১৪ অক্টোবর ২০১৯

মেধাশূন্য ‘বাংলাদেশ’ শঙ্কায় আফতাব!

-

অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতি মাঠপর্যায় থেকে প্রতিভাবান ক্রিকেটারদের ওঠে পথ রুদ্ধ করে দিয়েছে বলে দাবি করেছেন সাবেক টাইগার ব্যাটসম্যান আফতাব আহমেদ। চলমান অব্যবস্থাপনা বাংলাদেশের ক্রিকেটকে মেধাশূন্যতার দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলেও তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। স্থানীয়পর্যায় থেকে প্রকৃত প্রতিভা বাছাইয়ে প্রচলিত পদ্ধতিকে ভুল আখ্যায়িত করে যত দ্রত সম্ভব পরিবর্তনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে (বিসিবি) উদ্যোগ গ্রহণের আহবান রেখেছেন আফতাব আহমেদ। টাইগার জার্সিতে শ্রেষ্ঠ প্রতিভার প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে জেলা ও বিভাগ পর্যায়ে বয়সভিত্তিক দল গঠন অত্যন্ত কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে বলেও জানান সাবেক সুপারস্টার ব্যাটসম্যান। সম্প্রতি চট্টগ্রামে বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় একটি মিডিয়াকে দেয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি মাঠপর্যায় থেকে প্রতিভার অন্বেষণের সাথে অ্যাকাডেমি সংশ্লিষ্ট কাউকে না রাখার পরামর্শ দেন।
আফতাব বলেন, ‘শ্রেষ্ঠ মেধা বের করে আনার ক্ষেত্রে ভুল পদ্ধতির প্রভাব ইতোমধ্যেই ব্যাপকতা ধারণ করতে শুরু করেছে। ক্রিকেটার বাছাই ও বয়সভিত্তিক দল গঠনের চলমান প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকলে শিগগিরই মেধাশূন্য হয়ে পড়বে বাংলাদেশ। সর্বশেষ দু’টি সিরিজের পারফরম্যান্সে আমি চরম উৎকণ্ঠিত টাইগারদের ভবিষ্যৎ নিয়ে। অবাক করার মতো ব্যাপার হচ্ছে তিন বছর আগে থেকে বলা হয়েছে প্রথম পছন্দের বাইরে ব্যাকআপ দল গঠনের কথা। বিকল্প একটি দলের গুরুত্ব অনুধাবনের কোনো বিকল্প নেই। সাকিব-তামিমের অনুপস্থিতির সিরিজে অভিজ্ঞতা কতটা দুঃসহ হতে পারে না সম্প্রতি প্রমাণিত হয়েছে। এখনো তাদের ওপর নির্ভারতার ব্যাপকতা সবার সামনে চলে এসেছে। অনূর্ধ্ব-১৪, ১৬ ও ১৮ লেভেলের দল আমাদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জেলা পর্যায়ের কোচদের অধীনে বিকশিত ক্রিকেটাররা জাতীয় দলের জার্সিতে সবচেয়ে ভালো করেছেন। মাঠপর্যায়ের ক্রিকেটে সর্বোচ্চ মনোযোগ প্রদর্শন বিসিবির জন্য অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। বালক বয়স থেকে পরিচর্যা সম্ভব হলেই কেবল নিশ্চিত হবে টাইগার জার্সিতে শ্রেষ্ঠ প্রতিভার প্রতিনিধিত্ব।’
মাঠপর্যায় থেকে প্রতিভা বাছাইয়ে দেশব্যাপী অনূর্ধ্ব-১২ বয়সভিত্তিক ক্রিকেটীয় উৎসবের আয়োজন বিসিবির প্রাথমিক কার্যক্রম। অনূর্ধ্ব-১৬, ১৬ ও ১৮ দল নির্বাচনের প্রাধান্য পেয়ে আসছে জাতীয়পর্যায়ে আয়োজিত টুর্নামেন্টে পারফরম্যান্স। মাঠপর্যায় থেকে ক্রিকেটার বের করে আনার নির্দিষ্ট বিধি-বিধান যথাযথভাবে অনুসরণ করা হলে শ্রেষ্ঠ প্রতিভা বিকশিত হবে বলে জানান আফতাব। তিনি বলেন, ‘আর বিলম্বের কোনো সুযোগ নেয়। উপযুক্ত ব্যক্তিদের সমন্বিত করে বাংলাদেশের ক্রিকেটের প্রকৃত উন্নয়নের কাজ শুরু করতে হবে বিসিবিকে। সাম্প্রতিক সময়ে সানজামুল, সোহান ও রাব্বির মতো কাউকে দেখিনি। লিটন ও সৌম্য প্রতিভাবান ক্রিকেটার। কিন্তু আমি জানি না কেন পারফরম্যান্সের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ হচ্ছে। পারফরম না করার পরও তারা দলের সাথে রয়েছে। কারণ পর্যাপ্ত ক্রিকেটারের অভাব চলছে বাংলাদেশে।’


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum