১৭ নভেম্বর ২০১৯

ম্যানইউর সাথে শেষ ৩২-এ সেল্টিক

-

টিনএজার ম্যাসন গ্রিনউডের গোলে ওল্ড ট্রাফোর্ডে পার্টিজান বেলগ্রেডকে ৩-০ গোলে হারিয়ে ইউরোপা ফুটবল লিগের শেষ ৩২-এ জায়গা করে নিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। রোমে অনুষ্ঠিত লিগের আরেক ম্যাচে ল্যাৎসিওকে হারিয়ে নক-আউট পর্বে ইউনাইটেডের সঙ্গী হয়েছে সেল্টিক।
ইউনাইটেড কোচ উলে গুনার সুলশার আগেই জানতেন যে ‘এল’ গ্রুপের তৃতীয় ম্যাচে জয় পেলেই সেরা ৩২-এ নাম লেখাতে পারবে তার দল। ম্যাচের ২২তম মিনিটেই গোল খরা দূর করেন ক্লাবের ১৮ বছর বয়সি গ্রিনউড। অত্যন্ত ঠাণ্ডামাথায় মৌসুমের তৃতীয় এবং টুর্নামেন্টে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন এই টিনএজার।
ম্যাচের বয়স আধা ঘণ্টার ঘরে পৌঁছতেই ইউনাইটেডের হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অ্যান্থনি মার্টিয়াল। একক নৈপুণ্যে তার করা গোলটি ছিল দেখার মতো। বিরতির পর স্বাগতিক দলের হয়ে তৃতীয়ও শেষ গোলটি করেন মার্কাস রাসফোর্ড। সহজ এই জয়ের ফলে পরাজয়ের ধারা থেকেও বেরিয়ে এসেছে ইউনাইটেড। সপ্তাহের শেষভাগে বার্নেমাউথের কাছে ১-০ গোলে হেরে তিন ম্যাচে টানা জয়ের ধারা থেকে ছিটকে পড়েছিল ইউনাইটেড। এ দিকে কাজাখস্তানে এজেড আলকামার ৫-০ গোলে আস্তানাকে হারিয়ে ‘এল’ গ্রুপের দ্বিতীয় অবস্থানকে সংহত করেছে। পার্টিজানের চেয়ে চার পয়েন্টে এগিয়ে থেকে গ্রুপে ইউনাইটেডের পরের স্থানটি অক্ষত রেখেছে তারা।
‘ই’ গ্রুপের ম্যাচে ইনজুরি টাইমে অলিভার নিচামের নাটকীয় গোলে ল্যাৎসিওর বিপক্ষে ২-১ গোলে জয় লাভ করে স্কটিশ জায়ান্ট সেল্টিক। এর ফলে গ্রুপের শীর্ষস্থানটি অক্ষত রাখতে সক্ষম হয় নেইল লেননের শিষ্যরা। রোমানদের বিপক্ষে টানা এই দ্বিতীয় জয়ে তৃতীয় স্থানে থাকা ল্যাৎসিওর চেয়ে ৭ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে সেল্টিক। রোমানিয়ায় অনুষ্ঠিত গ্রুপের অন্য ম্যাচে রেনেকে ১-০ গোলে হারিয়ে কোয়ালিফিকেশনের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে সিএফআর ক্লুজ।
এ দিকে ইব্রক্সে অনুষ্ঠিত ম্যাচে পোর্তোকে ২-০ গোলে হারিয়ে ২০১১ সালের পর প্রথমবারের মতো আসরের নকআউট পর্বে খেলার সম্ভাবনা জাগিয়ে রেখেছে রেঞ্জার্স। ‘জি’ গ্রুপের ওই ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে রেঞ্জার্সের হয়ে গোল দু’টি করেছেন আলফ্রেডো মোরেলস ও স্টেভেন ডেভিস। ফলে গ্রুপের দ্বিতীয় অবস্থানে পৌঁছে যায় তারা। ওই গ্রুপের শীর্ষে রয়েছে ইয়ং বয়েজ। তারা ১-১ গোলে ড্র করেছে ফেইনুর্ডের সাথে।
ইউরোপা লিগের মিশনে এসে প্রথম জয়ের দেখা পেয়েছে বুন্দেসলিগার শীর্ষস্থানধারী বরুশিয়া মনচেনগ্লাডবাচ। ম্যাচের ৯৫তম মিনিটে (অতিরিক্ত সময়ে) মার্কাস থুরামের গোলে ২-১ ব্যবধানে রোমাকে হারায় তারা। এই জয়ে ‘জে’ গ্রুপের দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে গেছে জার্মান ক্লাবটি। শীর্ষে থাকা ইস্তাম্বুল বাসাকশিরের চেয়ে ২ পয়েন্টে পিছিয়ে থাকা ক্লাবটি হেড টু হেডে এগিয়ে রয়েছে রোমার চেয়ে। এ দিন অস্ট্রিয়ায় ইস্তাম্বুল ৩-০ গোলে হারিয়েছে ১০ জনের দলে পরিণত হওয়া উলফসবার্গারকে।
রুবেন নাভাস পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হওয়ায়ার পরও গতকাল ইউরোপা লিগে টানা তৃতীয় জয় পেয়েছে উলভস। মলিনেক্সে অনুষ্ঠিত ম্যাচে ইনজুরি টাইমে (৯০+২ মি.) রাউল গিমেনেজের গোলে ১-০ ব্যবধানে স্লোভান ব্রাতিসলাভাকে হারায় তারা। এর ফলে ‘কে’ গ্রুপে ৫ পয়েন্টের ব্যবধান রচনা করে দ্বিতীয় স্থান ধরে রেখেছে নুনো এসপিরিটো স্যান্তোসের শিষ্যরা। তাদের চেয়ে এক পয়েন্ট বেশি নিয়ে তালিকার শীর্ষে রয়েছে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব ব্রাগা। গতকাল বেসিকতাসকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে তারা।
বার্সেলোনার সাবেক ওয়েঙ্গার মুনির এল হেদাদির হ্যাটট্রিকে সেভিয়া ৫-২ গোলে ডুডেলাঙ্গেকে হারিয়ে নিশ্চিত করেছে নকআউট পর্ব। রেকর্ডসংখ্যক ৫ বারের শিরোপা জয়ী সেভিয়া আগেই জানতো লুক্সেমবার্গের ওই ম্যাচে জয় পেলেই ‘এ’ গ্রুপ থেকে নকআউট নিশ্চিত হবে তাদের। নিকোশিয়ায় অনুষ্ঠিত গ্রুপের আরেক ম্যাচে এপোয়েল ২-১ গোলে কুয়ারাবাগকে হারিয়ে তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।
এ দিকে ১৯৭৮ সালের শিরোপা জয়ী পিএসভি আইন্দোভান ৪-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে হার মেনেছে অস্ট্রিয়ান ক্লাব এলএএসকে লিনজের কাছে। এর ফলে ‘ডি’ গ্রুপের পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় অবস্থানে নেমে গেছে তারা। রোজেনবার্গকে ২-০ গোলে হারিয়ে তালিকার শীর্ষে রয়েছে স্পোর্টিং লিসবন। এ ছাড়া ‘আই’ গ্রুপের ম্যাচে এস্পানিওল ৬-০ গোলের বিশাল ব্যবধানে লুডোগোরেটসকে হারিয়ে নকআউট পর্বের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে। উলফসবার্গকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ওই গ্রুপের শীর্ষে উঠে গেছে জেন্ট।


আরো সংবাদ