১৭ অক্টোবর ২০১৯

সাদিয়া রাত্রি নাদিরার গোল

-

 

দীর্ঘ তিন ম্যাচে লাগাতর গোল হজমের পর গোলের দেখা পেল বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা অনূর্ধ্ব-২১ হকি দল। চতুর্থ ম্যাচে এসে এক দু’বার নয়, তিন তিনবার বল পাঠিয়েছে প্রতিপক্ষ সাই অ্যাকাডেমি মহিলা হকি দলের জালে। যদিও গতকাল চতুর্থ ম্যাচে সাই অ্যাকাডেমির বিপক্ষে হেরেছে ৯-৩ গোলে। প্রথম ও দ্বিতীয় ম্যাচে ৬-০ গোলে এবং তৃতীয় ম্যাচে হেরেছে ৩-০ গোলে। সাথে হয়েছে আরো একটি রেকর্ড। প্রথমবারের মতো পূর্ণ ম্যাচে বাঁশি বাজালেন দেশের একমাত্র মহিলা আম্পায়ার মহুয়া। আজ সন্ধ্যা ৭টায় ফ্লাড লাইটের আলোতে পঞ্চম ম্যাচে মোকাবেলা করবে উভয়দল।
টানা ম্যাচ খেলায় ক্লান্ত ছিলেন বাংলাদেশ মহিলা হকি দল। এর আগে এমন প্রেসারে পড়েনি তারা। প্রতিটি খেলোয়াড়ের ওপর ধকল বয়ে গেছে সেটি তাদের করুণ চেহারায় সুস্পষ্ট। ইনজুরিও প্রকটভাবে বাসা বেঁধেছে দলে। বড় হারের কারণ এটিকেই দেখছেন সহকারী কোচ হেদায়েতুল ইসলাম রাজীব, ‘আমাদের মেয়েরা তো কখনো এমন পরিস্থিতিতে পড়েনি। টানা খেলা খেলেনি। প্র্যাকটিসে একরকম প্রেসার দিতে হয় আর ম্যাচে তার তিনগুণ। আগামীকালও (আজ) খেলা আছে। দুই তিনদিন গ্যাপে খেলা হলে একটু রেস্ট পাওয়া যেত। আজ (গতকাল) গোল বেশি হওয়ার এটিই কারণ।’
তৃতীয় কোয়ার্টারে প্রথম গোলের দেখা পাওয়া নড়াইলের মেয়ে সাদিয়া খানম জানান, ‘অনুভূতি বলে বোঝানো যাবে না। ওদের কাছে (সাই অ্যাকাডেমি) মোট ১৯ গোল খাওয়ার পর আমার স্টিকেই যে গোল হবে তা আগে বুঝিনি। তবে আমাদের গোল পাওয়াটা খুবই জরুরি ছিল। ওরা সবাই উপরে উঠে গেলে মাঝ মাঠ থেকে বল নিয়ে যখন দৌড় দেই তখন মনে হয়েছে গোলটা মনে হয় হয়েই যাবে। হয়েছেও তাই। আমরা যে গোল করতে পারি সে বিশ্বাসও ফিরে পেয়েছি।’
বাংলাদেশের হয়ে একই কায়দায় দ্বিতীয় গোল করা কিশোরগঞ্জের ফারদিয়া আক্তার রাত্রি ও চমৎকার ফ্লিকে তৃতীয় গোল করা ঝিনাইদহের নাদিরা জানান, ‘খুশি তো অবশ্যই লাগছে। ওদের সাথে পাল্লা দিয়ে গোল করা এবং ওদের যে রান আপ তা টপকে যাওয়া ছিল চ্যালেঞ্জ। যদিও তারা গোলকিপারকে বাদ দিয়ে তাদের শক্তি বাড়িয়েছে ফরোয়ার্ডে। কিন্তু আমাদের ‘ডি’ পর্যন্ত আসাটাই ছিল চ্যালেঞ্জ। পাল্টা আক্রমণে গোল হয়েছে যথাসময়ে ডিফেন্স থেকে পাস দেয়ার কারণেই। আরো দু’টি ম্যাচ আছে, আশা করছি সেখানেও গোল করতে পারব। টানা ম্যাচ খেলে সবাই ক্লান্ত ও পরিশ্রান্ত। দেশের জন্য এতটুকু কষ্ট তো সহ্য করতেই হবে।’

 


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum
portugal golden visa