুলফি বুখারি ওই প্রতিষ্ঠানটিকে এই নোটিশ পাঠানোর নির্দেশনা দিয়েছেন। এর আগে ইমরান খানের অনেক আইনি বিষয় নিয়ে কাজ করেছেন প্রতিষ্ঠানটি আইনজীবী মাহতাব আজিজ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও পাকিস্তানি সংবাদ মাধ্যমে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে এই ঘটনায়। ইমরান খানের সাথে বিয়ের পর ১৫ মাস সংসার করেছিলেন রেহাম খান। গত বছর তাদের বিচ্ছেদ হয়। আর এর আগে রেহাম সংসার করেছিলেন ইজাজ রেহমানের সাথে। ঘটনার সাথে জড়িত নারী অনিলা খাজা পিটিআই দলের সাথে জড়িত।

বইটির পাণ্ডুলিপি ফাঁসের পরই পিটিআই নেতারা এর জোর সমালোচনা ‍শুরু করেছেন। তারা বলছেন বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়ে বইটি লেখা হয়েছে এবং উদ্দেশ্যমূলকভাবেই প্রকাশের আগে পাণ্ডুলিপি ফাঁস করা হয়েছে। তাদের দাবি, আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে ইমরান খানের দল পিটিআইকে বিতর্কীত করতেই বইটি লেখা হয়েছে। আইনি নোটিশে বলা হয়েছে, প্রকাশের আগে সংশোধন না করা হলে এর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তবে এসব অভিযোগ প্রত্যাখান করেছেন রেহাম খান। তিনি বলেছেন, পিটিআই নেতারা যেসব অভিযোগ করছেন তা ভিত্তিহীন। বইটির বিষয়ে সাবেক পাকিস্তানি পেসার ওয়াসিম আকরাম বা অন্য অভিযোগকারীদের কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে যৌথ আইনি নোটিশটি তাদের অবগতিতেই হয়েছ বলে ধারণা করা হচ্ছে। অবশ্য পিটিআই নেতা ও রেহাম খানের সাবেক স্বামী ইমরান খানও কোন মন্তব্য করেননি এখন পর্যন্ত বইটি নিয়ে।


আরো সংবাদ