০৭ ডিসেম্বর ২০১৯

এবার ওমানের বিপক্ষে জয়ের টার্গেট  

-

কাতার বিশ্বকাপ ফুটবল বাছাই পর্বে এখনো জয় শূন্য বাংলাদেশ। তাই ২০২২-এর বাছাই পর্বে ‘ই’ গ্রুপে পাঁচ দলের মধ্যেও সবার নিচে লাল-সবুজরা। এই জয় তাদের পাওয়ার কথা ছিল গত দুই ম্যাচেই। কিন্তু অল্পের জন্য হাতছাড়া ভারত এবং কাতার। ভারতের বিপক্ষে অ্যাওয়ে ম্যাচে ৮৯ মিনিটের গোল জয় বঞ্চিত বাংলাদেশ। ফলে ১-১ গোলে ড্র। আর ঢাকায় কাতারের বিপক্ষে সাতটি গোল মিস করে শেষ পর্যন্ত ০-২ গোলে হার জামাল ভূঁইয়াদের। তবে ওই দুই ম্যাচের পারফরম্যান্সই আজ আরো আত্মবিশ্বাসী করেছে জেমি ডে বাহিনীকে। যে জন্য আজ তাদের জয়ের টার্গেট ওমানের বিপক্ষেও। স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টা এবং বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় মাসকাটের সুলতান কাবুস স্পোর্টস কমপ্লেক্সে ওমান-বাংলাদেশের ম্যাচ। বাংলা টিভি এই ম্যাচ সরাসরি সম্প্রচার করবে। আশির দশকে একবার সাক্ষাৎ হয়েছিল ওমান ও বাংলাদেশের। সেই ম্যাচে ওমানের জয় ৩-১ এ।
বাংলাদেশের চেয়ে এক শ’ ধাপ এগিয়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমান। তাদের র্যাংকিং ৮৪। সেখানে বাংলাদেশ ১৮৪তে। কিন্তু তাতে কী। বাংলাদেশ তো সর্বশেষ হোম ম্যাচে এশিয়া চ্যাম্পিয়ন কাতারের টুঁটি চেপে ধরেছিল। চারটি নিশ্চিত গোলের সুযোগ গোললাইন থেকে না ঠেকানো হলে সেদিন বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে আরেকটি ইতিহাস হতো ২০০৩-এর সাফ চ্যাম্পিয়নদের। এরপর ভারতের বিপক্ষে সারাক্ষণ এগিয়ে থেকেও শেষ সময়ে গোল হজম। ওই ম্যাচের জেমি বাহিনীর দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। তাদের ওই দুই ম্যাচের নৈপুণ্যই আজ ওমানকে কাবু করার বাড়তি প্রেরণা। কোচ জেমি ডে এবং অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া কাল ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে বেশ দৃঢ়তার সাথেই বললেন, আজ আমাদের লক্ষ্য জয়। অবশ্য পরক্ষণেই তাদের মুখ থেকে বের হওয়া বাস্তববাদী কথা, ‘সব দলই জয়ের জন্য মাঠে নামে। আমরাও তাই। তবে আসলেই বেশ টাফ এই ম্যাচ।’ জেমি ডে বললেন, এটা বাংলাদেশের জন্য অন্যতম কঠিন ম্যাচ।
আজ অপর ম্যাচে তাজিকিস্তানের দুশানবেতে আফগানিস্তানের আতিথ্য নিচ্ছে ভারত। কাতারের বিশ্রাম এই রাউন্ডে। আজ বাংলাদেশের সুযোগ গ্রুপের তৃতীয় স্থানে ওঠা। যদি বাংলাদেশ জিততে পারে এবং ড্র হয় ভারত ও আফগানিস্তান ম্যাচ। চার খেলায় ১০ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপে শীর্ষে কাতার। ওমান আছে দ্বিতীয় স্থানে। তাদের অর্জন তিন ম্যাচে ছয় পয়েন্ট। তিন পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আফগানিস্তান। তাদের শেষ হওয়া ম্যাচের সংখ্যা তিন। ভারতের দুই এবং বাংলাদেশের এক পয়েন্ট। দুই দলই তিনটি করে ম্যাচ সম্পন্ন করেছে।
বাংলাদেশের ইংলিশ কোচ জেমি ডের মতে, আমরা গত তিন ম্যাচে যে স্ট্র্যাটিজি নিয়ে খেলেছি এর মধ্যে কোনো পরিবর্তন আসবে না আজ। বিশেষ করে ভারত এবং কাতারের বিপক্ষে আমরা যেভাবে খেলেছিলাম এই ম্যাচেও সে নৈপুণ্য প্রত্যাশা করছি। লক্ষ্য আমাদের একটাই, জয়। দলের সবাই ফিট। যদিও এখনো ঠিক করিনি কারা কারা ওমানের বিপক্ষে প্রথম একাদশে খেলতে নামবেন।
অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার মতে, ওমানের বিপক্ষে জিততে হলে গোল করতে হবে আমাদের। এই সব ম্যাচে বেশি বেশি চান্স পাওয়া যাবে না। যে সুযোগ আসবে সেটাই কাজে লাগাতে হবে। কাতারের বিপক্ষে হোম ম্যাচে আমরা অনেক চান্স মিস করেছি। এরপরেই ডেনমার্ক প্রবাসী এই ফুটবলার মনে করিয়ে দেন, ওমানের বিপক্ষে আমাদের বল পজিশন ৮০ শতাংশ থাকবে না। এখানে আমাদের কাউন্টার অ্যাটাকেই খেলতে হবে। আর আমরা আক্রমণে গেলে প্রতিপক্ষ যেন পাল্টা আক্রমণ করে গোল আদায় করতে না পারে সে জন্য সতর্ক আমাদের রক্ষণভাগ।
এদিকে এখনো শীর্ষে না থাকতে পেরে কিছুটা হলেও চাপে ওমান দল। যাদের দলে আছে ইংলিশ লিগে ১০ বছর ধরে খেলা গোলরক্ষক আলী খামছি। তার সর্বশেষ দল ব্রমউইচ। তাই আজ বাংলাদেশেরে বিপক্ষে জয়ের ব্যাপারে বেশ আত্মবিশ্বাসী দেখা গেল ওমানের ডাচ কোচ এরউইন কোম্যান এবং গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলার আলী খামছিকে। পেশাদারি সুরেই তারা বললেন, বাংলাদেশের বিপক্ষে জেতাটা মোটেই সহজ হবে না। তবে আমাদের পূর্ণ আত্মবিশ্বাস আছে তিন পয়েন্ট পাওয়ার। কোচ আরেকটু এগিয়ে বলেন, বাংলাদেশ দলের দুই ফুটবলার জার্সি নং ৯ (জীবন) এবং জার্সি নং ১৬ (ইব্রাহিম) বেশ দ্রুতগতির ফুটবলার। আলী খামছি তথ্য দিলেন, আমরা আগের ম্যাচ গুলোর তুলনায় বেশি ফিট।

 

 


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik